বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বিজেপির কথা শুনে ঝামেলা করলে গরু পেটানোর মতো পেটান: অনুব্রত
অনুব্রত মণ্ডল। ফাইল ছবি
অনুব্রত মণ্ডল। ফাইল ছবি

বিজেপির কথা শুনে ঝামেলা করলে গরু পেটানোর মতো পেটান: অনুব্রত

  • পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্রামে ফের বেলাগাম কেষ্টবাবু

ফের বেফাঁস মন্তব্য করলেন তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল। বৃহস্পতিবার পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্রামে তিনি বলেন, ‘বিজেপির কথা শুনে কেউ ঝামেলা করলে তাকে গরু পেটানো পেটান।’

বৃহস্পতিবার আউশগ্রামের হাটতলায় ছিল তৃণমূলের CAA বিরোধী সভা। সেই সভায় হাজির ছিলেন তৃণমূলের পূর্ব বর্ধমান জেলার পর্যবেক্ষক অনুব্রত মণ্ডল। সভায় স্বভাবসিদ্ধ ঢঙে ভাষণ দিতে শুরু করেন তিনি। কী ভাবে বিজেপি দেশ জুড়ে সাম্প্রদায়িকতা ছড়াচ্ছে আর কী ভাবেই বা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্প্রীতির বার্তা দিচ্ছেন তা উপস্থিত দলীয় কর্মীদের বুঝিয়ে বলেন তিনি।

এরই মধ্যে বিজেপি নিয়ে সাধারণ মানুষ ও দলীয় কর্মীদের সতর্ক করতে তাঁর মুখ থেকে বেরিয়ে পড়ে বিতর্কিত সব কথা। অনুব্রত বলেন, ‘বিজেপির কথা শুনে কেউ ঝামেলা করবেন না। কেউ যদি ঝামেলা করতে আসে তাহলে গরু পেটানোর মতো পেটান।’

একথা বলেই সম্ভবত অনুব্রতবাবুর মনে পড়ে গত সোমবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ। সেই বৈঠকে দলীয় নেতাকর্মীদের বারবার আইন হাতে তুলে নেওয়ার ব্যাপারে সতর্ক করেছিলেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে বদলে যায় অনুব্রতর সুর। বলতে শুরু করেন, ‘আমি কাউকে আইন হাতে তুলে নিতে বলছি না। ঝামেলা করলে পুলিশকে বলুন। বিডিওকে বলুন।’

ওয়াকিফহাল মহলের মতে, ভোটের সময় হুঙ্কার দিয়ে বিরোধীদের বাক্সবন্দি করে রাখতে অনুব্রতর জুড়ি নেই। সামনেই রাজ্যে পুর নির্বাচন। তার আগে সেই সুরই ধরেছেন অনুব্রত। হিংসাকে বেলাগাম করে ভোটের নামে দখলের রাজনীতিতেই অনড় তিনি। তা তাঁর দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় যতই ‘ভোটে হিংসা চাই না’ বলুন না কেন।



বন্ধ করুন