বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বিজেপির বিদ্রোহ ছড়াল পূর্ব বর্ধমানেও, ইস্তফা দিলেন যুব মোর্চার জেলা সভাপতি
পদত্যাগী BJYM নেতা শুভম নিয়োগী।

বিজেপির বিদ্রোহ ছড়াল পূর্ব বর্ধমানেও, ইস্তফা দিলেন যুব মোর্চার জেলা সভাপতি

  • শুভমের দাবি, কয়েকদিন আগে একটি সাংবাদিক সম্মেলনে বিজেপির জেলা সভাপতি অভিজিৎ তা জানিয়েছিলেন, শুভম নিয়োগিকে তার পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এবিষয়ে তাঁকে কিছু জানানো হয়নি বলে জানান শুভম।

দলের জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে স্বজনপোষণ, একনায়কতন্ত্র সহ একাধিক অভিযোগ এনে নিজের পদ থেকে পদত্যাগ করলেন বর্ধমান সদর জেলা যুব বিজেপির সভাপতি শুভম নিয়োগী। শুভমের অভিযোগ, তাঁর পদকে অপমানিত করেছেন জেলা সভাপতি। দলকে জানিয়েও কাজ হয়নি। তাই পদত্যাগ ছাড়া অন্য রাস্তা ছিল না।

শুভমের দাবি, কয়েকদিন আগে একটি সাংবাদিক সম্মেলনে বিজেপির জেলা সভাপতি অভিজিৎ তা জানিয়েছিলেন, শুভম নিয়োগিকে তার পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এবিষয়ে তাঁকে কিছু জানানো হয়নি বলে জানান শুভম। এদিন বিক্ষুব্ধ বিজেপি নেতা বলেন, ‘আমি ১৭ বছর বয়স থেকে দল করছি। আমার বিরুদ্ধে ১৪টি কেস আছে। দুবার আটাশ দিন জেল খেটেছি। ২০ বছর বয়সে জেলা যুব সভাপতির দ্বায়িত্ব পাই। সবটাই দল করতে গিয়ে। কিন্তু বর্তমান সভাপতি দলের জন্য কিছু করেননি। তিনি ভয়ে নিজের বাড়িতে বা ফ্লাটে থাকেন না। নিজের ইচ্ছেমতো জেলা কমিটি বানিয়েছেন, যেখানে গুরুত্বপূর্ণ জেলার নেতারা স্থান পাননি। অসহায় বোধ করছি। সেকারণেই জেলা যুব সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলাম’।

পদ ছাড়লেও দল ছাড়বেন না বলে জানিয়েছেন শুভমবাবু। তিনি বলেন, ‘দলের একনিষ্ঠ কর্মী হিসাবে কাজ করব। এই জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে পদে নামব।

তিনি বলেন, ‘সামনে পৌর নির্বাচন। তার আগে শহরে তৃণমূলের বিরুদ্ধে একাধিক দুর্নিতির খবর মিডিয়াতে উঠে এলেও তা নিয়ে সভাপতি কোনও আন্দোলন করছেন না। এমনকি অন্য দলগুলি দেওয়াল লিখন শুরু করলেও জেলা বিজেপি এখনও তা শুরু করতে পারেনি।

স্বজনপোষণের অভিযোগ তুলে শুভম জানান, এই জেলাতে মতুয়া সম্প্রদায়ের প্রচুর ভোট আছে। কিন্তু সেই মতুয়া সম্প্রদায়ের কাউকেই নতুন জেলা কমিটিতে রাখেননি জেলা সভাপতি। গোটা বিষয়টি সবিস্তারে রাজ্য নেতৃত্বকে জানিয়েছি। এবিষয়ে বিজেপির বর্ধমান সদর জেলা সভাপতি অভিজিৎ তা কোন রকম মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছেন।

 

বন্ধ করুন