বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > প্রশংসার পরই সৃজিতের সমালোচনায় মুখর! ‘X=Prem’এর মহরত নিয়ে কটাক্ষ তসলিমার
তসলিমা-সৃজিত
তসলিমা-সৃজিত

প্রশংসার পরই সৃজিতের সমালোচনায় মুখর! ‘X=Prem’এর মহরত নিয়ে কটাক্ষ তসলিমার

  • ‘রে’ তে প্রশংসার পর ‘X=Prem’ এর মহরত নিয়ে পরিচালকের সমালোচনায় তসলিমা নাসরিন।

নেটফ্লিক্সে সদ্য মুক্তি পেয়েছেন সৃজিত মুখোপাধ্য়ায় পরিচালিত ছবি ‘রে’। ওয়েব সিরিজ দেখে প্রশংসায় পঞ্চমুখ ছিলেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন। যদিও ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই সৃজিতের সমালোচনা শোনা গেল তসলিমার মুখে। 

আসলে, মঙ্গসলবার লেখিকা তসলিমা তাঁর সামাজিক পাতায় লেখেন, আঁতেলদের নিন্দে মন্দ শুনেই ‘রে’ দেখার উৎসাহী জেগেছিল তাঁর মনে। লেখিকার মন্তব্য, ‘কয়েক- দশক- পুরোনো গল্পের এমন অবিশ্বাস্য আধুনিকীকরণ করতে সাহস তো দরকারই, কল্পনাশক্তি আর শিল্পবোধও প্রচণ্ড দরকার। ছক ভাঙা সোজা ব্যাপার নয়’।

যদিও একদিন কাটতে না কাটতেই সৃজিতের কাজে হতাশা প্রকাশ করেন তসলিমা নাসরিন। সৃজিতের নতুন বাংলা ছবি ‘X=Prem’ এর মহরত হয় মঙ্গলবার। মহরতের ছবি নিজের সামাজিক মাধ্যমের শেয়ার করেন পরিচালক। তাই দেখে তসলিমা ফেসবুকে দেওয়ালে লেখেন, ‘কাল রাতেই সৃজিতের ফরগেট মি নট দেখে তাঁকে চৃড়ান্ত স্মার্ট বলেই রায় দিয়েছিলাম। স্মার্ট মানেই তো আমার চোখে লৌকিকে বিশ্বাসী, অলৌকিকে নয়’।

আসলে লেখিকা নিজে নাস্তিক ও নিরীশ্বরবাদী। সৃজিতের নতুন সিনেমা ‘X=Prem’ এর ছবি দেখে তিনি হোঁচট খান। কখনও কোনও ধর্মে তাঁর বিশ্বাসকে সীমাবদ্ধ রাখেননি তসলিমা। তাই সৃজিত প্রসঙ্গে তিনি সামলোচনা করে লেখেন, ‘ঈশ্বরবিশ্বাসীরাও ট্যালেন্টেড হতে পারেন, তা তিনি অস্বীকার করছিন না'। 

লেখিকার কথায়, 'সৃজিত ঠিকই নিরীশ্বরবাদী, ছবির প্রযোজক করেছেন পুজোর আয়োজন, প্রযোজকদের তো টাকা পয়সা থাকলেই হয়, ট্যালেন্ট না থাকলেও চলে! যেহেতু প্রযোজক নেপথ্যে থাকেন, তাই গোটা সাজসজ্জার কৃতিত্ব পরিচালককে দিয়েই অভ্যেস আমাদের। সঙ্গে থাকে আমার বদ অভ্যেস। ও তো ছাড়তেই পারিনি’।

 

বন্ধ করুন