স্বস্তিকা দত্ত (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
স্বস্তিকা দত্ত (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

'গত ৫ বছর শ্যুটিং ফ্লোরে কেটেছে জন্মদিন, লকডাউনে এই বছর বাড়িতে': স্বস্তিকা দত্ত

  • বৃহস্পতিবার অভিনেত্রী স্বস্তিকা দত্তের জন্মদিন। পাঁচ বছরে এই প্রথম জন্মদিনের দিন শ্যুটিং থেকে দূরে রয়েছেন নায়িকা। তাই মন খারাপ রাধিকার।

লকডাউনের জেরে লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশন থেকে দূরে রয়েছেন এক মাসেরও বেশি। শেষ পাঁচ বছরে কবে এতটা লম্বা ছুটি পেয়েছেন 'কি করে তোকে বলব' রাধিকা? প্রশ্নের উত্তর দিতে রীতিমতো হোঁচট খেতে হবে স্বয়ং স্বস্তিকা দত্তকে। ২৩শে এপ্রিল ছোটপর্দার এই জনপ্রিয় নায়িকার জন্মদিন। কিন্তু এই বছর ঘরবন্দিতেই কাটল তারকার জন্মদিন,অনেকটা ল্যাদ আর কিছুটা কাজের মধ্যে দিয়ে।

স্বস্তিকার কথায়, 'এই বছরে আনন্দ কম, আর আতঙ্ক বেশি। প্রত্যেক বছর জন্মদিনে সকালে উঠে স্মান সেরে ভগবানের কাছে পুজো দিয়ে প্রার্থনা করতাম যেন আমার সারা বছরটা ভালো যায়, এই বছর চেয়েছি মানুষগুলোকে সুস্থ রেখো'। ভজগোবিন্দর ডালি থেকে বিজয়িনীর কেকা-একের পর এক চরিত্রে দর্শক মনে জিতে নিয়েছেন স্বস্তিকা। এখন জেন ওয়াইয়ের হার্টথ্রব 'কি করে তোকে বলব'র রাধিকা হিসাবেও দর্শকদের ভালোবাসা কুড়োচ্ছেন নায়িকা। এদিন হিন্দুস্তান টাইমস বাংলার তরফে স্বস্তিকার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন গত পাঁচ বছর শ্যুটিং সেটেই জন্মদিনটা কাটত, তাই আজ একটু মন খারাপ নায়িকার।

তিনি জানান,'সবচেয়ে খারাপ লাগছে গত পাঁচ বছর ধরে সিরিয়ালের সেটে জন্মদিন পালন করতাম। বার্থ ডে-টা ফ্লোরেই কাটত সারাটা দিন।যেটা আমার কাছে ছিল সেরা প্রাপ্তি। এই বছর করোনার জন্য সেটা সম্ভবকর হল না। তবে শ্যুটিং আমি এইবছরও করেছি জন্মদিনে,কিন্তু বাড়ি বসে। আজ চ্যানেলের জন্য একটা শর্ট প্রোজেক্ট শ্যুট করলাম। তাই জন্মদিনে কাজেই ব্যস্ত রাখলাম নিজেকে'। শীঘ্রই করোনার কাঁটা সরে গিয়ে ছন্দে ফিরবে পৃথিবী আশাবাদী স্বস্তিকা।


প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে রাজ চক্রবর্তী পরিচালিত 'পারব না আমি ছাড়তে তোকে' ছবির সঙ্গে অভিনয় কেরিয়ার শুরু স্বস্তিকার। এরপর ছোটপর্দায় কাজ শুরু করেন অভিনেত্রী। ২০১৭ সালে স্টার জলসার 'ভজগোবিন্দ' সিরিয়ালের সুবাদে জনপ্রিয়তার শিখরে পৌঁছে যান স্বস্তিকা।

এদিন স্বস্তিকার জন্মদিনে তাঁর কো-স্টার ক্রুশাল আহুজা মানে কর্ণ, অভিনেত্রীর একগুচ্ছ ছবি পোস্ট করে লেখেন, 'শুভ জন্মদিন স্বস্তিকা। ট্রিট নিতে পারলাম না, লকডাউনের জন্য বেঁচে গেলি। কিন্তু লকডাউনের পর ভুলে যাব এমনটা ভাবিস না। যাই হোক, ভবগান তোর মঙ্গল করুক। সুরক্ষিত থাক। আর তোর মতো সহ-অভিনেতা পাওয়াটা সত্যি সৌভাগ্যের। জীবনে অনেক সাফল্য আসুক'। জবাবে স্বস্তিকা জানান, ধন্যবাদ পার্টনার এই ছবিগুলো দারুণ.. শোন বলছি উপহারটা তুই কী করবি জানিয়ে দিস,, কিভাবে পাঠাবি আর হ্যাঁ এইভাবেই আমাকে সহ্য করতে থাকিস!'


বন্ধ করুন