বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > বিয়ে না করেই সন্তানের মা 'স্প্লিটসভিলা' খ্যাত আনমোল, পাশে নেই বয়ফ্রেন্ড!
সদ্যজাত সন্তানের সঙ্গে আনমোল চৌধুরী। (ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস)
সদ্যজাত সন্তানের সঙ্গে আনমোল চৌধুরী। (ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস)

বিয়ে না করেই সন্তানের মা 'স্প্লিটসভিলা' খ্যাত আনমোল, পাশে নেই বয়ফ্রেন্ড!

  • রিয়েলিটি শো 'স্প্লিটসভিলা'-র ১০ নম্বর সিজনের অন্যতম জনপ্রিয় মুখ আনমোল চৌধুরী জন্ম দিয়েছেন এক সন্তানের।বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের ফলে জন্ম নেওয়া টানে এই সন্তানের ব্যাপারে মুখ খুললেন এই রিয়েলিটি শো তারকা।

ছোটপর্দার জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো 'স্প্লিটসভিলা'-র ১০ নম্বর সিজনের অন্যতম জনপ্রিয় মুখ ছিলেন আনমোল চৌধুরী। ওই সিজনে আরও এক প্রতিযোগী প্রিয়াঙ্ক শর্মার সঙ্গে দ্বৈরথ এক ধাক্কায় শোয়ের জনপ্রিয়তা বাড়িয়ে দিয়েছিল কয়েকগুণ। তবে আনমোল কিন্তু বিবাহ বহির্ভূত এক পুত্র সন্তানের মা-ও। গত বছরের সেপ্টেম্বরে সেই সন্তানের জন্ম দিয়েছেন তিনি। সম্প্রতি, নেটমাধ্যমে এই খবর ঘোষণা করেছেন স্বয়ং আনমোল। এরপর ফের একবার চর্চায় এই 'স্প্লিটসভিলা' খ্যাত তারকা। না, নতুন কোনও রিয়ালিটি শোয়ে অংশগ্ৰহণ করছেন না আনমোল। সদ্য, নিজের মা হওয়ার সমস্যা জর্জরিত যাত্রাপথ, প্রাক্তন প্রেমিকের অবহেলা এসব নিয়েই বিস্ফোরক হয়েছেন তিনি।

সদ্য সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আমল জানিয়েছেন বছর দু'য়েক সম্পর্ক থাকার পর তিনি এবং তাঁর প্রাক্তন প্রেমিক আলাদা হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। এরপর 'স্প্লিটসভিলা' তারকা জানতে পেরেছিলেন তিনি অন্তঃসত্বা।প্রথমে গর্ভপাত করানোর ব্যাপারে চিন্তাভাবনা করলে পরবর্তী সময়ে নিজের গর্ভে থাকা সন্তানের কথা ভেবে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন তিনি। গোটা বিষয়টি নিয়ে প্রকাশ্যে টুঁ শব্দটুকু পর্যন্ত করেননি তিনি। এমনকি বাড়িতেও জানাননি। 'বাড়িতে জানালে আমার পরিবার কিছুতেই মেনে নিত না। এমনকি আমার প্রাক্তন প্রেমিক পর্যন্ত আমাদের সন্তানের ভূমিষ্ঠ হওয়ার বিরুদ্ধে মত পোষণ করেছিল। বুঝেছিলাম এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরপরই একেবারে একা হয়ে গেছিলাম মা হওয়ার যাত্রাপথে। তবে ভয় পেয়ে সরে দাঁড়ায়নি। একমাত্র ছোট বোন এই গোটা সময়টায় পশে দাঁড়িয়েছিল!', জানালেন এই রিয়েলিটি শো তারকা।

 

সামান্য থেমে আনমোল আরও বলেন, 'অন্তঃসত্বা থাকাকালীন স্বাভাবিক নিয়মেই শরীরের ওজন বেড়ে গেছিল অনেকটাই। নেটমাধ্যমে তা নিয়ে আমাকে কম কথা শুনতে হয়নি। সবাই ভেবেছিলেন ওজন বেড়েছে আমার। সেইজন্য প্রচুর বিদ্রুপ,টিপ্পনিও সহ্য করতে হয়েছে আমাকে। একেকসময় মনে হত মোটা হওয়ার আসল কারণটা জানিয়ে দিই সব্বাইকে। তারপর আবার পিছিয়ে আসতাম সেই পদক্ষেপ নেওয়ার থেকে। শান্ত থাকাটা সেইসময় বড্ড প্রয়োজন ছিল আমার গর্ভে থাকা সন্তানের স্বাস্থ্যের জন্য। অতএব চুপ করে থাকা ছাড়া উপায় ছিল না আমার। ওদিকে একবার আমার সেই প্রাক্তন প্রেমিকও সেই অবস্থায় আমাকে সাহায্য করার কথা বলেছিল। যদিও সেবে পাত্তা দিইনি আমি। কারণ বুঝেছিলাম স্রেফ বলতে হয় বলে একথা বলছে সে। তারপর তাঁর ভয়ও ছিল যদি সন্তানের বাবা হিসেবে তাঁর নাম আমি জনসমক্ষে ফাঁস করে ফেলি!'

 

বক্তব্য শেষে তাঁর যোগ,' আমার মা হওয়ার সিদ্ধান্তের জন্য কোনও আক্ষেপ নেই। বিন্দুমাত্র নেই। আর আমার সন্তানের 'বাবা' যদি আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে চায়, সে ব্যাপারে বিন্দুমাত্র আপত্তি নেই আমার।'

 

বন্ধ করুন