বাড়ি > ময়দান > আইপিএল ২০২০ > IPL 2020: মানকাডিং রুখতে মুরলীর দাওয়াই কী, জানতে পড়ুন
সানরাইজার্স শিবিরে মুরলিধরন। ছবি- আইপিএল।
সানরাইজার্স শিবিরে মুরলিধরন। ছবি- আইপিএল।

IPL 2020: মানকাডিং রুখতে মুরলীর দাওয়াই কী, জানতে পড়ুন

  • হোম অ্যাডভান্টেজ থেকে বঞ্চিত হবে সানরাইজার্স, ধারণা কিংবদন্তি স্পিনারের।

শুভব্রত মুখার্জি

বিশ্ব ক্রিকেটের স্পিন বোলিং ইতিহাস যদি ঘাঁটা হয়, তাহলে নিঃসন্দেহে তিনি হলেন অন্যতম শ্রেষ্ঠ স্পিনার। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সর্বাধিক উইকেট সংগ্রাহক মুথাইয়া মুরলীধরন। ক্রিকেটের সঙ্গে তার আত্মার যোগাযোগ। তাই ক্রিকেট থেকে তাকে দূরে সরিয়ে রাখা খুব শক্ত কাজ।

বর্তমানে তিনি মরু শহরে আছেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদ দলের বোলিং পরামর্শদাতা হিসেবে। কঠোর অনুশীলনে ব্যস্ত হায়দরাবাদ দল। নেটে নেট বোলার না থাকলে নিজেই ব্যাটসম্যানকে বল করে অনুশীলন করাচ্ছেন।

আরব দেশে অনুশীলনে ব্যস্ত মুরলীধরন এক ভিডিও কনফারেন্সে জানান ‘দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে খেলতে স্বাভাবিকভাবেই একটা মোটিভেশনের অভাব হয়। হায়দরাবাদ হোম সাপোর্টকে কাজে লাগিয়ে বরাবর ভাল ফল করেছে। এবার সেই সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবে। আমিরশাহির পিচ অনুযায়ী আমাদের দলে রশিদ খান এবং মহম্মদ নবির মতন স্পিনারের উপস্থিতি অবশ্যই আমাদের স্বস্তি দেবে। এছাড়া ও শাহবাজ নাদিম, সঞ্জয় যাদব, অভিষেক শর্মা আমাদের স্পিন বিভাগের বড় স্বস্তি।'

তিনি আর ও বলেন ‘ভারতীয় মিডিয়ার একটা ধারণা রয়েছে, টি-২০তে লেগ স্পিনের তুলনায় অফ স্পিনাররা কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। কিন্তু আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি লেগ স্পিনারদের ভূমিকা অনেক বেশি। ভারতের জাতিয় দল থেকে অশ্বিনের বাদ পড়া এবং চাহার, কুলদীপের অন্তর্ভুক্তি এর সবচেয়ে বড় প্রমান।’

ইতিমধ্যেই অশ্বিনকে দিল্লি দলের কোচ রিকি পন্টিং মানকাডিংয়ের বিরুদ্ধে তাঁর কড়া অবস্থান জানিয়ে দিয়েছেন। সেই মানকাডিং ইস্যু নিয়ে বলতে গিয়ে মুরলী জানান ‘বোলাররা যদি ব্যাটসম্যানকে আউট করার আনফেয়ার অ্যাডভান্টেজ না পায় তাহলে ব্যাটসম্যানরা ও যেন বোলার বল করার আগেই ক্রিজ ছেড়ে এগিয়ে যাওয়ার অহেতুক সময় না পায়, এরকম আইন করতেই হবে। আমি মনে করি ব্যাটসম্যানকে প্রথমে সতর্ক করা উচিত ,তারপর ও না মানলে তাঁকে আউট দেওয়ার বদলে তাঁর দলের স্কোর থেকে ৫ রান মাইনাস করা উচিত।’

বন্ধ করুন