বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আমফান ক্ষতিপূরণ:‌ আবেদন যাচাইয়ে সময় কম, চিন্তায় আধিকারিকরা
ঘুর্ণিঝড়ের হাত থেকে রক্ষা পেতে মাথা গোঁজার চেষ্টা। ছবি সৌজন্য : এপি (AP)
ঘুর্ণিঝড়ের হাত থেকে রক্ষা পেতে মাথা গোঁজার চেষ্টা। ছবি সৌজন্য : এপি (AP)

আমফান ক্ষতিপূরণ:‌ আবেদন যাচাইয়ে সময় কম, চিন্তায় আধিকারিকরা

  • আবেদনের সত্যতা যাচাই করতে মাত্র ৫ দিন সময় পাবেন সরকারি আধিকারিকদের বিশেষ দল

আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া সত্ত্বেও অনেকেই ক্ষতিপূরণের জন্য আবেদন করতে পারেনি। বা কোনও অজ্ঞাত কারণে ব্যাঙ্কে ঢোকেনি ক্ষতিপূরণের টাকা। তাঁদের কথা ভেবেই আরেক দফায় আবেদনের সুযোগ করে দিয়েছে রাজ্য সরকার। আজ বৃহস্পতিবার ও আগামীকাল শুক্রবার বিডিও এবং এসডিও–র দফতরে থাকা ড্রপ বক্সে জমা করা যাবে আবেদনপত্র। বৃহস্পতিবারই বিভিন্ন জেলার ওই দুই সরকারি দফতরে আবেদন জানানোর জন্য লম্বা লাইন পড়ে যায়।

আমফান ঝড়ের আড়াই মাস কেটে যাওয়ার পর ফের ক্ষতিপূরণ আদায় করার এই সুযোগ পাচ্ছেন ঘূর্ণিঝড়ে আংশিক বা সম্পূর্ণ বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, হুগলি, হাওড়া, নদিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর এবং পূর্ব বর্ধমানের বাসিন্দারা। কিন্তু সমস্যা দেখা দিয়েছে ক্ষতিপূরণের আবেদনের সত্যতা যাচাই নিয়ে। যার জন্য মাত্র ৫ দিন সময় পাবেন সংশ্লিষ্ট সরকারি আধিকারিকদের বিশেষ দল। যার মধ্যে ৮ অগস্ট, শনিবার লকডাউন, পরেরদিন রবিবার আর ১১ অগস্ট জন্মাষ্টমীর ছুটি।

এত অল্প সময়ের মধ্যে এলাকায় গিয়ে সব তথ্য খতিয়ে দেখার সম্ভাবনা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ৮ জেলার বিভিন্ন স্তরের প্রশাসনিক আধিকারিকরা। তাঁরা জানিয়েছেন, আবেদন যাচাইয়ের সময়সীমা (‌১২ অগস্ট)‌ বাড়ানো নিয়ে এখনও কোনও ভাবনাচিন্তা করা হয়নি। তবে এই দু’দিনে জমা পড়া আবেদনের পরিমাণ না দেখে এ ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করা যাবে না বলে জানিয়েছে রাজ্য প্রশাসনের অনেকেই।

বন্ধ করুন