বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > কে কী ভাবল তাতে কিছু করার নেই:‌ নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সেলফি তুলে বললেন রুদ্রনীল
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, রাজ্যপাল জগদীন ধনখড়ের সঙ্গে রুদ্রনীল ঘোষের সেলফি। ছবি সৌজন্য :‌ ফেসবুক
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, রাজ্যপাল জগদীন ধনখড়ের সঙ্গে রুদ্রনীল ঘোষের সেলফি। ছবি সৌজন্য :‌ ফেসবুক

কে কী ভাবল তাতে কিছু করার নেই:‌ নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সেলফি তুলে বললেন রুদ্রনীল

  • ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ছবিতে অনেকেই কমেন্ট করেছেন, ‘‌দাদা সাতে–পাঁচে থাকেন না’‌। একরকম কটাক্ষের শিকার হতে হচ্ছে রুদ্রনীলকে। যদিও তা নিয়ে তাঁর বিন্দুমাত্র মাথাব্যাথা নেই।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সেলফি তুললেন টলিউড অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ। এক ফ্রেমে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ও। আর শনিবার সন্ধ্যায় এই সুযোগ করে দিলেন নেতাজি। ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল হলে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিন উপলক্ষে অনুষ্ঠান শেষে এদিন বাংলার বেশ কয়েকজন শিল্পী, সাহিত্যিকের সঙ্গে দেখা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর সেই ফাঁকেই তাঁর সঙ্গে সেলফি তুলে নেন রুদ্রনীল। যা নিয়ে নতুন করে শুরু হয়েছে জল্পনা।

জানা গিয়েছে, এদিনের ‘‌পরাক্রম দিবস’‌ অনুষ্ঠানে সমাজের বিভিন্ন অংশের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের আমন্ত্রণ করা হয়েছিল। অনুষ্ঠানের শেষে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল হলের সামনে চা–চক্রের আয়োজন করা হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী নিজে বিভিন্ন টেবিলে ঘুরে ঘুরে সকলের সঙ্গে আলাপ করেন। সে সুযোগেই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সেলফি তোলেন রুদ্রনীল। সেই ছবি তিনি ফেসবুকে পোস্টও করেছেন।

ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ছবিতে অনেকেই কমেন্ট করেছেন, ‘‌দাদা সাতে–পাঁচে থাকেন না’‌। একরকম কটাক্ষের শিকার হতে হচ্ছে রুদ্রনীলকে। যদিও তা নিয়ে তাঁর বিন্দুমাত্র মাথাব্যাথা নেই। তিনি বলেন, ‘‌দেশের একজন প্রধানমন্ত্রী, তিনি যে কোনও রাজনৈতিক দলেরই হতে পারেন, তাঁর সঙ্গে ছবি তোলা একটা আনন্দের ব্যাপার। যাঁরা মনে করেন যে মুখ্যমন্ত্রী বা প্রধানমন্ত্রী কোনও দল করেন তাই তাঁদের অপছন্দ করব, আমার মনে হয় যে এটা ভাবা ঠিক নয়।’‌

রুদ্রনীল আরও বলেন, ‘‌আমি নিশ্চয়ই প্রধানমন্ত্রীকে পছন্দ করি। তাঁর অ্যাটিটিউড আমার পছন্দ হয়। ভাল লাগে। সেই কারণেই তাঁর সঙ্গে সেলফি তোলার সুযোগ হল, তাই তুললাম। এদিন যে সব শিল্পী, সাহিত্যিক অনুষ্ঠানে এসেছিলেন তাঁদের সবার সঙ্গেই কুশল বিনিময় করছিলেন প্রধানমন্ত্রী। আমারও সৌভাগ্য হল। তাই একসঙ্গে ছবি উঠল। রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ও ছিলেন। বাকি অন্য লোক কে কী ভাবল তাতে আমার কিছু করার নেই।’‌

বৃহস্পতিবার দক্ষিণ কলকাতার হরিদেবপুরে একটি জন্মদিনের অনুষ্ঠানে শুভেন্দুর পাশে একেবারে হাসিমুখে রুদ্রনীলকে দেখা যায়। তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতি ‘বীতশ্রদ্ধ’ হয়ে ওঠা রুদ্রনীলের পাশে শুভেন্দু দেখতে পাওয়া যাওয়ার পর স্বভাবতই জল্পনা শুরু হয়। প্রশ্ন উঠতে থাকে, তা হলে কি এবার বিজেপি–তেই যোগ দিতে চলেছেন রুদ্রনীল? আর এবার একেবারে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেই সাক্ষাৎ হল রুদ্রনীলের।

উল্লেখ্য, এদিন ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল হলের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে কথা হয়েছে অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের। এ ছাড়া তাঁর সঙ্গে দেখা করেছেন অভিনেত্রী ইন্দ্রনীল হালদার। তাঁদের দু’‌জনের সঙ্গেই এদিন কুশল বিনিময় করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

বন্ধ করুন