বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > ‘জেহাদি মানসিকতা’, ইউনিসের ধর্মান্ধের মতো মন্তব্যে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ প্রসাদের
ইউনিসের উপর ক্ষোভ উগড়ে দিলেন ভেঙ্কটেশ প্রসাদ।
ইউনিসের উপর ক্ষোভ উগড়ে দিলেন ভেঙ্কটেশ প্রসাদ।

‘জেহাদি মানসিকতা’, ইউনিসের ধর্মান্ধের মতো মন্তব্যে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ প্রসাদের

  • রবিবার দুবাইয়ে ভারত-পাক ম্যাচের মাঝেই নমাজ পড়তে দেখা গিয়েছিল মহম্মদ রিজওয়ানকে। পাক উইকেটকিপারের মাঠে নমাজ পড়ার ভিডিয়োটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। সেই প্রসঙ্গে ওয়াকার বলেন, মাঠে হিন্দুদের মাঝে রিজওয়ানের নমাজ পড়া তাঁকে সব থেকে বেশি খুশি করেছে।

হিন্দুদের মাঝে নামাজ পড়া নিয়ে ওয়াকার ইউনিসের মন্তব্যে বিতর্কের ঝড় বয়ে চলেছে। পাক কিংবদন্তির ধর্মান্ধের মতো মন্তব্যে হতবাক ক্রিকেট মহল। তাঁকে নিয়ে তীব্র সমালোচনা চলছে। পরিস্থিতি খারাপ বুঝে ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছেন ওয়াকার ইউনিস। তবু বিতর্ক যেন কিছুতেই থামছে না। ভেঙ্কটেশ প্রসাদ যেমন টুইট করে এর তীব্র সমালোচনা করেছেন।

টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘লজ্জাজনক’। এর সঙ্গেই আরও একটি টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘খেলাধূলার মাঝে জেহাদি মানসিকতাকেই অন্য পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কী নির্লজ্জ মানুষ।’

রবিবার দুবাইয়ে ভারত-পাক ম্যাচের মাঝেই নমাজ পড়তে দেখা গিয়েছিল মহম্মদ রিজওয়ানকে। পাক উইকেটকিপারের মাঠে নমাজ পড়ার ভিডিয়োটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। ভারতের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপে পাকিস্তানের প্রথম জয় নিয়ে সোমবার এক সংবাদমাধ্যমে কথা বলছিলেন ওয়াকার ইউনিস এবং শোয়েব আখতার। সেই অনুষ্ঠানে ওয়াকার জানান, মাঠে হিন্দুদের মাঝে রিজওয়ানের নমাজ পড়া তাঁকে সব থেকে বেশি খুশি করেছে।

আর তাঁর এই মন্তব্যে রীতিমতো চটেছে ভারতীয়রা। যদিও নিজের মন্তব্যের জন্য সোশ্যাল মিডিয়াতে সকলের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিজের ভুল শোধরাতে চেয়েছেন ওয়াকার। তাঁর মতে খেলার মাঠে ধর্মকে টেনে এনে তিনি ভুল করেছেন। মঙ্গলবার গভীর রাতে নাকি নিজের ভুল বুঝতে পারেন ওয়াকার। এদিন তিনি নিজের টুইটারে লেখেন, ‘মুহূর্তের ভুলে একটা মন্তব্য করে ফেলেছি। কিন্তু তাতে কারও ভাবাবেগে আঘাত দিতে চাইনি। এই অনিচ্ছাকৃত ভুলের জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী। জাতি-ধর্ম-বর্ণের উর্ধ্বে গিয়ে খেলার জগৎ সকলকে এক সুতোয় বাঁধে।’

বন্ধ করুন