বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ঘরে ঘরে জ্বর হুগলিতে, কেন বাড়ছে নানা উপসর্গ? উদ্বেগের পারদ চড়ছে
ঘরে ঘরে জ্বর হুগলিতে। প্রতীকী ছবি / AFP) (AFP)
ঘরে ঘরে জ্বর হুগলিতে। প্রতীকী ছবি / AFP) (AFP)

ঘরে ঘরে জ্বর হুগলিতে, কেন বাড়ছে নানা উপসর্গ? উদ্বেগের পারদ চড়ছে

  • কোনওভাবেই যাতে দিনে বা রাতে মশা না কামড়ায় সেব্যাপারে সতর্ক থাকার জন্যও চিকিৎসকরা পরামর্শ দিয়েছেন।

করোনার আতঙ্ক পুরোপুরি যায়নি এখনও। এর মধ্যে এবার হুগলি জেলায় মশাবাহিত রোগ ম্যালেরিয়া, ডেঙ্গুকে ঘিরে উদ্বেগ ক্রমেই বাড়ছে। ঘরে ঘরে দেখা দিচ্ছে জ্বর। একই পরিবারের একাধিক সদস্য জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছেন। এমনকী ছোটদের মধ্যেও জ্বরের প্রকোপ দেখা যাচ্ছে। চিকিৎসকরা এব্যাপারে স্থানীয় বাসিন্দাদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন। কোনওভাবেই যাতে দিনে বা রাতে মশা না কামড়ায় সেব্যাপারে সতর্ক থাকার জন্যও বলা হয়েছে। উত্তরপাড়া এলাকায় একাধিক পরিবারের মধ্যে এই জ্বরের প্রকোপ দেখা দিয়েছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে।

তবে স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, বর্ষার মধ্যে মশার উৎপাতও বেড়েছে। এর সঙ্গে বর্ষায় ভিজেও অনেকের জ্বর সর্দি হচ্ছে। সব মিলিয়ে টানা জ্বরকে ঘিরে উদ্বেগটা থেকেই গিয়েছে। তবে এর পেছনে করোনা ভাইরাস কলকাঠি নাড়ছে কি না সেটা নিয়েও দুশ্চিন্তা থেকেই গিয়েছে।এদিকে উত্তরপাড়া হাসপাতালের ফিভার ক্লিনিকে সপ্তাহখানেক আগেই ৮-১০জন করে জ্বরে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল। বর্তমানে প্রায় ৩০-৩৫জন করে জ্বরে আক্রান্ত মানুষ হাসপাতালে আসছেন। 

তবে শুধু উত্তরপাড়া নয়, চন্দননগর, শ্রীরামপুরের বিভিন্ন এলাকায় অনেকে জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছেন। তবে শ্রীরামপুর ওয়ালশ হাসপাতালে জ্বরে আক্রান্তের সংখ্যা তুলনায় কম। চন্দননগর মহকুমা হাসপাতাল সূত্রে খবর, জ্বর নিয়ে অনেকেই আসছেন হাসপাতালে। পরিস্থিতির উপর নজর রাখছে স্বাস্থ্য় দফতর। চুঁচুড়া ইমামবাড়া হাসপাতালের ছবিটাই কিছুটা একই। জেলা স্বাস্থ্য দফতরের এক কর্তা জানিয়েছেন, প্রায় সমস্ত হাসপাতালেই জ্বরে আক্রান্ত অনেকেই আসছেন। একদিকে কোভিড পরিস্থিতি অন্যদিকে টানা বর্ষা, কোনওভাবেই আর জ্বরকে উপেক্ষা করা ঠিক হবে না। 

বন্ধ করুন