বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Durga Puja 2022: মহম্মদ আলি পার্কের দুর্গাপুজো এবার হবে না?‌ পুরসভার নোটিশে অনিশ্চয়তার মেঘ

Durga Puja 2022: মহম্মদ আলি পার্কের দুর্গাপুজো এবার হবে না?‌ পুরসভার নোটিশে অনিশ্চয়তার মেঘ

দুর্গাপুজো আসছে।

এই নিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। কিন্তু মহম্মদ আলি পার্কের দুর্গাপুজো বরাবর ভিড় টানে। সাবেকি থেকে থিম সবেতেই নজর কাড়ে এই পুজো। সেখানে এই অনিশ্চয়তার মেঘের ঘনঘটা চাপে ফেলে দিয়েছে পুজো উদ্যোগতাদের। কারণ মণ্ডপ তৈরির কাজ ইতিমধ্যেই অনেকটা এগিয়ে গিয়েছে।

বাংলার দুর্গাপুজো ইউনেস্কোর স্বীকৃতি পেলেও এবার পুরনো কলকাতার একটি পুরনো পুজো আদৌ করা সম্ভব হবে কিনা তা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। যে দুর্গাপুজো নিয়ে এই অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে সেটি হল মহম্মদ আলি পার্ক সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি। এই ঐতিহ্যবাহী পুজো নিয়েই এবার অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। জায়গার সমস্যার জন্য এই পুজোর অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। তার সঙ্গে এবার জুড়ে গিয়েছে কলকাতা পুরসভার নির্দেশ।

বিষয়টি ঠিক কী ঘটেছে? মহম্মদ আলি পার্ক সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির‌ মণ্ডপসজ্জার কাজ স্থগিত রাখতে কলকাতা পুরসভা নির্দেশ দিয়েছে। কারণ দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে মহম্মদ আলি পার্কে যেখানে পুজো হতো, তার নীচে রয়েছে ভূ–গর্ভস্থ জলাধার। ২০১৯ সালে এই জলাধার সংস্কার হয়। তখন সেখান থেকে সরে গিয়ে সংলগ্ন জায়গা, দমকল কেন্দ্রে পুজো হয়েছিল। ২০২০ সালেও সেখানে পুজো হয়। ২০২১ সালে কোভিড আবহে মূল জায়গা থেকে খানিকটা সরে এসে পুজো করা হয়েছিল। চলতি বছরে মূল জায়গাতেই মণ্ডপ বাঁধা হয়েছে। কিন্তু পুজোর কাজ বন্ধ করতে কলকাতা পুরসভা নোটিশ দিয়েছে। তাই এখন অনিশ্চয়তার কালো মেঘ দেখা দিয়েছে।

ঠিক কী বলা হয়েছে নোটিশে?‌ কলকাতা পুরসভার পক্ষ থেকে জল সরবরাহের ডিজির দেওয়া নোটিশে বলা হয়েছে, অনুমতি ছাড়া ওই জলাধারের উপরে মণ্ডপ তৈরি হচ্ছে। গত ১১ অগস্ট এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার গিয়ে পুজোমণ্ডপের কাজ বন্ধের অনুরোধ করেছিলেন। মহম্মদ আলি পার্কে যে জলাধার রয়েছে, সেটি অনেক পুরনো। তার উপর দুর্গাপুজোর মণ্ডপ তৈরি হলে চাপে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই এই পুজোমণ্ডপ অবিলম্বে সরাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তাহলে কী পুজো হবে না?‌ এই নিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। কিন্তু মহম্মদ আলি পার্কের দুর্গাপুজো বরাবর ভিড় টানে। সাবেকি থেকে থিম সবেতেই নজর কাড়ে এই পুজো। সেখানে এই অনিশ্চয়তার মেঘের ঘনঘটা চাপে ফেলে দিয়েছে পুজো উদ্যোগতাদের। কারণ মণ্ডপ তৈরির কাজ ইতিমধ্যেই অনেকটা এগিয়ে গিয়েছে। নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুজো উদ্যোক্তা বলেন, ‘কলকাতা পুরসভাকে জানিয়েই মণ্ডপের কাজ শুরু করেছিলাম। এখন হঠাৎ করে স্থগিত রাখতে বলা হচ্ছে। বিপদে পড়ে গেলাম আমরা সবাই।’‌

বন্ধ করুন