বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > NRS Hospital: ভুল পদ্ধতিতে কেমো! হাতের মাংসপেশি গলে হাড় বেরিয়ে গেল ২ মহিলার, কাঠগড়ায় NRS

NRS Hospital: ভুল পদ্ধতিতে কেমো! হাতের মাংসপেশি গলে হাড় বেরিয়ে গেল ২ মহিলার, কাঠগড়ায় NRS

এনআরএস হাসপাতাল (ছবি সৌজন্যে সোশ্যাল মিডিয়া)

টিটাগড়ের বাসিন্দা সাবিনা খাতুন এবং কৃষ্ণনগরের বাসিন্দা গীতা বিশ্বাস দুজনেই হাসপাতালের রেডিওলজি বিভাগে ভর্তি হয়েছিলেন গত ১৭ মার্চ। ক্যানসার আক্রান্ত হওয়ায় তাঁরা দুজনেই কেমোর জন্য ভর্তি হয়েছিলেন। গীতা বিশ্বাসের অভিযোগ, কেমোর জন্য তাঁর হাতে চ্যানেল করা হয়েছিল।

ভুল চিকিৎসার অভিযোগে ফের কাঠগড়ায় রাজ্যের অন্যতম একটি বড় সরকারি হাসপাতাল। স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত দুই মহিলার শিরার বদলে মাংসপেশিতে কেমো দেওয়ার অভিযোগ উঠল। আর তার ফলে হাতের মাংসপেশি গলে বেরিয়ে গেল হাড়! এমনই অভিযোগ উঠেছে এনআরএস হাসপাতালের বিরুদ্ধে। ওই দুই মহিলার নাম সাবিনা খাতুন এবং গীতা বিশ্বাস। তাঁদের আরও অভিযোগ, শিক্ষানবিশ স্বাস্থ্যকর্মীদের দিয়ে কেমো দেওয়ার ফলে এই সমস্যা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, টিটাগরের বাসিন্দা সাবিনা খাতুন এবং কৃষ্ণনগরের বাসিন্দা গীতা বিশ্বাস দুজনেই হাসপাতালের রেডিওলজি বিভাগে ভর্তি হয়েছিলেন গত ১৭ মার্চ। ক্যানসার আক্রান্ত হওয়ায় তাঁরা দুজনেই কেমোর জন্য ভর্তি হয়েছিলেন। গীতা বিশ্বাসের অভিযোগ, কেমোর জন্য তাঁর হাতে চ্যানেল করা হয়েছিল। কিন্তু, শিরার বদলে চলে যায় মাংসপেশিতে কেমো। তাঁর অভিযোগ, যাঁরা শিক্ষানবিস তাঁদের দিয়েই কেমো দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, কেমো দেওয়ার সময় চিকিৎসক নিজেই নাকি শিক্ষানবিশদের শেখাচ্ছিলেন যে 'ভুল হলে মাংস পচে যাবে।’ আর তেমনটাই হয়েছে এই দুই মহিলার ক্ষেত্রে। এত বড় হাসপাতালে কীভাবে এই ভুল হল তাই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন দুজনেই। মাংস পচে হাড় বেরিয়ে যাওয়ায় এখন যন্ত্রণায় ছটফট করছেন দুই মহিলা। এই অবস্থায় কার কাছে ক্ষতিপূরণ চাইবেন? কার কাছেই বা অভিযোগ জানাবেন? তা বুঝে উঠতে পারছেন না দুই মহিলার পরিবারের সদস্যরা। এখন তাঁরা চাইছেন, কোনওভাবে যাতে হাতের হাড় ঢাকা সম্ভব হয়, হাসপাতাল তার ব্যবস্থা করে দিক।

যদিও এ বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তবে পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে কর্তৃপক্ষ। ক্যানসার বিশেষজ্ঞের মতে, যারা জানেন তাঁদের দিয়ে এই ধরনের কাজ করানো উচিত। আর না হলে ভয়ংকর ঘটনা ঘটবে।। এই বিষয়টি অবশ্য জানা নেই তৃণমূল সাংসদ তথা চিকিৎসক শান্তনু সেনের। তিনি বলেন, ‘মেডিক্যাল কলেজে কেউ শিক্ষানবিশ নন, সকলেই পোস্ট গ্রাজুয়েট। তারা সকলেই ট্রেনিং। তারাই কেমো দিয়ে থাকেন। তবে যে অভিযোগ উঠেছে সে বিষয়ে আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখছি।’ প্রয়োজনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বাংলার মুখ খবর
বন্ধ করুন

Latest News

প্রথম ধারাবাহিকেই ঘনিষ্ট দৃশ্য, দুর্জয়ের ঠোঁটে চুমু খাওয়া নিয়ে কী বললেন রানি এমনিতেই ইংরেজিতে কুপোকাত! নবাব বাড়ির সোহাকে বিয়ে করতে বেহাল হন কুণাল, কী হয়েছিল বৃহস্পতির পর শুক্রবার, আরও এক শাহজাহান ঘনিষ্ঠের বিরুদ্ধে জ্বলল ক্ষোভের আগুন মাঘী পূর্ণিমা ২০২৪ সালে কখন পড়ছে, তিথি কতক্ষণ থাকবে? ১২০ বছর পর কী ঘটবে? সন্দেশখালির পরিস্থিতি বুঝতে জেলাশাসক ও পুলিশকর্তাদের সঙ্গে তড়ঘড়ি কমিশনের বৈঠক ভোটের আগে বাড়বে বেতন! ডিএ-র পাশাপাশি সরকারি কর্মীদেরা পাবেন আরও 'উপহার'? শাহজাহানকে এনকাউন্টার করে দিতে পারে ওরা, উদ্বিগ্ন সিপিএম নেতা সেলিম মেট্রোয় করে গঙ্গার নীচ দিয়ে যাবেন মোদী? গেল প্রস্তাব, ১ ঘণ্টায় ৩ লাইনের সূচনা? প্রথম অর্ধে কিপিং করবেন না পন্ত, নরকিয়ার ফিটনেস নিয়ে বড় আপডেট দিলেন DC কর্ণধার দিদি নম্বর ওয়ানে এসে ধামসা বাজালেন মমতা, নাচলেন রচনা-ডোনার হাত ধরে

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.