বাড়ি > বায়োস্কোপ > বর্ণবৈষম্য নিয়ে সরগরম বলিউড,দর্শনা থেকে বিপাশা, কী বলছেন?
দর্শনা বণিক। ছবি ফেসবুক।
দর্শনা বণিক। ছবি ফেসবুক।

বর্ণবৈষম্য নিয়ে সরগরম বলিউড,দর্শনা থেকে বিপাশা, কী বলছেন?

বলিউডে নতুন পা রাখা দর্শনা বণিক থেকে সুপার মডেল বিপাশা, সকলেই সরব বর্ণবৈষম্য নিয়ে। কোনও ভাবেই সমর্থন যোগ্য নয় এই হীন মানসিকতা। সেই প্রতিবাদের কথাই HT Bangla-কে জানালেন অভিনেত্রী ও মডেল দর্শনা বণিক।

বর্ণবৈষম্য কোনও দিনই সমর্থনযোগ্য নয়। সেই কথাই দর্শনা জানিয়েছেন আমাদেরকে। এবং এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব কলকাতার মেয়ে, অভিনেত্রী ও মডেল দর্শনা বণিক। যদিও এই মুহূর্তে তিনি টলিউডের পাশাপাশি কাজ করছেন বলিউডে। লকডাউনের আগে মেইন স্ট্রিম হিন্দি ছবিতে কাজ সারলেন দর্শনা। এখন ব্যস্ত তেলেগু ছবির কাজ নিয়ে। সম্প্রতি তিনি সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করে তাঁর সঙ্গে ঘটে যাওয়া একটি পুরনো ঘটনার কথাও তিনি জানান।

কয়েক বছর আগের কথা, কেরিয়ারের শুরুর দিকে, ত্বক ফর্সা করার পণ্যের জন্য একটি বিজ্ঞাপন মূলক ক্যাম্পেইন প্রস্তাব করা হয়েছিল অভিনেত্রীকে। দর্শনা সেই প্রস্তাব সযত্নে ফিরিয়ে দেন। সংস্থার তরফ থেকে যিনি পুরো বিষয়টা কো-অর্ডিনেট করছিলেন সেই ভদ্রলোক এই প্রত্যাখ্যানটা কিছুতেই মেনে নিতে পারেন নি। বিশেষ করে একজন নিউ কামারের কাছ থেকে ‘না’ শুনে অত্যন্ত রেগে যান। তিনি সেদিন দর্শনাকে বলেছিলেন, ‘তুমি এখন কিছুই না, এই কাজটা তোমাকে কিছু করে দেবে। তুমি পরে অনুতাপ করবে।’ এই ঘটনা উল্লেখ করে দর্শনা বলেন, তিনি দুঃখিত কারণ সেদিন সেই কো-অর্ডিনেটরকে গণমাধ্যমে শিক্ষা না দিতে পারার জন্য। আর এও বলেন, অবশ্যই সেদিন তিনি কিছুই ছিলেন না, আর দুঃখিত, আজও কিছু হওয়ার তাড়াহুড়ো তাঁর নেই। দর্শনা বলেন, অনেকেই হয়ত এই ধরণের বিজ্ঞাপনে অভিনয় করেন, তাঁদের যেন অন্যভাবে বিচার না করা হয়, কারণ বড় শহরে তাঁদের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখা ব্যায়বহুল এবং কঠিন।

অভিনেত্রী এবং মডেল দর্শনা। ছবি ফেসবুক
অভিনেত্রী এবং মডেল দর্শনা। ছবি ফেসবুক

বর্ণবৈষম্য নিয়ে এই মূহুর্তে সারা পৃথিবী তীব্রভাবে সরব। পথে নেমেছে লক্ষ লক্ষ মানুষ। আট থেকে আশি সকলেই  সামিল হয়েছে এই প্রতিবাদের মিছিলে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও চলছে প্রতিবাদের ঝড়। আজকের এই বিজ্ঞানসম্মত, সুপার টেকনোলজি নির্ভর সভ্য পৃথিবীতে বর্ণ বৈষম্য-র মতো ঘৃণ্য মানসিকতাকে  প্রশ্রয় দেওয়াটাই অপরাধ। যাতে ত্বকের রঙ নিয়ে মানুষের চেতনা বদলায় সেই ভাবনা থেকেই, হিন্দুস্থান ইউনিলিভার তাঁদের অত্যন্ত জনপ্রিয় পণ্য ‘ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি ’ থেকে ‘ফেয়ার শব্দটি সরিয়ে দিয়েছে’। সংস্থার এই সিদ্ধান্তকে বিনম্র সম্মান জানিয়েছেন বলিউডের ডাস্কি বিউটি  বিপাশা বসু। একটা সময় শ্যামলা গায়ের রঙ নিয়ে বিপস-কেও অনেক অপত্তিকর মন্তবের সম্মুখীন হতে হয়েছে প্রতিনিয়ত। ছোট বেলা থেকেই তাঁর শ্যামলা গায়ের রঙ নিয়ে  নিজের আত্মীয় স্বজনদের মধ্যে চলত চাপা সমালোচনা। সুপার মডেল কন্টেস্ট জেতার পর ‘শ্যামলা মেয়ে’ বলেই তাঁর পরিচিতি হতে থাকে ইন্ডাস্ট্রিতে। সেই সময় বিনোদন দুনিয়ায় তাঁর গায়ের রঙ ছিল আলচনার মূল বিষয়। কিন্তু কিছু দিনের মধ্যেই, নায়িকা মানেই গায়ের রঙ ফর্সা, এই ধারণা পালটে গিয়ে এই বঙ্গ তনয়ার ডাস্কি বিউটির জোয়ারে ভাসতে থাকে বলিউড।

নিজের চাপা রঙের ঔজ্জ্বল্যে এবং আসাধারণ অভিনয়ের আবেদনে টেক্কা দিয়েছেন বলিউডের একের পর এক সুপারস্টারদের। কেরিয়ারের শুরুতে প্যারিস, নিউইয়র্কের নামজাদা ফ্যাশন শো গুলিতে বিপাশার এই শ্যামলা রঙই তাঁকে নিয়ে গিয়েছিল খ্যাতির শিরোনামে।

 

বন্ধ করুন