বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মুক্তির অপেক্ষায় একগুচ্ছ নতুন ছবি, শুক্রবারই হল চালুর ইচ্ছে মালিকদের
লকডাউন পর্বের পরে বৃহস্পতিবার থেকে খুলে যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের সিনেমা হল ও মাল্টিপ্লেক্স।
লকডাউন পর্বের পরে বৃহস্পতিবার থেকে খুলে যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের সিনেমা হল ও মাল্টিপ্লেক্স।

মুক্তির অপেক্ষায় একগুচ্ছ নতুন ছবি, শুক্রবারই হল চালুর ইচ্ছে মালিকদের

  • অধিকাংশ হল মালিকই শুক্রবার থেকে হল খুলতে চাইছেন। ২১ অক্টোবর পুজোর মুখে অনেকগুলি নতুন বাংলা ছবি মুক্তি পেতে চলেছে।

দীর্ঘ লকডাউন পর্ব অতিক্রম করে আজ, বৃহস্পতিবার থেকে খুলে যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের সিনেমা হল ও মাল্টিপ্লেক্স। দুর্গা পুজোর আগে মুক্তি পেতে চলেছে প্রায় ডজনখানেক বাংলা ছবি।

রাজ্যে প্রায় ২৫০টি সিনেমা হল ও কয়েক ডজন মাল্টিপ্লেক্স রয়েছে। ইস্টার্ন ইন্ডিয়া মোশন পিকচার্স অ্যাসোসিয়েশনের (EIMPA ) সভাপতি পিয়া সেনগুপ্ত জানিয়েছেন, ‘বৃহস্পতিবার থেকে সিনেমা হল খুললেও নতুন ছবি মুক্তির জন্য অধিকাংশ হল মালিকই শুক্রবার থেকে হল খুলতে চাইছেন। ২১ অক্টোবর পুজোর মুখে অনেকগুলি নতুন বাংলা ছবি মুক্তি পেতে চলেছে। সমস্ত সরকারি বিধি-নিষেধ মেনে চলা হবে।’

গত ৩০ সেপ্টেম্বর এক বিবৃতি প্রকাশ করে মাল্টিপ্লেক্স অ্যাসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশে ১৫ অক্টোবর থেকে সিনেমা প্রদর্শনস্থল খোলার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানায়।

বুধবার EIMPA সভাপতি জানান, সিনেমা হলে মাস্ক ব্যবহার আবশ্যিক করা হয়েছে। সেই সঙ্গে, প্রতিটি শোয়ের আগে হলগুলি সম্পূর্ণ জীবাণুমুক্ত করা হবে। টিকিট কাউন্টার খোলা হলেও অনলাইন টিকিট বুকিংয়ে জোর দেওয়া হচ্ছে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হলের মাত্র ৫০ শতাংশ আসনই বুককরা যাবে। প্রেক্ষাগৃহে প্রবেশের আগে দর্শকদের থার্মাল গানের সাহায্যে স্ক্রিনিং করা হবে।

কিছু সিনেমা হল মালিক অবশ্য মনে করছেন, প্রেক্ষাগৃহের ৫০% আসন ভরাতেও বেশ সময় লাগবে। কোভিড পরিস্থিতিতে বদ্ধ স্থান এড়িয়ে চলার প্রবণতার ফলেই এই সমস্যা দেখাদেবে বলে তাঁদের ধারণা।

গত মঙ্গলবার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেন, সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে খোলা স্থানে এবং হলের ভিতরে দুর্গা পুজো পালন করা যাবে। 

একটি অনুষ্ঠানে ভাষণ দিতেগিয়ে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘সমস্ত Covid-19 নিয়মাবলী মানলে আমরা ১০০ জনের সমাবেশের অনুমতি দেব। যদি আরও বড় জায়গার ব্যবস্থা করতে পারেন, তা হলে ২০০ লোককেও অনুমতি দেওয়া যায়। তবে পুজো মণ্ডপের কাছাকাছি এমন অনুষ্ঠানের আয়োজন করবেন না।’

বন্ধ করুন