বাড়ি > বায়োস্কোপ > বেঙ্গালুরু হিংসায় নিহত ৩, প্রতিবাদের সুর চড়ালেন স্বরা ভাস্কর
হিংসার তীব্র সমালোচনা করলেন স্বরা ভাস্কর 
হিংসার তীব্র সমালোচনা করলেন স্বরা ভাস্কর 

বেঙ্গালুরু হিংসায় নিহত ৩, প্রতিবাদের সুর চড়ালেন স্বরা ভাস্কর

  • নবী নিয়ে ‘কুরুচিকর মন্তব্য’ ঘিরে ছড়িয়ে পড়ে হিংসার আগুন। ঘটনা বেঙ্গালুরুর ডিজে হাল্লি এবং কেজি হাল্লি থানা এলাকায়। 

অভিনেত্রী-সমাজকর্মী স্বরা ভাস্কর এবার মুখ খুললেন বেঙ্গালুরু হিংসা নিয়ে। একটি ফেসবুক পোস্ট ঘিরে ছড়িয়ে পড়া হিংসার বলি ইতিমধ্যে ৩ জন। বিতর্কিত বিষয় নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের মতামত জাহির করা থেকে কোনওদিনই পিছিয়ে আসেন না স্বরা। এবারও তাঁর ব্যক্তিক্রম হল না। তিনি বললেন, হিংসা এবং আগুন ধরানোর জন্য কোনও অজুহাতই যথেষ্ট নয়। 

অভিযোগ, কংগ্রেস বিধায়ক আখান্দা শ্রীনিবাস মূর্তির ভাইপো বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় এক নবীকে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য করেছেন। যুবকের পোস্ট ঘিরে মঙ্গলবার রাতে সংঘর্ষ শুরু হয় বেঙ্গালুরুতে, তাকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। যদিও যুবকের দাবি, তিনি সেই পোস্ট করেননি এবং তাঁর সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট হ্যাক করা হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টে ক্ষুব্ধ হয়ে গতরাতে পুলকেশী নগরে একটি থানায় ভাঙচুর চালায় একদল উত্তেজিত জনতা। কংগ্রেস বিধায়কের বাড়িতে ভাঙচুর চালানো হয়। আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় গাড়িতে। পুলিশ এবং বিধায়কের বাড়ি লক্ষ্য করে বোতল এবং পাথর ছোড়া হয়। হিংসায় কমপক্ষে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন অতিরিক্ত কমিশনার পদমর্যাদার এক আধিকারিক-সহ ৬০ জন পুলিশকর্মী। এই ঘটনার প্রেক্ষিতেই মুখ খুললেন স্বরা ভাস্কর। 

স্বরা লেখেন, হিংসা এবং আগুন ধরানোর জন্য কোনও অজুহাতই যথেষ্ট নয়! না, ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতও কোনও অজুহাত হতে পারে না। তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি, মুসলীম গুণ্ডাদের দ্বারা বেঙ্গালুরুতে ছড়িয়ে পড়া হিংসার। এটা প্রমাণ করে ধর্মান্ধতা  সকল সম্প্রদায়ের জন্যই একটা সমস্যার কারণ। দোষীদের আইন মেনে সাজা দিতে হবে। নিন্দনীয় বেঙ্গারুলু দাঙ্গা'।

অন্যদিকে সরাসরি বেঙ্গালুরু হিংসা নিয়ে কোনও মন্তব্য না করলেও এদিন প্রাক্তন অভিনেত্রী জাইরা ওয়াসিম টুইট করেন, নবী বলেছেন- ‘যে নিজের ক্রোধকে দমন করতে পারে, যদিও তাঁর কাছে নিজের রাগের প্রতিশোধ নেওয়া সুযোগ থাকে তাহলে আল্লাহ কেয়ামতের দিন নিজের হৃদয়ে তাঁকে স্থান দেন’।

সবমিলিয়ে বেঙ্গালুরুতে ছড়িয়ে পড়া সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় প্রায় ১৫০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ডিজে হাল্লি এবং কেজি হাল্লি থানা এলাকায় কার্ফু জারি করা হয়েছে। পুরো বেঙ্গালুরুতেই ১৪৪ ধারা বলবৎ করা হয়েছে।

বন্ধ করুন