বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > সুন্দরীদের হারাচ্ছে সুন্দরবন! কেন্দ্রের রিপোর্টে উদ্বেগ,দক্ষিণবঙ্গে বিপদের ঘণ্টি
'আমফান'-এর ব্যাপক প্রভাব পড়ে সুন্দরবনে (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য এপি)

সুন্দরীদের হারাচ্ছে সুন্দরবন! কেন্দ্রের রিপোর্টে উদ্বেগ,দক্ষিণবঙ্গে বিপদের ঘণ্টি

  • বিশেষজ্ঞদের মতে জলে লবণের মাত্রা বেড়ে যাওয়ার জেরেই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সুন্দরী গাছ। 

বিশ্বের বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বা সুন্দরী গাছের বন এবং রয়েল বেঙ্গল টাইগারের আবাসস্থল হল সুন্দরবন। তবে সেই সুন্দরবনই আজকে হারাচ্ছে ‘সৌন্দর্য’। বৃহস্পতিবার ফরেস্ট সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, ধীরে ধীরে ঘন গাছের আবরণ হারাচ্ছে সুন্দরবন। বিশেষজ্ঞদের মতে জলে লবণের মাত্রা বেড়ে যাওয়ার জেরেই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সুন্দরী গাছগুলি। আর এর থেকেই সুন্দরবনে গাছের আবরণ পাতলা হয়ে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, বিগত কয়েক বছরে দেখা গিয়েছে যে কীভাবে পরপর ঘূর্ণিঝড় থেকে কলকাতাকে বাঁচিয়েছে সুন্দরবন। এই সুন্দরবনে গাছের আবরণ হারিয়ে গেলে তা কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলার জন্যও বিপদের ঘণ্টি বাজবে।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ইন্ডিয়া স্টেট অফ ফরেস্ট রিপোর্ট ২০২১-এ জানানো হয়েছে যে সুন্দরবনের খুব ঘন ম্যানগ্রোভ কভার দুই বর্গ কিলোমিটার সঙ্কুচিত হয়েছে। আগে সুন্দরী গাছের জঙ্গল ৯৯৬ বর্গ কিমি বিস্তৃত ছিল। তা কমে ৯৯৪ বর্গ কিমি হয়ে গিয়েছে দুই বছরে। এর আগে ২০১৭ সালে বদ্বীপটির ম্যানগ্রোভ কভার ছিল ৯৯৯ বর্গ কিলোমিটার। তার আগে ২০১১ সালে এটি ছিল ১০৩৮ বর্গ কিলোমিটার। এক দশকে সুন্দরী গাছের আবরণ ৪.২৩ শতাংশ হ্রাস হয়েছে। এই হ্রাস বেশ উদ্বেগজনক।

এই বিষয়ে পশ্চিমবঙ্গের প্রধান বন্যপ্রাণী ওয়ার্ডেন দেবল রায় বলেন, ‘খুব ঘন বনভূমি কোথায় কমে গিয়েছে তা আমাদের যাচাই করতে হবে। লবণাক্তকরণ ম্যানগ্রোভের ঘনত্ব হ্রাসের একটি কারণ। খুব মারাত্মক ঘূর্ণিঝড় আম্ফান বদ্বীপে আঘাত হানে ২০২০ সালের মে মাসে। সেই ঘূর্ণিঝড়ও অবশ্য গাছের আবরণ কমার নেপথ্যে থাকতে পারে।’

 

বন্ধ করুন