বাংলা নিউজ > টেকটক > ইন্টারনেট পরিষেবা ব্যাহত? এক টাকাও দিতে হবে না বিল, পুজোর আগে বড় ঘোষণা
ব্রডব্যান্ড পরিষেবা ব্যাহত হয়েছে? এবার থেকে সেরকম হলে বিলে ছাড় দিতে হবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
ব্রডব্যান্ড পরিষেবা ব্যাহত হয়েছে? এবার থেকে সেরকম হলে বিলে ছাড় দিতে হবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

ইন্টারনেট পরিষেবা ব্যাহত? এক টাকাও দিতে হবে না বিল, পুজোর আগে বড় ঘোষণা

  • কোন কোন শর্ত আছে?

ব্রডব্যান্ড পরিষেবা ব্যাহত হয়েছে? এবার থেকে সেরকম হলে বিলে ছাড় দিতে হবে। ইন্টারনেট পরিষেবা প্রদানকারীদের (আইএসপি) জন্য এমনই নির্দেশিকা জারি করল বাংলাদেশের টেলি-যোগাযোগের নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

এমনিতে মাঝেমধ্যেই ব্রডব্যান্ড পরিষেবা ব্যাহত হয়। কিন্তু মাসের পুরো বিলই দিতে হয় গ্রাহকদের। যা নিয়ে গ্রাহকদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই অসন্তোষ আছে। সেই পরিস্থিতিতে নয়া নির্দেশিকা জারি করেছে টেলি-যোগাযোগের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। তাতে সাফ জানানো হয়েছে, কোনও মাসে টানা তিনদিন পরিষেবা বিচ্ছিন্ন থাকলে গ্রাহকদের থেকে এক পয়সাও নেওয়া যাবে না। টানা দু'দিন পরিষেবা ব্যাহত হলে মাসিক বিলের ২৫ শতাংশ নিতে হবে। একইভাবে টানা একদিন পরিষেবা বিচ্ছিন্ন থাকলে মাসিক বিলের অর্ধেক নিতে হবে ইন্টারনেট পরিষেবা প্রদানকারীদের।

গ্রাহকদের অভিযোগ

টেলি-যোগাযোগের নিয়ন্ত্রক সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, গ্রাহক অভিযোগ জানালে আইন মেনে দ্রুত পদক্ষেপ করা হবে। অভিযোগের বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য কমপক্ষে ছ'মাস সংরক্ষণ করতে হবে গ্রাহকদের তথ্য। 

যদিও সেই নয়া নির্দেশিকা নিয়ে ইন্টারনেট পরিষেবা প্রদানকারীদের মধ্যে অসন্তোষ তৈরি হয়েছে। ইন্টারনেট পরিষেবা প্রদানকারীদের সংগঠন ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের তরফে জানানো হয়েছে, নয়া শর্ত পালন করে চলা অত্যন্ত কঠিন। অনেক সময় ইন্টারনেট গেটওয়ে বা এলাকাভিত্তিক কাজের জন্য ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখতে হয়। সেখানে ইন্টারনেট পরিষেবা প্রদানকারীদের কোনও হাত থাকে না। সেক্ষেত্রে কেন ইন্টারনেট পরিষেবা প্রদানকারীদের উপর কোপ নেমে আসবে?

তবে শুধু ইন্টারনেট পরিষেবা প্রদানকারী নয়, নয়া নির্দেশিকা নিয়ে প্রশ্ন আছে গ্রাহকদেরও। তাঁদের বক্তব্য, সাধারণত তো ইন্টারনেটের বিল মাসের শুরুতেই নেওয়া হয়। সেক্ষেত্রে কি অভিযোগের ভিত্তিতে টাকা ফিরিয়ে দেওয়া হবে? সেটা কীভাবে হবে, তা নিয়েও ধোঁয়াশা আছে।

বন্ধ করুন