বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > বাংলায় করোনার ৪০,০০০ রিপোর্ট বকেয়া, এভাবে পরীক্ষা করে লাভ কী? প্রশ্ন ধনখড়ের
West Bengal CM Mamata Banerjee in a conversation with Governor Jagdeep Dhankhar before receiving Prime Minister Narendra Modi on his arrival at Kolkata Airport on Friday. Prime Minister Modi will be conducting an aerial survey of the areas affected by Cyclone Amphan. (ANI Photo)
West Bengal CM Mamata Banerjee in a conversation with Governor Jagdeep Dhankhar before receiving Prime Minister Narendra Modi on his arrival at Kolkata Airport on Friday. Prime Minister Modi will be conducting an aerial survey of the areas affected by Cyclone Amphan. (ANI Photo)

বাংলায় করোনার ৪০,০০০ রিপোর্ট বকেয়া, এভাবে পরীক্ষা করে লাভ কী? প্রশ্ন ধনখড়ের

  • সোমবার এক টুইটে রাজ্যপাল জানান অন্তত ৪০,০০০ নমুনা বকেয়া রয়েছে এরাজ্যে।

পশ্চিমবঙ্গে করোনাভাইরাস পরীক্ষার কত রিপোর্ট বকেয়া রয়েছে, তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েনের কাছে জানতে চাইলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। সোমবার এক টুইটে রাজ্যপাল জানান অন্তত ৪০,০০০ নমুনা বকেয়া রয়েছে এরাজ্যে। 

দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর এপ্রিলের শেষে পশ্চিমবঙ্গে করোনা পরীক্ষায় বেগ আসে। ধীরে ধীরে বাড়তে শুরু করে পরীক্ষার সংখ্যা। কিন্তু তার পরেও বহু জায়গায় পরীক্ষার রিপোর্ট ৭ – ১০ পর হাতে মিলছে বলে অভিযোগ। এদিন রাজ্যপাল সেই প্রসঙ্গ তুলে ধরেন তাঁর টুইটে। 

ধনখড় লিখেছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সোশ্যাল মিডিয়া মুখপাত্র ডেরেক ও ব্রায়েনের কাছে জানতে চাই, পশ্চিমবঙ্গে করোনা পরীক্ষার কত রিপোর্ট বকেয়া রয়েছে? মুখ্যসচিবের কাছে আমি ৪০,০০০ হাজার নমুনা বকেয়া রয়েছে বলে জানিয়েছি। ভয়ানক বিপদজনক পরিস্থিতি। নমুনা পরীক্ষায় এত বিলম্ব পরীক্ষার উদ্দেশ্যকেই ব্যর্থ করে দেয়। 

বলে রাখি, গত কয়েকদিন ধরে পশ্চিমবঙ্গের ৪০টি পরীক্ষাগারে রোজ মোট ৯,০০০-এর ওপর নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে। স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুসারে রবিবার পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গে রোজ ২,০৩,৭৫১টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। প্রতি লক্ষ জনসংখ্যা নমুনা পরীক্ষার হার ২,২৬৪। তবে এর মধ্যে কতগুলি নতুন নমুনা আর কতগুলি রিপিট টেস্ট, তা জানায়নি স্বাস্থ্য দফতর। 

বিপুল পরিমানে টেস্ট হলেও রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকে ১ সপ্তাহ এমনকী ১০ দিন পরেও রিপোর্ট পৌঁছচ্ছে বলে অভিযোগ। ততদিনে কোয়ারেন্টাইন থেকে বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন ভিনরাজ্যের শ্রমিকরা। যার ফলে তাদের থেকে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা থাকছে। এদিন সেই আশঙ্কাই প্রকাশ করেছেন রাজ্যপাল। 

 

বন্ধ করুন