বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > চিকিৎসকদের অভাব মেটাতে 'প্র্যাকটিশনার সিস্টার' নিয়োগ, পদোন্নতির জন্য যোগ্য কারা?
চিকিৎসকদের অভাব মেটাতে 'প্র্যাকটিশনার সিস্টার' নিয়োগ। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
চিকিৎসকদের অভাব মেটাতে 'প্র্যাকটিশনার সিস্টার' নিয়োগ। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

চিকিৎসকদের অভাব মেটাতে 'প্র্যাকটিশনার সিস্টার' নিয়োগ, পদোন্নতির জন্য যোগ্য কারা?

  • এতদিন রাজ্যের চিকিৎসা ব্যবস্থায় নার্সদের জন্য 'প্র্যাকটিশনার' পদটির কোনও অস্তিত্ব ছিল না।

ভালো কাজ করলে অভিজ্ঞ নার্সদের পদোন্নতি দেওয়া হবে বলে গতকালই ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁদের প্র্যাকটিশনার সিস্টার হিসেবে নিয়োগ করা হবে। মুখ্যমন্ত্রীর কথায় যে নার্সরা অভিজ্ঞ হবেন এবং যাঁরা ভালো কাজ করবেন, তাঁদেরকে নার্স থেকে 'প্র্যাকটিশনার সিস্টার' পদে পদোন্নতি দেওয়া হবে। তাঁর মতে, অনেক সময় এই প্র্যাকটিশনার সিস্টাররা চিকিৎসকের অভাব পূরণ করতে পারতে পারেন। এই সংক্রান্ত নির্দিষ্ট নির্দেশিকা অবশ্য তৈরি করে দেবে স্বাস্থ্য দফতর।

মুখ্যমন্ত্রী গলকাল এই বিষয়ে বলেছিলেন, 'এখন থেকে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন নার্সরা যোগ্যতা অনুসারে প্র্যাকটিশনার সিস্টার পদে পদোন্নতি পেতে পারবেন। দীর্ঘ অভিজ্ঞতার ফলে কিছু নার্স অনেক সময় চিকিৎসকদের সমান চিকিসৎসা পরিষেবা দিয়ে থাকেন। এরকম নার্সদের আমরা এখন থেকে প্র্যাকটিশনার সিস্টারের পদ দেব।'

এতদিন রাজ্যের চিকিৎসা ব্যবস্থায় নার্সদের জন্য 'প্র্যাকটিশনার' পদটির কোনও অস্তিত্ব ছিল না। এতদিন শুধুমাত্র চিকিৎসকদের জন্যই ব্যবহৃত হত এই পদটি। বহু ক্ষেত্রে দক্ষ হলেও নার্সরা এতদিন মেডিক্যাল কোনও ছোট সিদ্ধান্তও নিতে পারতেন না। তাঁদের এই বিষয়ে চিকিৎসকদের নির্দেশের অপেক্ষা করে থাকতে হত। নার্সজের ক্ষেত্রে প্র্যাকটিশনার পদটি চালু হলে চিকিৎসা সংক্রান্ত অনেক সিদ্ধান্তই সিস্টাররা নিজেরা নিতে পারবেন। এদিকে মহিলাদের পাশাপাশি রাজ্য বহুদিন ধরেই পুরুষদেরও নার্স হিসাবে নিয়োগ করা হচ্ছে। এবার সেই নিয়োগ আরও বাড়ানোর হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

কিছুদিন আগেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই এসএসকেএম হাসপাতালেই স্বাস্থ্য পরিকাঠামো নিয়ে নিয়মিত বৈঠকে করবেন বলে ঘোষণা করেছিলেন। জানিয়েছিলেন, সেই বৈঠক করা হবে এসএসকেএম হাসপাতালেই। এদিন ছিল প্রথম সেই বৈঠক। পরবর্তী বৈঠক হবে ১৬ সেপ্টেম্বর। সেদিন পাঁচটি মেডিক্যাল কলেজকেই বৈঠকে ডাকবেন বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী।

বন্ধ করুন