বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Nirmal Maji: পশ্চিমবঙ্গ মেডিক্যাল কাউন্সিলের অ্যাড হক কমিটিতে ঠাঁই মিলল না নির্মলের
নির্মল মাজি। ছবি সৌজন্য : টুইটার

Nirmal Maji: পশ্চিমবঙ্গ মেডিক্যাল কাউন্সিলের অ্যাড হক কমিটিতে ঠাঁই মিলল না নির্মলের

  • কলকাতা হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল ১ আগস্ট থেকে অ্যাড হক কমিটি পশ্চিমবঙ্গ মেডিক্যাল কাউন্সিলের দায়িত্ব নেবে এবং সেই কমিটির তত্ত্বাবধানে নির্বাচন হবে। তার ফলাফল ঘোষণা করতে হবে অক্টোবরের মধ্যে। যতক্ষণ না পর্যন্ত নির্বাচন সম্পন্ন হবে ততক্ষণ পর্যন্ত অ্যাড হক কমিটি মেডিক্যাল কাউন্সিল পরিচালনা করবে।

কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যানের পর এবার পশ্চিমবঙ্গ মেডিক্যাল কাউন্সিলের কার্যনির্বাহী সভাপতি পদ থেকেও সরানো হল নির্মল মাজিকে। পশ্চিমবঙ্গ মেডিক্যাল কাউন্সিলের অ্যাড হক কমিটিতেও তাঁর ঠাঁই মিলল না। তবে জায়গায় এই দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছে শ্রীরামপুরের বিধায়ক সুদীপ্ত রায়কে। কলকাতা হাইকোর্ট পশ্চিমবঙ্গ মেডিক্যাল কাউন্সিলের অ্যাড হক কমিটি গঠন করার নির্দেশ দিয়েছিল। সেই মতো পশ্চিমবঙ্গ মেডিক্যাল কাউন্সিল অস্থায়ীভাবে পরিচালনার জন্য অ্যাড হক কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কলকাতা হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল ১ আগস্ট থেকে অ্যাড হক কমিটি পশ্চিমবঙ্গ মেডিক্যাল কাউন্সিলের দায়িত্ব নেবে এবং সেই কমিটির তত্ত্বাবধানে নির্বাচন হবে। তার ফলাফল ঘোষণা করতে হবে অক্টোবরের মধ্যে। যতক্ষণ না পর্যন্ত নির্বাচন সম্পন্ন হবে ততক্ষণ পর্যন্ত অ্যাড হক কমিটি মেডিক্যাল কাউন্সিল পরিচালনা করবে। সেই কারণেই মেডিক্যাল কাউন্সিল অস্থায়ীভাবে পরিচালনার জন্য অ্যাড হক কমিটি গঠন করেছে রাজ্য সরকার। গতকাল এই কমিটির নাম ঘোষণা করা হয়েছে। যেখানে সভাপতি করা হয় সুদীপ্ত রায়কে। এছাড়াও এই কমিটিতে রয়েছেন চিকিৎসক দীপাঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়, চিকিৎসক গোপালকৃষ্ণ ঢালী প্রমুখ। উল্লেখযোগ্যভাবে নির্মল মাজির নাম এই কমিটি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

যদিও কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যানের পদ থেকে আগেই বাদ দেওয়া হয়েছিল নির্মল মাজিকে। তাঁর জায়গায় নতুন চেয়ারম্যান করা হয় সুদীপ্ত রায়কে। এর পরে মেডিক্যাল কাউন্সিলের কার্যনির্বাহী সভাপতি থেকে বাদ গেলেন নির্মল মাজি। অনেকেই ভেবেছিলেন তাঁর নাম এই কমিটিতে রাখা হবে। তবে রাজনৈতিক মহলের মতে, নির্মল মাজির বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ রয়েছে। পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে ইতিমধ্যেই অস্বস্তিতে রয়েছে রাজ্য সরকার। ফলে নতুন করে আর একই ভুল করতে চাইছে না রাজ্য সরকার। সেই কারণেই তাঁকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

বন্ধ করুন