ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

কলকাতায় দিনভর ঘরবন্দিই রইলেন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদলের সদস্যরা

  • খবর পেয়ে সেখানে পৌঁছন কলকাতা পুলিশের আধিকারিকরা। পৌঁছন বালিগঞ্জ থানার ওসি ও ডেপুটি কমিশনার এসিডি। তাঁরা বিএসএফ ক্যাম্পের ভিতরে ঢুকে কেন্দ্রীয় প্রতিনিদলের কর্মসূচি জানার চেষ্টা করেন।

কেন্দ্র - রাজ্য সংঘাতের মধ্যে কলকাতায় দ্বিতীয় দিনটা গৃহবন্দি হয়েই কাটল কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদলের। মঙ্গলবার গোটা দিনটা বালিগঞ্জের বিএসএফ অফিসারর্স ইন্সটিটিউটে কাটান তাঁরা। কেন্দ্রীয় দলের গতিবিধি জানতে রীতিমতো তৎপর ছিল কলকাতা পুলিশও।

মঙ্গলবার বেলা ১০টা নাগাদ বালিগঞ্জের গুরুসদয় দত্ত রোডে বিএসএফ আধিকারিকারদের ইন্সটিউট থেকে বেরোয় কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদলের কনভয়। কিন্তু মাত্র ৫০০ মিটার দূরে সৈয়দ আমির আলি অ্যাভিনিউ পর্যন্ত গিয়ে ফের বিএসএফএর ইন্সটিটিউটে ফিরে আসে কেন্দ্রের প্রতিনিদল। তবে কেনই বা তাঁরা কনভয় নিয়ে বেরোলেন, আর কেনই বা ফিরে এলেন তা এখনো ধোঁয়াশা।

খবর পেয়ে সেখানে পৌঁছন কলকাতা পুলিশের আধিকারিকরা। পৌঁছন বালিগঞ্জ থানার ওসি ও ডেপুটি কমিশনার এসিডি। তাঁরা বিএসএফ ক্যাম্পের ভিতরে ঢুকে কেন্দ্রীয় প্রতিনিদলের কর্মসূচি জানার চেষ্টা করেন। তবে তাঁদের সেব্যাপারে কিছু জানানো হয়নি বলে খবর।

এর পর গুরুসদয় দত্ত রোডের ২ মুখে নাকা বসায় কলকাতা পুলিশ। নিয়ন্ত্রণ করা হয় যানচলাচল।

সোমবারের মতো মঙ্গলবারই না জানিয়ে রাজ্যে প্রতিনিদল পাঠানোয় কেন্দ্রে বিরোধিতা করেছে তৃণমূল। দলের লোকসভার দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘কেন্দ্রের উচিত যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো মেনে পদক্ষেপ করা।’



বন্ধ করুন