বাংলা নিউজ > টেকটক > ভারতের QR কোড দিয়ে পেমেন্ট বাড়ছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায়, পাঁচ বছরে হবে ৬ গুণ

ভারতের QR কোড দিয়ে পেমেন্ট বাড়ছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায়, পাঁচ বছরে হবে ৬ গুণ

ডিজিটাল পেমেন্টে বাড়ছে ঝোঁক, লেনদেনের নিরিখে শীর্ষ স্থানে ভারত (Bloomberg)

২০২২ সালে ভারতে প্রায় ৮৯.৫ মিলিয়ন ডিজিটাল লেনদেন হয়েছে, এবং এই পরিসংখ্যান বলছে ভারত ডিজিটাল পেমেন্টে শীর্ষে স্থান দখল করেছে। এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ব্রাজিল। 

সম্প্রতি একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, ভারতের তৈরি কিউআর (QR) কোডের মাধ্যমে পেমেন্ট ২০২৮ সালের মধ্যে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বাজারে প্রায় ৫৯০ শতাংশের বেশি বৃদ্ধি পাবে। জুনিপার (Juniper) বলে একটি বিদেশি রিসার্চ সংস্থা একটি রিপোর্টে জানিয়েছে যে, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বাজারে কিউআর কোডের সাহায্যে পেমেন্টের পরিমাণ ২০২৩ সালের ১৩ বিলিয়ন থেকে বেড়ে ২০২৮ সালে ৯০ বিলিয়ন হবে। রিপোর্টটিতে বলা হয়েছে যে, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশের বাজারে ভারতের তৈরি কিউআর (QR) কোডের মাধ্যমে পেমেন্ট এর প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে কারণ এটির সাহায্যে যাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নেই তারাও ডিজিটাল পেমেন্ট করতে সক্ষম। কিন্তু অন্যদিকে, পশ্চিমা বাজারগুলিতে ভারতের তৈরি এই কিউআর কোডের সীমিত গ্রহণ যোগ্যতা দেখা গেছে।

(আরও পড়ুন: এবার বাণিজ্য সম্মেলনে লক্ষ্য বিদেশি লগ্নি, নয়াদিল্লিতে জোরকদমে প্রস্তুতি বৈঠক)

মাইগভইন্ডিয়া (MyGovIndia)-এর একটি তথ্য অনুসারে, ২০২২ সালে ভারতে প্রায় ৮৯.৫ মিলিয়ন ডিজিটাল লেনদেন হয়েছে, এবং এই পরিসংখ্যান বলছে ভারত ডিজিটাল পেমেন্টে শীর্ষে স্থান দখল করেছে। এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ব্রাজিল, এই দেশটির মোট লেনদেনের পরিমাণ প্রায় ২৯.৯ মিলিয়ন। ভারতের প্রতিবেশী দেশ চিন প্রায় ১৭.৬ মিলিয়ন লেনদেন করেছে ডিজিটাল পেমেন্টের সাহায্যে। এছাড়া প্রতিবেদনটিতে আরও বলা হয়েছে যে, ভারতের ইউপিআই (UPI) এবং ব্রাজিলের পিক্স সহ জাতীয় কিউআর পেমেন্ট স্কিমগুলি, ২০২৩ সালে কেনিয়া এবং বাংলাদেশের জাতীয় স্কিমগুলিতে অন্তর্ভুক্তি করা হয়েছে।

ইতিমধ্যে, ইউপিআই-এর সাহায্যে লেনদেন ২০১৮ সাল থেকে ২০২২ সালের মধ্যে বহুগুণে বৃদ্ধি পেয়েছে। আর্থিক মূল্যের দিক থেকে বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ১,৩২০ শতাংশ এবং ভলিউমের দিক থেকে বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ১,৮৪৭ শতাংশ। ২০১৮ সালে ইউপিআই-এর সাহায্যে লেনদেনের পরিমাণ ছিল প্রায় ৩৭৪.৬৩ কোটি, যেটি ২০২২ সালে বৃদ্ধি পেয়ে হয় ৭,৪০৩.৯৭ কোটি । মূল্যের দিক থেকে, ২০১৮ সালে ইউপিআই-এর মাধ্যমে লেনদেনের পরিমাণ ছিল প্রায় ৫.৮৬ লক্ষ কোটি টাকা, যা ২০২২ সালে বৃদ্ধি পেয়ে হয় ৮৩.২ লক্ষ কোটি টাকা। আগামীতে ডিজিটাল লেনদেন বৃদ্ধির যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে ভারত সহ গোটা বিশ্বেই।

টেকটক খবর

Latest News

নেপালে ভয়াবহ দুর্ঘটনার কবলে বিমান, পুড়ে ছাই ১৮ যাত্রী এবারের বাজেটে কীভাবে বদলাবে মিউচুয়াল ফান্ড বিনিয়োগ? কোন ক্ষেত্রে দিতে হবে কত কর? দেশের মানুষের সুস্বাস্থ্যের পথে বাধা এই খাবারগুলি, বলছে সমীক্ষা মুখে বড় বড় কথা,ওদিকে পাড়ার বোলারের হাতে তিন বার আউট বাবরকে তোপ দাগা প্রাক্তনী কাল সন্ধ্যার মধ্যে এই ৩ জন রেডিক্স মানুষ সুখবর পাবেন, শুধু লাভই লাভ বাঁচবে কয়েক হাজার টাকা, পেনশনভোগীদের জন্যেও বড় 'উপহার' ছিল এই বাজেটে শুভেন্দু–তপনের লড়াই বিধানসভায়, দুই বিধায়কের পরস্পর অভিযোগ উত্তপ্ত পরিবেশ আরও আকর্ষণীয় করে তোলা হল NPS-কে, চাকরিজীবীদের জন্য বড় সুবিধার ঘোষণা বাজেটে মুখ্যমন্ত্রীর বারণ অগ্রাহ্য করেও এখনই উত্তপ্ত বাংলাদেশ যেতে চাইছেন নচিকেতা! কেন? ইতালির গণ্ডোলা রাইডে ছুটির মেজাজে মেয়েকে নিয়ে রবিনা, দেখে নিন ছবি

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.