বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Transport department: কোন মালিকের গাড়ি চালাচ্ছেন কোন চালক, অনলাইনেই জানা যাবে তথ্য

Transport department: কোন মালিকের গাড়ি চালাচ্ছেন কোন চালক, অনলাইনেই জানা যাবে তথ্য

গাড়ির মালিক ও চালকের তথ্য থাকবে অনলাইনে। প্রতীকী ছবি (PTI)

একটি পোর্টাল থাকবে, সেই গাড়ির মালিক জানাবেন তিনি নিজের গাড়ি কবে থেকে কাকে চালাতে দিচ্ছেন। কম্পিউটার ব্যবস্থায় গাড়ির মালিকের আধার সংক্রান্ত পরিচিতি যাচাই করে ইউনিট ডকুমেন্ট আইডেন্টিফিকেশন নম্বর তৈরি করা হবে। পোর্টালের মাধ্যমে চালকের মোবাইলে একটি কিউআর কোড পৌঁছে যাবে।

মালিকের গাড়ি চালাচ্ছেন কোন চালক? এবার থেকে সেই সমস্ত তথ্য অনলাইনে রাখা হবে। যদিও মালিকের অনুমতিতে অন্য কোন ব্যক্তি গাড়ি চালাতে পারবেন এই নিয়ম আগেই ছিল। তবে এতদিন তা অনলাইন প্রযুক্তির আওতায় আনা হয়নি। এবার থেকে অনলাইনেই এই সমস্ত তথ্য জানা যাবে। এরজন্য কোন চালক কবে থেকে কোন মালিকের গাড়ি চালাচ্ছেন? সেই সমস্ত তথ্য সংগ্রহ করছে রাজ্য সরকার।

কীভাবে এই তথ্য সংগ্রহ করছে পরিবহণ দফতর?

জানা গিয়েছে, একটি পোর্টাল থাকবে, সেই গাড়ির মালিক জানাবেন তিনি নিজের গাড়ি কবে থেকে কাকে চালাতে দিচ্ছেন। কম্পিউটার ব্যবস্থায় গাড়ির মালিকের আধার সংক্রান্ত পরিচিতি যাচাই করে ইউনিট ডকুমেন্ট আইডেন্টিফিকেশন নম্বর তৈরি করা হবে। পোর্টালের মাধ্যমে চালকের মোবাইলে একটি কিউআর কোড পৌঁছে যাবে। সেই কিউআর কোড থেকে একটি বিশেষ অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রামিং ইন্টারফেস (এপিআই) এর সাহায্যে গাড়ির মালিক ও চালকের যাবতীয় তথ্য জানা যাবে। গাড়ির মালিকের তথ্য জানা যাবে সরকারি ‘বাহন’ পোর্টাল থেকে। সেখানে গাড়ি মালিকের নাম ও ঠিকানা দেওয়া থাকবে, অর্থাৎ পুলিশ গাড়ি চালকের কাছে থাকা কিউআর কোড থেকে গাড়ির মালিকের তথ্য পেয়ে যাবেন। সেই ক্ষেত্রে সমস্যা অনেকটাই সমাধান হবে। একইভাবে চালকের যাবতীয় তথ্য পাওয়া যাবে ‘সারথি’ পোর্টাল থেকে।

পুরনো পদ্ধতিতে সাধারণত স্ট্যাম্প পেপার ব্যবহার করে কোন চালককে গাড়ি চালানোর অনুমতি দিয়ে থাকেন মালিক। তবে অনলাইন ব্যবস্থার ক্ষেত্রে গাড়ির মালিক পোর্টালের মাধ্যমে নির্দিষ্ট বয়ানে গাড়ি চালানোর জন্য চালককে অনুমতি দেওয়ার সুযোগ পাবেন। সে ক্ষেত্রে ওই অনুমতি বৈধ থাকবে এক বছরের জন্য। তবে মালিক চাইলে যেকোনও সময় সেই অনুমতি প্রত্যাহার করতে পারবেন। যারা একাধিক চালক রেখেছেন তারাও একইভাবে গাড়ি চালানোর জন্য অনুমতিপত্র তৈরি করতে পারবেন। তবে সে ক্ষেত্রে পুরনো পদ্ধতিও বহাল থাকবে।

অন্যদিকে, পুরনো গাড়ি বিক্রি নিয়ে নতুন নিয়ম আনতে চলেছে রাজ্য পরিবহণ দফতর। মূলত ক্রয় বিক্রয়কারী সংস্থাগুলির জন্য এই নিয়ম আনা হচ্ছে। এর ফলে গাড়ি বা বাইক বিক্রি করার পরে সম্পূর্ণ দায়মুক্ত থেকে যাবেন বিক্রেতা। তাদের আর সমস্যায় পড়তে হবে না। তেমনিই গাড়ি বিক্রয় সংস্থাও চাপমুক্ত থেকে যাবে। এর জন্য সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে ব্যবসার লাইসেন্স নিতে হলে নির্দিষ্ট মূল্য জমা রাখতে হবে। নতুন নিয়মের ফলে পরিবহণ দফতরে সমস্ত তথ্য জমা থাকার পাশাপাশি রাজস্ব বাড়বে বলে মনে করছেন আধিকারিকরা।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন