তাপস পাল (১৯৫৮-২০২০)
তাপস পাল (১৯৫৮-২০২০)

তাপস পালের প্রয়াণে শোকবার্তা মমতার, শোকস্তব্ধ টলিউড

তাপস পালের আকস্মিক প্রয়াণে শোকের ছায়া নেমেছে অভিনয় ও রাজনীতি, দুই জগতেই।

মাত্র ৬১ বছর বয়সে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তাপস পালের আকস্মিক প্রয়াণে শোকের ছায়া নেমেছে অভিনয় ও রাজনীতি, দুই জগতেই।

মঙ্গলবার ভোররাতে মুম্বইয়ের এক বেসরকারি হাসপাতালে তাপস পালের মৃত্যু গভীর শোক প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শোকবার্তায় তিনি লিখেছেন, ‘বিশিষ্ট অভিনেতা ও প্রাক্তন সাংসদ তাপস পালের প্রয়াণে আমি গভীর শোক প্রকাশ করছি। তিনি আজ ভোরে মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। বয়স হয়েছিল ৬১ বছর। আমি প্রয়াত তাপস পালের আত্মীয় পরিজন ও অনুরাগীদের আন্তরিক সমবেদনা জানাচ্ছি।’

একাধিক হিট বাংলা ছবিতে অভিনয় করেছেন তাপস-দেবশ্রী জুটি।
একাধিক হিট বাংলা ছবিতে অভিনয় করেছেন তাপস-দেবশ্রী জুটি।

তাপস পালের একাধিক ছবির নায়িকা দেবশ্রী রায় সহ-অভিনেতার আকস্মিক মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ। এ দিন তিনি জানান, ‘কিছু বলার নেই। ভাবতেই পারছি না..।অকালে চলে গেল। আমার পরিবারের মতো ছিল।‘

তাপস পালের মৃত্যুতে শোকাহত অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। তিনি জানিয়েছেন, 'যতদিন বাংলা ছবি থাকবে, ততদিন থাকবেন তাপস পাল। ‘দাদার কীর্তি’র মতো ছবি উপহার দিয়েছেন তিনি। তাঁর মতো এত শক্তিশালী অভিনেতা কম এসেছেন। এত তাড়াতাড়ি তিনি চলে যাবেন, ভাবিনি। তাঁর প্রাণখোলা হাসিটাই মনে পড়ছে।'

অগ্রজ অভিনেতার প্রয়াণে ব্যথিত বাংলা ছবির সুপারস্টার জিত্। এ দিন টুইটারে প্রয়াত তাপস পালের উদ্দেশে তিনি শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করেছেন।

অভিনেতার অকালপ্রয়াণে ব্যথিত তাঁর দীর্ঘ দিনের সহকর্মী বর্ষীয়ান অভিনেতা রঞ্জিত মল্লিক। ‘রুদ্রবীণা,’ ‘মঙ্গলদীপ’ ও ‘অন্তরতম’ ছবিতে তাঁদের একসহ্গে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে। এ দিন রঞ্জিত মল্লিক বলেন, ‘তাপস পালের মৃত্যু অসময়োচিত। এখনও মেনে নিতে পারছি না। ও ছিল আমার ছোট ভাইয়ের মতো। কিছু দিন ধরে অসুস্থ ছিল।’

পরিচালক অরিন্দম শীল তাপস পালের প্রয়াণে শোক প্রকাশ করে টুইট করেছেন এ দিন। তিনি লিখেছেন, ‘বাংলা সিনেমার এক স্মরণীয় যুগ রেখে গেলেন তাপস পাল। আর আমাদের জন্য রেখে গেলেন বহু স্মরণীয় মুহূর্ত।’

তাপস পালের সঙ্গে একাধিক ছবিতে অভিনয় করেছেন রচনা বন্দ্যোপাধ্যায়।
তাপস পালের সঙ্গে একাধিক ছবিতে অভিনয় করেছেন রচনা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তাপস পালের মৃত্যুতে শোকাহত অভিনেত্রী রচনা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ‘এক-দেড় মাস আগেও তাপসের সঙ্গে দেখা হয়েছে। উনি খুব গল্প করতে ভালবাসতেন। কত বড় ক্ষতি হল, তা ব্যাখ্যা করতে পারব না। এত বড় অভিনেতার কোনও বিকল্প পাবে না বাংলা ছবি। ’

প্রয়াত অভিনেতার সহকর্মী তথা প্রতিবেশী অভিনেত্রী ইন্দ্রাণী দত্ত জানিয়েছেন, গত কয়েক দিন যাবত্ নানান অসুখে ভুগছিলেন তাপস পাল।সহ-অভিনেতার অকালমৃত্যুতে শোকাতুর বাংলা সিনেমার আর এক দিকপাল অভিনেতা চিরঞ্জীব। এ দিন তিনি জানালেন, ‘তাপসের শেষ জীবনটা অত্যন্ত খারাপ গেল। অত উজ্জ্বল ছেলের এই পরিণতি কষ্ট দেয়।’

বন্ধ করুন