বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘‌আমরা ভুল করেছি’‌, আজ মমতার ঘরে ঢুকে বললেন মুকুল–শুভ্রাংশু
মুকুল রায় ও শুভ্রাংশু রায়। ফাইল ছবি
মুকুল রায় ও শুভ্রাংশু রায়। ফাইল ছবি

‘‌আমরা ভুল করেছি’‌, আজ মমতার ঘরে ঢুকে বললেন মুকুল–শুভ্রাংশু

  • নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে মুকুল সম্পর্কে মমতা বলেছিলেন, ‘‌মুকুলকে নির্বাচনে লড়তে সেই কৃষ্ণনগরে পাঠিয়ে দিয়েছে৷ মুকুল অতটাও খারাপ নয়৷’

একুশের নির্বাচনের প্রচারে লাগাতার শুভেন্দু অধিকারী, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়দের গদ্দার, মীরজাফরের মতো তকমা দিয়ে আক্রমণ করেছিলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ কিন্তু মুকুল রায়কে কড়া আক্রমণ করেননি তিনি৷ বরং বিজেপিতে কোণঠাসা মুকুল রায়ের জন্য প্রকাশ্যেই সহানুভূতির সুর শোনা গিয়েছিল মুখ্যমন্ত্রীর গলায়৷ নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে মুকুল সম্পর্কে মমতা বলেছিলেন, ‘‌মুকুলকে নির্বাচনে লড়তে সেই কৃষ্ণনগরে পাঠিয়ে দিয়েছে৷ মুকুল অতটাও খারাপ নয়৷’‌ একদা সেকেন্ড–ইন–কমান্ড সম্পর্কে এই কথা বলায় রাজ্য–রাজনীতিতে জলঘোলা হয়েছিল।

এই কথা যখন তৃণমূল সুপ্রিমো বলেছিলেন, তার আগে বর্ধমানের এক সভায় মুকুল রায় বলেছিলেন, জীবনে এমন অনেক সময় আসে যখন নীরব থাকতে হয়। এখন সময় এসেছে জায়গা ছেড়ে দেওয়ার। নতুনদের জায়গা ছেড়ে দিতে হবে। এই মন্তব্য থেকেই বোঝা গিয়েছিল বিজেপির সঙ্গে তাঁর চিড় ধরেছে। আবার বিধানসভা নির্বাচনে জিতলেও তাঁকে বিরোধী দলনেতা করা হয়নি। বরং শুভেন্দু অধিকারীকে সেই পদ দেওয়া হয়েছে। তাতেও খানিকটা গোঁসা হয় রায় সাহেবের। আবার বিরোধী দলনেতাকে দিল্লিতে ডেকে পাঠানো এবং আরও তিন সাংসদকে ডেকে পাঠানো হয়েছিল। সেখানে মুকুল রায়কে ব্রাত্য রাখা হয়েছিল। যা প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ করে মুকুল রায়কে।

এদিকে সব জল্পনাকে সত্যি করেই আজ, শুক্রবার পুরনো দল তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিলেন মুকুল রায়৷ তবে শুধু মুখ্যমন্ত্রীর এই নরম বার্তা নয়, মুকুলের তৃণমূল কংগ্রেসে ফেরার পটভূমি তৈরি হচ্ছিল গত বেশ কয়েকদিন ধরেই৷ বিজেপিতে মুকুল যত কোণঠাসা হয়েছেন, ততই সেই সম্ভাবনা বেড়েছে৷ গতকাল সৌগত রায় তাঁকে বার্তা দিয়েছিলেন।

বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপিতে সেভাবে সক্রিয় হতে দেখা যায়নি মুকুল রায়কে৷ কারণ তাঁকেই দল কৃষ্ণনগর উত্তর কেন্দ্রে প্রার্থী করে দিয়েছিল৷ যা মুকুলের ক্ষোভ এবং হতাশা চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছে দেয় বলে সূত্রের খবর৷ তারপর মুকুল এবং তাঁর স্ত্রী কৃষ্ণা রায় নির্বাচনের পর করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সৌজন্য অন্য মাত্রা যোগ করে৷ মুকুল রায়ের স্ত্রী গুরুতর অসুস্থ হওয়ার খবর পেয়ে তাঁকে দেখতে হাসপাতালে পৌঁছে যান স্বয়ং অভিষেক৷ সেখানে মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু রায়ের সঙ্গে কথা বলে পাশে থাকার বার্তা দেন তিনি৷

ড্যামেজ কন্ট্রোল করতে মুকুলকে ফোন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র ‌মোদী৷ অভিষেক হাসপাতালে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরই সেখানে যান বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ তবে দিলীপবাবু হাসপাতালে আসার আগে তাঁদের কিছু জানাননি বলে স্পষ্ট জানিয়ে দেন মুকুল এবং তাঁর ছেলে শুভ্রাংশু রায়৷ ফলে তা নিয়েও অস্বস্তিতে পড়ে বিজেপি৷ আর জাজ তৃণমূল ভবনে ঢুকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বলেন, ‘‌আমরা ভুল করেছি’‌।

বন্ধ করুন