বাংলা নিউজ > ময়দান > ‘তিনি সর্বকালের সেরা ফাস্ট বোলারদের একজন;’ শ্রীনাথের বিশেষ সার্টিফিকেট পেলেন বুমরাহ
শ্রীনাথের বিশেষ সার্টিফিকেট পেলেন বুমরাহ (ছবি:পিটিআই)

‘তিনি সর্বকালের সেরা ফাস্ট বোলারদের একজন;’ শ্রীনাথের বিশেষ সার্টিফিকেট পেলেন বুমরাহ

  • জসপ্রীত বুমরাহের প্রশংসার বহু কিংবদন্তিই এগিয়ে এসেছেন। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হল ভারতের প্রাক্তন পেসার জাভগাল শ্রীনাথের নাম। বুমরাহকে একজন শীর্ষ-শ্রেণীর বোলারের আক্ষা দিয়েছেন শ্রীনাথ।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের তারকা বোলার জসপ্রীত বুমরাহ এখন থেকেই শ্রেষ্ঠত্বের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হতে শুরু করেছেন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সেঞ্চুরিয়ন টেস্টে এই পেসার খুব বেশি উইকেট নেননি কিন্তু চতুর্থ দিনের শেষের দিকে তার স্পেল তাকে ম্যাচের নায়ক করে তোলে। তিনি সারা রাসি ভ্যান ডার দাসেনের

অনেকেই বুমরাহকে তর্কাতীতভাবে ক্রিকেটের অল ফর্ম্যাটে বিশ্বের সেরা বোলার হিসাবে মনে করেন। ওয়ানডে হোক বা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট, তিনি সবসময়ই লাইমলাইটে থাকেন। আর টেস্টে বুমরাহ তৈরি করেছেন আলাদা পরিচয়। বুমরাহের প্রশংসার বহু কিংবদন্তিই এগিয়ে এসেছেন। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হল ভারতের প্রাক্তন পেসার জাভগাল শ্রীনাথের নাম। বুমরাহকে একজন শীর্ষ-শ্রেণীর বোলারের আক্ষা দিয়েছেন শ্রীনাথ। ১৪০ কিমি প্রতি ঘণ্টা গতিতে ধারাবাহিকভাবে ডেলিভারি করার জন্য শ্রীনাথ মনে করেন বুমরাহ সর্বকালের সেরা ফাস্ট বোলারদের একজন।

শ্রীনাথ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেছেন, ‘আমি যে সমস্ত ভারতীয় ফাস্ট বোলারদের দেখেছি এবং খেলেছি, আমি তাদের মধ্যে বুমরাহকেই সবার উপরে রাখব। অবশ্যই আমার থেকে এগিয়ে। বিশ্ব ক্রিকেটে একজন শীর্ষ-শ্রেণীর বোলার, তিনি যে কোনও হল অফ ফেমে থাকার মতো যথেষ্ট ভালো পারফর্ম করেছেন। ইনসুইঙ্গার, স্ট্রেইটনার, লেগ কাটার, বাউন্সার, ইয়র্কার, স্লো কাটার –সবকিছুই তার কাছে রয়েছে। তাকে বোলিং করতে দেখে সত্যিই আনন্দ হয়।’

২০২১ সালে, বুমরাহ কিংবদন্তি কপিল দেবকে টপকে গেছেন। ১০০ টেস্ট উইকেট পূর্ণ করার জন্য ভারতের দ্রুততম বোলার হয়েছেন বুমরাহ। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে পাঁচ উইকেট নিয়েছিলেন বুমরাহ। ২৮ বছর বয়সী এই ফাস্ট বোলার বিদেশে ১০০ উইকেট পূর্ণ করেছেন। ফাস্ট বোলার হিসেবে অনেক দক্ষতা ও গুণাবলীর অধিকারী বুমরাহের প্রশংসা করেছেন অনেকেই তবে শ্রীনাথের প্রশংসা একটু বিশেষ। শ্রীনাথ বলেছে, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজে তাকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারের মতো দেখায়, দক্ষিণ আফ্রিকায় সে দক্ষিণ আফ্রিকার মতো কাজ করে। অস্ট্রেলিয়া বা ইংল্যান্ডেও একই ঘটনা ঘটান। তাকে দেখে মনে হচ্ছে তিনি বছরের পর বছর ধরে সেই দেশে আছেন। ঘরোয়া বোলারের মতো।’

বন্ধ করুন