বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু চন্দননগরে, লাউড স্পিকার লাগাতেই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা
বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু। (প্রতীকী ছবি)
বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু। (প্রতীকী ছবি)

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু চন্দননগরে, লাউড স্পিকার লাগাতেই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা

  • একইসঙ্গে এলাকার ইলেকট্রিক ওয়্যারিং এবং পাখা মেরামতির কাজ করতেন তিনি।

আবার বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটল। তার জেরে শোকের ছায়া নেমে এলো হুগলি জেলায়। লাউড স্পিকার লাগাতে গিয়ে এই ঘটনা ঘটেছে বলে খবর। মহাঅষ্টমীতে এই ঘটনাটি ঘটেছে চন্দননগর কাঁটাপুকুর এলাকায়। এখানের শাওলি বটতলা দুর্গোৎসব কমিটির পুজোয় পুষ্পাঞ্জলির আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে লাউড স্পিকার লাগাতে গিয়েছিলেন শ্যামল গঙ্গোপাধ্যায় (৬১)। তখনই বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন তিনি। এবং মারা যান।

স্থানীয় সূত্রে খবর, এই শ্যামল গঙ্গোপাধ্যায় বৈদ্যুতিক সামগ্রীর ব্যবসা করতেন। সেই সূত্রেই আলো এবং সাউন্ডবক্স ভাড়া দিতেন তিনি। একইসঙ্গে এলাকার ইলেকট্রিক ওয়্যারিং এবং পাখা মেরামতির কাজ করতেন তিনি। তাই তাঁকে এই কাজে ডাকা হয়েছিল। তিনি যখন লাউড স্পিকার লাগাতে যান তখনই সেখান থেকে বিদ্যুৎ শরীরে সংযোগ হয়ে যায়।

জানা গিয়েছে, চন্দননগর কাঁটাপুকুর ডাক্তার গলির বাসিন্দা ছিলেন শ্যামল গঙ্গোপাধ্যায়। তাঁর স্ত্রী এবং এক ছেলে বর্তমান। এলাকায় মিশুকে মানুষ হিসাবে পরিচিত ছিলেন। স্থানীয় মানুষদের বাড়িতে গিয়েও তিনি কাজ করতেন। তাঁর এই আকস্মিক মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। এমনকী শিশুদের কাছে ইলেকট্রিক কাকু বলেও পরিচিত ছিলেন।

আজ পুষ্পাঞ্জলির জন্য ভিড় হয়েছিল চন্দননগরের ওই বারোয়ারি পুজোতে। সেখানে পুরোহিতের মন্ত্রোচ্চারণ সবাই যাতে শুনতে পান তার জন্যই লাউড স্পিকার লাগাচ্ছিলেন তিনি। তখনই বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

বন্ধ করুন