বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > তৃণমূলের তোলাবাজি? বাংলা ছাড়তে চাইছেন সিঙ্গাপুরের শিল্পপতি! তীব্র খোঁচা তথাগতর
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তথাগত রায়। ছবি: সংগৃহীত

তৃণমূলের তোলাবাজি? বাংলা ছাড়তে চাইছেন সিঙ্গাপুরের শিল্পপতি! তীব্র খোঁচা তথাগতর

  • বাংলাকে টাটা বাই বাই করে ফিরে যেতে চাইছেন সিঙ্গাপুর প্রবাসী শিল্পপতি। সেটাও আবার তৃণমূল কাউন্সিলরের তোলাবাজির দাবিতে নাজেহাল হয়ে। এনিয়ে টুইটে তোপ দেগেছেন তথাগত রায়।

তৃণমূল জমানায় শিল্পোদ্যোগীরা মুখ ফিরিয়েছেন বাংলার দিক থেকে এনিয়ে বিরোধীরা বার বারই কটাক্ষ করেছেন। এবার সেই অভিযোগের ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা যোগ করলেন তথাগত রায়। টুইট করে তিনি তীব্র খোঁচা দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীনে থাকা সরকারকে।

তিনি লিখেছেন, সিঙ্গাপুরে বসবাসকারী এক এনআরআই রূপেশ সিংহ পশ্চিমবঙ্গে বিনিয়োগ করতে চেয়েছিলেন। তিনি বালিতে জমি কিনেছিলেন। স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলরের মাধ্যমে তাঁকে টাকার জন্য় চাপ দেওয়া হয়। তারই ফলস্বরূপ তিনি চলে যেতে চাইছেন। কোনও বিনিয়োগকারী এই রাজ্যকে ছুঁয়েও দেখবেন না। তৃণমূল যতদিন ক্ষমতায় আছে। এভাবেই তীব্র খোঁচা বিজেপি নেতা তথা প্রাক্তন রাজ্যপাল তথাগত রায়ের।

 

অপর টুইটে তিনি লিখেছেন, হাওড়ার বালিতে কাউন্সিলরের তোলার দাবিতে নাজেহাল হয়ে পশ্চিমবঙ্গ ছাড়তে চাইছেন সিঙ্গাপুরের শিল্পপতি রূপেশ সিংহ। হে পশ্চিমবঙ্গের বেকার বাহিনী! চাকরি তো হবে না। মমতার ক্যাওড়া হয়ে তোলাবাজি করে আর চুল্লু খেয়ে আর কতদিন চলবে? পরের প্রজন্ম দুদিন বাদে এসেই তো হঠিয়ে দেবে!

এদিকে তথাগত রায়ের এই টুইটের পরেই ঝাঁপিয়ে পড়েছেন নেটনাগরিকরা। এনিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া উঠে এসেছে। এক নেট নাগরিক লিখেছেন তিনি ভারতের কোথায় গেলেন ও কমিশন ছাড়াই প্রজেক্ট করলেন সেটা জানার ইচ্ছা হচ্ছে।

অপর একজন লিখেছেন, এই সরকার যদি ক্ষমতায় থাকে তবে প্রবাসী বাঙালিরা ভাবেন অবসরের পরে দেশে ফিরে তাঁদের নিজেদের রাজ্যে কীভাবে জীবন ধারণ করবেন। অপর একজন লিখেছেন, তৃণমূল আর দুর্নীতি সমার্থক শব্দ। আমি তৃণমূল করি আর আর আমি দুর্নীতি করি একই জিনিস। অপর একজন লিখেছেন, রতন টাটাকে যেখানে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল সেখানে রূপেশ সিংহ তো ছোট ব্যাপার। আর এখন দিদি তো ১০০ গুণ শক্তিশালী হয়ে গিয়েছেন।

 

বন্ধ করুন