বাংলা নিউজ > ময়দান > ব্রডকে ‘সমকামী’ বলা টুইট মুছে ফেলেও বিতর্ক থেকে রেহাই পাচ্ছেন না অ্যান্ডারসন
ব্রডকে সমকামী বলেছিলেন অ্যান্ডারসন।
ব্রডকে সমকামী বলেছিলেন অ্যান্ডারসন।

ব্রডকে ‘সমকামী’ বলা টুইট মুছে ফেলেও বিতর্ক থেকে রেহাই পাচ্ছেন না অ্যান্ডারসন

  • প্রায় ৮ বছর আগে রবিনসনের করা একাধিক বর্ণবিদ্বেষ এবং লিঙ্গ বৈষম্যমূলক মন্তব্যের জেরে, সমস্ত ধরনের ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত হতে হয়েছে তাঁকে। এ বার নতুন বিতর্কে অ্যান্ডারসন।

অলি রবিনসনের পর এ বার বিতর্কে জড়িয়েছেন আর এক ব্রিটিশ ক্রিকেটার জেমস অ্যান্ডারসন। তাঁর ১১ বছর আগে করা একটি টুইট নিয়েই নতুন করে বিতর্ক শুরু হয়েছে। যার জেরে সেই টুইটটি মুছে দিতে বাধ্য হয়েছেন অ্যান্ডারসন। তাতেও বিতর্ক পিছন ছাড়ছে না। এমন কী ছিল অ্যান্ডারসনের সেই টুইটে?

২০১০ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি একটি টুইটে অ্যান্ডারসন লিখেছিলেন, ‘ব্রডের নতুন হেয়ারকাট প্রথম বার দেখলাম। এটা সম্পর্কে নিশ্চিত নই। তবে ওকে ১৫ বছরের সমকামী বলে মনে হচ্ছে।’ দলের সতীর্থ স্টুয়ার্ড ব্রডকে ‘সমকামী’ বলে মন্তব্য করা অ্যান্ডারসনের টুইটটি নতুন করে ভাইরাল হয়েছে। বিশেষত অলি রবিনসন বিতর্কের পর সেটা নিয়ে রীতিমতো জলঘোলা শুরু হয়েছে।

প্রায় আট বছর আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় রবিনসনের করা একাধিক বর্ণবিদ্বেষ এবং লিঙ্গ বৈষম্যমূলক মন্তব্যের জেরে, তাঁকে সমস্ত ধরনের ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত করেছে ইংল্যান্ড এন্ড ক্রিকেট ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। এই ঘটনার পরেই অ্যান্ডারসনের করা ১১ বছর আগের টুইটটি ফের আলোড়নের কেন্দ্রবিন্দুতে। বিষয়টি অন্যদিকে মোড় নিচ্ছে বুঝতে পেরেই তড়িঘড়ি সেই টুইট মুছে ফেলেন ইংল্যান্ডের তারকা বোলার।

বিশ্বের অন্যতম সেরা বোলার অ্যান্ডারসন এবং ব্রড জুটি ইংল্যান্ডকে বহু ম্যাচে সাফল্য এনে দিয়েছে। তবে অ্যান্ডারসনের করা ‘সমকামী’ মন্তব্য নিয়ে বিতর্ক শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই নিজের হয়ে সাফাই গাইতে শুরু করেছেন ব্রিটিশ তারকা বোলার। তাঁর দাবী, ১১ বছরে তিনি নাকি পুরো বদলে গিয়েছেন। এখন তিনি একেবারে আলাদা মানুষ। 

একটি সাক্ষাৎকারে অ্যান্ডারসন বলেওছেন, ‘এগুলি এমনই বিষয়, যা অবশ্যই (ঐতিহাসিক সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট) দেখতে হবে। তবে আমরা যদি প্রকৃত শিক্ষিত হই, তবে এই টুইটগুলি নিয়ে এত জলঘোলা হয় না। এটি ১০-১১ বছর আগের একটি ঘটনা। সেই সময়ের থেকে এখন আমি পুরো পরিবর্তিত একটি মানুষ। তবে এটাই সমস্যা জীবনের সবটা বদলে যায়। কিন্তু ভুলগুলো থেকে যায়।’

টুইট মুছে ফেলেও এর থেকে সহজে মুক্তি পাচ্ছেন না অ্যান্ডারসন। তাঁর ‘সমকামী’ মন্তব্য নিয়ে বিতর্ক এখনও বন্ধ হয়নি। অলি রবিসনরে শাস্তির পর স্বাভাবিক ভাবেই আরও চাপে পড়ে গিয়েছেন ইংল্যান্ডের তারকা বোলার।

বন্ধ করুন