বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > তর্পণের মঞ্চ যারা খুলেছে ক্ষমতায় এলে তাদের উর্দি খুলে নেব: রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়
বৃহস্পতিবার গন্ধেশ্বরী নদীতে তর্পণ করছেন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় 
বৃহস্পতিবার গন্ধেশ্বরী নদীতে তর্পণ করছেন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় 

তর্পণের মঞ্চ যারা খুলেছে ক্ষমতায় এলে তাদের উর্দি খুলে নেব: রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়

  • এর পর তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সুর চড়ান রাজু। বলেন, ‘বৃহস্পতিবার মহালয়া তা মুখ্যমন্ত্রীর মনে ছিল না। মনে থাকলে এদিনও লকডাউন ঘোষণা করে দিতেন উনি।

দিন কয়েক আগে ক্ষমতায় এলে পুলিশকে জুতো চাটানোর হুমকি দিয়েছিলেন তিনি। হুমকি দিয়েছিলেন থানা জ্বালিয়ে দেওয়ার। এবার সরাসরি উর্দি খুলে নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিলেন বিজেপি নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার মহালয়ায় গঙ্গার ঘাটে তর্পণ সেরে রাজুবাবু বলেন, ‘যারা তর্পণের মঞ্চ খুলেছে তাদের উর্দি খুলে নেব।’

ভোট যত এগিয়ে আসছে ততই বাড়ছে বিজেপি নেতাদের জিভের ধার। আগের থেকেই বেলাগাম বাকশক্তি সম্পন্ন নেতারা আরও বেপরোয়া হয়ে উঠছেন। তৃণমূলের বিরুদ্ধে সমস্ত ভোট বিজেপির বাক্সে জমা করতে একদিকে শাসকদলের নেতা অন্যদিকে পুলিশকে আক্রমণ করছেন তাঁরা। আর প্রায় রোজই শালীনতার মাত্রা ছাড়াচ্ছে সেই আক্রমণ। যেমনটা বৃহস্পতিবার ফের করলেন রাজু। 

বৃহস্পতিবার বাঁকুড়ায় গন্ধেশ্বরী নদীকে তর্পণ করেন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। সঙ্গে ছিলেন দলের নেতাকর্মীরা। এর পর বুধবার বাগবাজার ঘাটে বিজেপির তর্পণ কর্মসূচিতে পুলিশের বাধার সমালোচনায় মুখর হন তিনি। বলেন, ‘কাল যে পুলিশকর্মীরা তর্পণের মঞ্চ খুলিয়েছে তাদের উর্দি খোলাব।’

এর পর তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সুর চড়ান রাজু। বলেন, ‘বৃহস্পতিবার মহালয়া তা মুখ্যমন্ত্রীর মনে ছিল না। মনে থাকলে এদিনও লকডাউন ঘোষণা করে দিতেন উনি। এরাজ্যে দুর্গাপুজো করা যাবে না। তর্পণ করা যাবে না। সনাতন ধর্ম পালন করা যাবে না।’

বুধবার কলকাতার বাগবাজার ঘাটে নিহত দলীয় কর্মীদের স্মৃতিতে তর্পণের আয়োজন করেছিল বিজেপি। ঘাটের কাছে বাঁধা হয়েছিল একটি মঞ্চ। অভিযোগ মঙ্গলবার রাতে সেই মঞ্চ খোলায় পুলিশ। বুধবার ঘাটের ধারেকাছে কাউকে ঘেঁষতে দেননি পুলিশকর্মীরা। পরে পুলিশের নজর এড়িয়ে গোলাবাড়ি ঘাটে তর্পণ সারেন বিজেপির নেতাকর্মীরা।

 

বন্ধ করুন