বাংলা নিউজ > ময়দান > ইংল্যান্ড-ভারতের পঞ্চম টেস্ট বাতিলের ৩ কারণ খুঁজে পেলেন প্রাক্তন ব্রিটিশ অধিনায়ক
মাইকেল আথার্টন(ছবি:টুইটার)
মাইকেল আথার্টন(ছবি:টুইটার)

ইংল্যান্ড-ভারতের পঞ্চম টেস্ট বাতিলের ৩ কারণ খুঁজে পেলেন প্রাক্তন ব্রিটিশ অধিনায়ক

  • ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক মাইকেল আথার্টন আবার সকলকে ছাপিয়ে গিয়ে আরও একটি কারণ ব্যাখ্যা করলেন। তাঁর মতে, বর্তমানে ক্রিকেটাদের ক্ষমতা অনেক বেশি। সেই কারণেই বাতিল করা হয়েছে সিরিজের শেষ টেস্ট।

সরকারিভাবে বলা হচ্ছে করোনার কারণেই বাতিল করা হয়েছে ইংল্যান্ড বনাম ভারতের ম্যাঞ্চেস্টার টেস্ট। ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি) এবং ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) পারস্পরিকভাবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। আর সিরিজের শেষ টেস্ট বাতিল করার পরেই হতাশায় ডুবে গিয়েছে ক্রিকেট মহল। এমন অবস্থায় বিশেষজ্ঞরা টেস্ট বাতিল করার আরও কারণ খোঁজার চেষ্টা করছেন। অনেকেই জানাচ্ছেন আইপিএল-এর কারণেই বাতিল করা হয়েছে ইংল্যান্ড বনাম ভারতের ম্যাঞ্চেস্টার টেস্ট। যার কারণ হিসাবে তারা নিজেদের ব্যাখ্যা তুলে ধরছেন। 

ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক মাইকেল আথার্টন আবার সকলকে ছাপিয়ে গিয়ে তিনটি কারণ ব্যাখ্যা করলেন। তাঁর মতে, বর্তমানে ক্রিকেটাদের ক্ষমতা অনেক বেশি। সেই কারণেই বাতিল করা হয়েছে সিরিজের শেষ টেস্ট। যদি ক্রিকেটারদের ক্ষমতা না থাকত তাহলে কখনই সিরিজ বাতিল করা হত না। কারণ তখন ভারতীয় ক্রিকেটাদের কথাকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হতনা এবং  ল্যাঙ্কাশায়ার ক্লাব এবং ৮৫০০০জন দর্শকের কথা ভাবা হত। তাঁর মতে ভারতীয় খেলোয়াড়রা খেলতে চাইনি বলেই সিরিজ বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। এখানে ক্রিকেটারদের ক্ষমতা এতটাই ছিল যে বোর্ডও তাদের কথা ফেলতে পারেনি। এভাবেই নিজের তত্ত্ব বিশ্লেষণ করলেন মাইকেল আথার্টন। 

ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক জানান, ‘কোভিড ১৯,  খেলোয়াড়দের ক্ষমতা এবং ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ এই তিন মিলে ম্যাঞ্চেস্টারে পঞ্চম টেস্টকে বাতিল করেছে।  ল্যাঙ্কাশায়ার ক্লাব এবং ৮৫০০০ বা তার বেশি সমর্থক যারা প্রথম চার দিন উপস্থিত থাকার জন্য টিকিট কিনেছিলেন তাদের সকলকে অবাক করেছে। ম্যাচটি বাতিল হওয়ায় গভীর হতবাক এবং হতাশার অনুভূতি ছিল।  ভারত যেখানে সিরিজের ২-১ এ দাঁড়িয়েছিল সেখানে এই ম্যাচ খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ভারতীয় খেলোয়াড়দের অনিচ্ছুক হওয়ার পর, ইসিবি এবং বিসিসিআই-এর কর্মকর্তারা সারারাত ধরে আলোচনায় বসে ছিলেন। নানা পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে পথ খোঁজার চেষ্টা চলছিল। ইসিবি তাদের নিরাপত্তা ও তাদের রক্ষার্থে সবরকম আশ্বাস দিয়েছিল। তবে খেলোয়াড়দের তরফ থেকে কোন সমাধান সূত্র আসছিল না। এই যুক্তিকে সামনে রেখে আথার্টন বোঝাতে চাইছিলেন যে আধুনিক ক্রিকেটে খেলোয়াড়রা অনেক বেশি প্রভাব বিস্তার। কারণ তাদের শক্তি বা ক্ষমতা অনেক বেশি। এর আগে কখনও খেলোয়াড়দের এমন শক্তি দেখা যায়নি।

বন্ধ করুন