বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > নিখরচায় পিআর করেছে বিজেপি, আরএসএস:‌ স্লোগান বিতর্কে মমতার পাশে সিপিএম, কংগ্রেস
মহম্মদ সেলিম, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও প্রদীপ ভট্টাচার্য। ফাইল ছবি
মহম্মদ সেলিম, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও প্রদীপ ভট্টাচার্য। ফাইল ছবি

নিখরচায় পিআর করেছে বিজেপি, আরএসএস:‌ স্লোগান বিতর্কে মমতার পাশে সিপিএম, কংগ্রেস

  • মহম্মদ সেলিম বলেন, ‘‌এই ধর্মীয় স্লোগান দিয়ে সরকারি খরচায় বিজেপি ও আরএসএস তাদের পিআর বা জনসংযোগ কর্মসূচি করেছে।’‌

স্লোগান বিতর্কে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে দাঁড়াল রাজ্যের বিরোধী দল সিপিএম ও কংগ্রেস। শনিবার নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর ১২৫তম জন্মদিবস উপলক্ষে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল হলে ‘‌পরাক্রম দিবস’‌ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল কেন্দ্রের সংস্কৃতি মন্ত্রকের তরফে। উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রহ্লাদ সিং প্যাটেল, বাবুল সুপ্রিয়রা। আর সেই সরকারি অনুষ্ঠানমঞ্চে মমতার নাম নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ওঠে ‘‌জয় শ্রী রাম’‌ স্লোগান। বক্তৃতা না রেখে এর প্রতিবাদ জানান মুখ্যমন্ত্রী। আর তাঁর এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সিপিএম নেতা মহম্মদ সেলিম ও কংগ্রেস নেতা প্রদীপ ভট্টাচার্য।

এদিন মহম্মদ সেলিম বলেন, ‘‌এই ধর্মীয় স্লোগান দিয়ে সরকারি খরচায় বিজেপি ও আরএসএস তাদের পিআর বা জনসংযোগ কর্মসূচি করেছে। মুখ্যমন্ত্রী বলতে গেলেই ‘‌জয় শ্রী রাম’‌ বলেছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী যখন বক্তব্য শুরু করলেন তিনবার ‘‌জয় হিন্দ’‌ বললেন।’‌

একইসঙ্গে এদিন মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষও করেছেন মহম্মদ সেলিম। মুখ্যমন্ত্রী এদিনের মঞ্চ থেকে প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছিলেন, ‘‌আমার মনে হয়, সরকারি অনুষ্ঠানের একটা আলাদাই মর্যাদা, সম্ভ্রম থাকে। এটা সরকারি অনুষ্ঠান। কোনও রাজনৈতিক দলের সভা নয়।’‌ সেই মন্তব্য তুলে ধরে এদিন সিপিএম নেতা বলেন, ‘‌‌মুখ্যমন্ত্রীর মুখে প্রথম শুনলাম যে সরকারি কর্মসূচিকে দলীয় কর্মসূচিতে রূপান্তর করা উচিত নয়। শুনে ভাল লাগল। আশা করব, যতদিন ক্ষমতায় আছেন তিনি সরকারি কর্মসূচিকে দলীয় কর্মসূচিতে রূপান্তরিত করবেন না।’‌

এদিকে গোটা ঘটনায় কংগ্রেসের বর্ষীয়ান নেতা প্রদীপ ভট্টাচার্যর প্রতিক্রিয়া, ‘‌এ ধরণের সরকারি অনুষ্ঠানে কোনও ধর্মীয় স্লোগান দেওয়া উচিত নয়। তার কারণ, ধর্মীয় স্লোগান যদি দিতেই হয় তা হলে ভজনের শেষে পাড়ায় দেওয়া হোক। মিটিং, মিছিলে এই স্লোগান দেওয়া হোক। তাতে কেউ আপত্তি করবে না। কিন্তু সরকারি অনুষ্ঠানে একটা শৃঙ্খলা বজায় রাখতে হয়। বিজেপি সেটা কেন ভাঙবে?‌ যেখানে প্রধানমন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রী–সহ অন্যরা মঞ্চে রয়েছেন সেখানে এই কাজ করা একেবারে উচিত হয়নি। সুতরাং আমি মনে করি যাঁরা এই কাজ করেছেন অত্যন্ত ভুল করেছেন। সজ্ঞানে সরকারি পদ্ধতিকে লঙ্ঘন করেছেন তাঁরা। এটা ঠিক হয়নি।’‌

বন্ধ করুন