বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‌দীপাবলিতে কী বাজি পোড়ানো যাবে, আদালতে উঠল মামলা
 কলকাতা হাই কোর্ট
 কলকাতা হাই কোর্ট

‌দীপাবলিতে কী বাজি পোড়ানো যাবে, আদালতে উঠল মামলা

  • শুক্রবার বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হবে।

দীপাবলিতে বাজি ফাটানো বন্ধ হোক, এই আবেদন জানিয়ে এবার হাই কোর্টে দায়ের করা হল মামলা। আগামী শুক্রবার এই মামলার শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। করোনা আবহে আদালত কী রায় দেয়, এখন সেটাই দেখার।

দীপাবলিতে বাজি ফাটানো বন্ধের আবেদন জানিয়ে হাই কোর্টে মামলা দায়ের করেন রোশনি আলি নামে সমাজকর্মী। আদালতের কাছে মামলাকারীর আবেদন, রাজ্যে এখন করোনা সংক্রমণ উর্ধমুখী। ফলে বাজি পোড়ানো এবারেও বন্ধ রাখা হোক। করোনা আক্রান্তদের যাতে কোনও সমস্যা না হয়, সেকথা ভেবেই আদালতের কাছে এই আবেদন জানানো হচ্ছে। ২০২০ সালের নির্দেশকেই ফের কার্যকর করুক আদালত। প্রসঙ্গত, গত বছর করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে রাজ্যে সবরকমের আতসবাজি পোড়ানো বন্ধ করেছিল কলকাতা হাই কোর্ট। প্রথমে হাই কোর্টের তরফে এই মামলার শুনানির দিন আগামী ১৫ নভেম্বর ধার্য করা হয়। যেহেতু কালীপুজো আগামী ৪ নভেম্বর, তাই শুনানির দিন এগিয়ে আনার আবেদন জানানো হয় আদালতের কাছে। শুক্রবার বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হবে।

করোনা বিধি মেনে এবারে দুর্গাপুজোর অনুমতি দিয়েছিল রাজ্য সরকার। তবে করোনা আবহের মধ্যেও রাস্তায় মানুষের ঢলকে আটকানো যায়নি। পুজো মিটে যাওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন জেলায় করোনা সংক্রমণের হার বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে বাজি পোড়ানোর অনুমতি দেওয়া হলে তা ঝুঁকিপূর্ণ সিদ্ধান্ত বলেই মনে করছেন অনেকে। এদিকে এদিন রাজ্যের মুখ্য সচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে সারা বাংলা আতসবাজি উন্নয়ন সমিতির বৈঠক হয়। সেখানেই সিদ্ধান্ত হয়, সিঁথির মোড়ের সার্কাস ময়দানে আতসবাজির মেলা হবে। আতসবাজি উন্নয়ন সমিতির চেয়ারম্যান বাবলা রায় জানান, বাংলার ঐতিহ্য এই মেলার সঙ্গে জড়িয়ে আছে। সেইকারণে এই মেলাটা আমরা বন্ধ করতে চাইনি।

 

বন্ধ করুন