বাংলা নিউজ > ময়দান > টোকিও অলিম্পিক্স > 'আমার দিন ছিল না, রবিবার আবার চেষ্টা করব', ভারতকে পদক দেওয়ার ভরসা জোগালেন সিন্ধু
হারের পর হতাশ পি ভি সিন্ধু। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
হারের পর হতাশ পি ভি সিন্ধু। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

'আমার দিন ছিল না, রবিবার আবার চেষ্টা করব', ভারতকে পদক দেওয়ার ভরসা জোগালেন সিন্ধু

  • নিজেকে নিংড়ে দিয়েছিলেন। এক মুহূর্তের জন্যও লড়াই থামাননি। তারপরও মহিলা সিঙ্গলসের সেমিফাইনালে হেরে গিয়েছেন।

নিজেকে নিংড়ে দিয়েছিলেন। এক মুহূর্তের জন্যও লড়াই থামাননি। তারপরও মহিলা সিঙ্গলসের সেমিফাইনালে হেরে গিয়েছেন। স্বভাবতই বিধ্বস্ত পি ভি সিন্ধু। তারইমধ্যে দেশকে একটি পদক এনে দেওয়ার জন্য পুরো চেষ্টা করবেন বলে জানালেন ভারতীয় তারকা।

শনিবার মুসাশিনো ফরেস্ট স্পোর্টস প্লাজায় তাই জু-ইঙের বিরুদ্ধে ৪০ মিনিটের লড়াইয়ের পর সিন্ধু বলেন, দিনটা আমার ছিল না। 'ফাইনালে যেতে পারিনি বলে দুঃখ হচ্ছে।' সেই দুঃখের মধ্যে ব্রোঞ্জ পদক ম্যাচের জন্য নিজেকে মানসিকভাবে তৈরি করছেন ভারতীয় শাটলার। তিনি বলেন, ‘আমি নিশ্চিত যে ভারতের বহু মানুষ আমায় সমর্থন করেছেন। তাঁদের ভালোবাসা উজাড় করে দিয়েছেন। এটা আমার দিন ছিল না। কিন্তু আগামিকাল (রবিবার) আমি আবার চেষ্টা করব।’

(টোকিও অলিম্পিক্স ২০২০-এর যাবতীয় খবর, আপডেটের জন্য চোখ রাখুন -- এখানে)

অলিম্পিক্সে ইতিহাসে দারুণ নজিরের সামনে দাঁড়িয়েছিলেন সিন্ধু। তৃতীয় শাটলার হিসেবে পরপর দুটি অলিম্পিক্সের ফাইনালে ওঠার সুযোগ ছিল। শনিবার চিনা তাইপের প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে শুরুটাও দারুণ করেছিলেন। বেশিরভাগ সময় এগিয়ে থাকা সত্ত্বেও প্রথম গেমে জিতে যান তাই। তারপরও লড়াই ছাড়েননি সিন্ধু। কিন্তু তাই অসামান্য ফর্মে ছিলেন তাই। শেষপর্যন্ত ২১-১৮, ২১-১২ জিতে ফাইনালে উঠে যান। সিন্ধুর স্বপ্নভঙ্গ হলেও এখনও ভারতীয় শাটলারের পদক জয়ের সম্ভাবনা আছে। 

রবিবার চিনা শাটলার হে বিং জিয়া বিরুদ্ধে ব্রোঞ্জ পদকের ম্যাচে নামবেন সিন্ধু। সেই ম্যাচ জিতলে দ্বিতীয় ভারতীয় অ্যাথলিট হিসেবে দুটি অলিম্পিক্সে পদক জয়ের নজির গড়বেন। যিনি ২০১৬ সালের রিও অলিম্পিক্সে রুপো জিতেছিলেন। যে কাজটা ২০০৮ সালের বেজিং এবং ২০১২ সালের লন্ডন অলিম্পিক্সে পরপর পদক জিতেছিলেন সুশীল কুমার। সেইসঙ্গে টানা তিনটি অলিম্পিক্সে ব্যাডমিন্টডন থেকে পদক জয়ের নজির গড়বে ভারত।

বন্ধ করুন