বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ISF: ফুরফুরা শরিফে জরুরি বৈঠকে ISF, আরাবুলের নেতৃত্বে বৈঠক করবে তৃণমূলও

ISF: ফুরফুরা শরিফে জরুরি বৈঠকে ISF, আরাবুলের নেতৃত্বে বৈঠক করবে তৃণমূলও

নওশাদ সিদ্দিকি ও আরাবুল ইসলাম

গত কয়েক দিন ধরে অশান্তির জেরে এলাকা থমথমে। এলাকায় চলছে পুলিশের টহলদারি। স্থানীয় ভাঙড় থানা ছাড়াও তহলদারি চালাচ্ছে কাশীপুর ও কলকাতার লেদার কমপ্লেক্স থানার কর্মীরা। একাধিক জায়গা পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে।

দলের বিধায়ক জেলে। তাই পরবর্তী কর্মপন্থা ঠিক করতে সোমবার হুগলির জাঙ্গিপাড়ায় ফুরফুরা শরিফে জরুরি বৈঠক বসছে ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের নেতারা (আইএসএফ)। অন্য দিকে আরাবুলের নেতৃত্বে পৃথক বৈঠকে বসছে ভাঙড়ের তৃণমূল নেতারা।

ভাঙড়ের আইএসএফ নেতা রায়নুল হক বলেন,'দলের এক মাত্র বিধায়ক-সহ অনেক নেতা কর্মী জেলে। বহুকর্মী আতঙ্কে ঘর ছাড়া। এই পরিস্থিতিতে আগামিদিনে কর্মপন্থা কী হবে তা ঠিক করতেই এই বৈঠক।' বৈঠকে সমস্ত আইএসএফ নেতাদের উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে।

অন্য দিকে আরাবুলের নেতৃত্বে বৈঠকে বসছেন ভাঙড়ে তৃণমূল নেতৃত্বে। বৈঠকের আগে তাঁর দাবি, এলাকা শান্তিপূর্ণ। আগামী দিনে শান্তি বজায় রাখতে বৈঠকে বসেছেন তাঁরা। এই বৈঠকে স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান, পঞ্চায়েত সদস্য, কর্মাধ্যক্ষদের থাকতে বলা হয়েছে। তবে আরাবুল স্বীকার করে বেশ কিছু আইএসএফ কর্মীরা ঘর ছাড়া। তাঁর দাবি, অশান্তির আতঙ্কে তাঁরা ঘরে ফিরছেন না। তিনি এলাকায় হিংসা ছড়ানোর জন্য বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকির দিকে আঙুল তুলেছেন। আগামী ২৫ জানুয়ারি একটি শান্তি মিছিলেরও ডাক দেওয়া হয়েছে।

গত কয়েক দিন ধরে অশান্তির জেরে এলাকা থমথমে। এলাকায় চলছে পুলিশের টহলদারি। স্থানীয় ভাঙড় থানা ছাড়াও তহলদারি চালাচ্ছে কাশীপুর ও কলকাতার লেদার কমপ্লেক্স থানার কর্মীরা। একাধিক জায়গা পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে। রবিবার রাতেও পুলিশ এলাকায় তল্লাশি অভিযান চালায়। নতুন করে আর কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। তবে বাইরু

বন্ধ করুন