বাংলা নিউজ > ময়দান > কখনও মানুষ বাড়াবাড়ি করে ফেলে- কটুক্তি করায় মাঠ থেকে বহিষ্কৃতদের প্রসঙ্গে জনি
জনি বেয়ারস্টো ও বেন স্টোকস (ছবি:এএনআই)

কখনও মানুষ বাড়াবাড়ি করে ফেলে- কটুক্তি করায় মাঠ থেকে বহিষ্কৃতদের প্রসঙ্গে জনি

  • এই ঘটনার ফলে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বেয়ারস্টো চরম ক্ষেপে গেলেও দিন শেষে তিনি দুর্ব্যবহার করা সেই দর্শকদেরকে উদ্দেশ্যে কার্যত উপদেশ দিলেন।

শুভব্রত মুখার্জি: ক্রিকেট মাঠে ক্রিকেটারদের উদ্দেশ্যে করে মাঝে মধ্যেই গ্যালারি থেকে উড়ে আসে টিকা-টিপ্পনি। কখনও কখনও কটাক্ষ করতে ছাড়া হয় না বিপক্ষ ক্রিকেটারকে। সেরকম এক ঘটনা ঘটে গেল চলতি অ্যাসেজ সিরিজে। যেখানে তিন অজি দর্শক জনি বেয়ারস্টোকে আক্রমণ করতে গিয়ে কার্যত 'সীমারেখা' অতিক্রম করলেন। চলতি সিডনি টেস্টের তৃতীয় দিনে চা বিরতির সময় জনি বেয়ারস্টো ও বেন স্টোকসকে কটাক্ষ করেন অস্ট্রেলিয়ার তিন সমর্থক। এই ঘটনার ফলে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বেয়ারস্টো চরম ক্ষেপে গেলেও দিন শেষে তিনি দুর্ব্যবহার করা সেই দর্শকদেরকে উদ্দেশ্যে কার্যত উপদেশ দিলেন। 

সিডনি টেস্টের তৃতীয় দিনে চা বিরতির সময় জনি বেয়ারস্টো ও বেন স্টোকস কটাক্ষের শিকার হন। অ্যাসেজ সিরিজের প্রথম তিন টেস্টের মতোই চতুর্থ টেস্টেও ব্যাকফুটে রয়েছে ইংল্যান্ড। প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার করা ৪১৬ রানের জবাবে ব্যাটিং বিপর্যয়ের সম্মুখীন হয় ইংলিশরা। চা বিরতির সময় তাদের স্কোর ছিল ৪ উইকেটে ১৩৫ রান। স্টোকস ৫২ রান ও বেয়ারস্টো ৪৫ রানে অপরাজিত ছিলেন। চা বিরতিতে যাওয়ার সময় স্টোকস ও বেয়ারস্টো মাঠে থেকে সাজঘরে ফেরার সময় গ্যালারি থেকে তিন জন দর্শক দুই ইংলিশ ক্রিকেটারকে ‘মোটা’ বলে কটাক্ষ করেন। বেয়ারস্টোর চোখুমুখে তখন রাগ স্পষ্ট ধরা পড়লেও তিনি সেভাবে প্রতিক্রিয়া দেখাননি।

চা বিরতির পর ৬৬ রানে আউট হন স্টোকস। তবে বেয়ারস্টো দিন শেষেও অপরাজিত থেকে মাঠ ছেড়েছেন। দলকে ফলোঅনের হার থেকে কার্যত বাঁচিয়ে দিয়েছে তার ১০৩ রানের অপরাজিত ইনিংস । তৃতীয় দিন শেষে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ছিল ৭ উইকেটে ২৫৮ রান। তৃতীয় দিনের শেষে কটাক্ষকারীদের উদ্দেশ্যে বেয়ারস্টো জানান ‘যখন আমরা মাঠ থেকে উঠে যাচ্ছিলাম, তখন যদি তারা এটা বলতো তাহলে ভালো হতো। তাই না? দুর্ভাগ্য জনকভাবে, দিন শেষে তারা এখানে ছিল না। তারা টেস্ট ক্রিকেটের দারুণ একটা দিন মিস করে গেল। আমি একে বেশি গুরুত্ব দিতে নারাজ। গ্যালারি থেকে করা একটা গালিগালাজের অংশ মাত্র। বড় কিছু হিসেবে দেখছি না। এখানে এসেছি নিজেদের কাজটা করতে। মানুষ এসেছে খেলাটা উপভোগ করতে। কিছু কিছু সময় দুর্ভাগ্য জনক ভাবে কয়েকজন মানুষ থাকেন, যারা সীমারেখা অতিক্রম করে ফেলেন। আমাদের নিজেদেরকেই নিজেদের পাশে দাঁড়াতে হবে, তাহলেই তাদেরকে আটকানো যাবে। মানুষ সীমানা অতিক্রম করলেই তখন অবশ্যই তাদেরকে বুঝিয়ে দিতে হবে।’

বন্ধ করুন