বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Nusrat-Yash: 'ইশানের জন্মের আগে আমার ওজন ছিল ৭৫ কেজি,তোমার জন্য মোটা হলাম,যশকে দুষতাম': নুসরত
ফিটনেস ফ্রিক নুসরত জাহান

Nusrat-Yash: 'ইশানের জন্মের আগে আমার ওজন ছিল ৭৫ কেজি,তোমার জন্য মোটা হলাম,যশকে দুষতাম': নুসরত

  • প্রসব পরবর্তী অবসাদের কথা নিয়ে অকপট নুসরত। কীভাবে সেটি সামাল দিলেন নায়িকা? 

তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে গত কয়েক মাসে কম কাটাছেঁড়া হয়নি। সমালোচনা, বিতর্ক কোনও কিছু নিয়েই তাঁরা মাথা ঘামাতে না-রাজ। গত কয়েক মাস যাবত তাঁরাই টলিগঞ্জের 'টক অফ দ্য টাউন'। ‘যশরত’ জুটিকে নিয়ে দর্শক মনে অজস্র প্রশ্ন। আসলে নুসরত-যশের বিতর্কিত প্রেম কাহিনি নিয়ে প্রশ্নের অন্ত নেই, তাই এতো কৌতুহল। তেমনই কিছু কৌতুহলে ভরা প্রশ্নের জবাব সম্প্রতি নুসরত দিয়েছেন এক সাক্ষাৎকারে। নিজের প্রেগন্য়ান্সি থেকে যশের সঙ্গে সংসার, সব নিয়ে খোলামেলা নায়িকা। 

নুসরত জানান ঈশানের জন্মের পর হতাশায় ভুগেছেন নুসরতও। তিনি টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে খোলাখুলি জানান, প্রসব পরবর্তী অবসাদের কথা। নুসরতের কথায়, ‘এটা স্বাভাবিক’। আর এই অবসাদ কাটিয়ে উঠকে কী পন্থা নিয়েছিলেন তিনি। অভিনেত্রী জানান, ‘আমি প্রত্যেকটা মুহূর্ত বেঁচেছি। ক্ষত শুকানোর মুহূর্তগুলো, বাচ্চার জন্ম দেওয়ার পরপরই কাজে যোগ দেওয়া। যশ এবং আমার বাবা-মা চাননি আমি ওত জলদি কাজে ফিরি (ঈশানের জন্মের ২ দুপ্তাহের মধ্যেই কাজে ফিরেছিলেন নুসরত)। ওদের মনে হয়েছিল আমি নিজের স্বাস্থ্যের কথা ভাবছি না। তবে আমার কাছে আমার মানিসক স্বাস্থ্যটা বেশি জরুরি ছিল। তাই কাজে ফেরা। তবে অবশ্য়ই কম সময় কাজ করেছি। আমি ছেলেকে খাওয়াতাম, কাজে যেতাম, আবার ফিরে ওকে খাওয়াতাম। এটা চ্যালেঞ্জিং তবে অসম্ভব নয়, এইভাবে আমি প্রসব-পরবর্তী ডিপ্রেশনের কাছে হেরে যায়নি’।

সন্তান জন্মের আগে নুসরতের শরীরেও বেবি-ফ্যাট জন্মেছিল। যদিও ঈশানের জন্মের মাস কয়েকের মধ্যেই ওজন ঝরিয়ে স্লিম অ্যান্ড ট্রিম নায়িকা। কীভাবে সম্ভব হল? অভিনেত্রী জানান, ‘আমার ওজন ছিল ৪৭ কেজি যখন আমি অন্তঃসত্ত্বা হই। আর যখন আমি আট মাসের গর্ভবতী তখন আমার ওজন ছিল ৭৫ কেজি! আমার ‘ক্রেজি’ হরমোনের পল্লায় পড়ে আমি যশকে কাঠগড়ায় তুলতাম। বলতাম, তোমার জন্য আমি মোটা হয়েছি! ও আমাকে প্রমিস করেছিল যে চিকিৎসক যখন আমাকে ওয়ার্ক আউট করবার অনুমতি দেবে ও আমাকে আগের মতো তন্বী দেহ ফিরে পেতে সাহায্য করবে। ঈশানের জন্মের তিন মাস পর থেকে আমি ওয়ার্ক আউট শুরু করি। আর গর্ব করে বলব, আমি এখন আগের চেয়েও বেশি শক্তিশালী আর ফিট। আমরা একসঙ্গে ওয়ার্ক আউট করি, জিমটা আমাদের জীবনের বিরাট অংশ। যশ এটা মানতে বাধ্য আমি ওর সবচেয়ে ভালো ছাত্রী। অন্য কেউ হলে পালিয়ে যেত ও এত কড়া!'

২০২১ সালের জানুয়ারিতে ‘বিবাহিত’ নুসরতের সঙ্গে যশের প্রেমের গুঞ্জন শুরু হয়। তবে মাস কয়েকের মধ্যেই সবটা পরিষ্কার হয়ে যায়। গত বছর অগস্ট মাসেই যশের সন্তানের মা হয়েছেন নুসরত। এরপর নিখিল জৈনের সঙ্গে নুসরতের বিয়ে ‘অবৈধ’ জানিয়ে দিয়েছে কোর্ট। যশরত একসঙ্গেই ঘর বেঁধেছেন, এমনকি ইঙ্গিত মিলেছে বিয়েটাও সেরে ফেলেছেন দুজনে। যশকে প্রকাশ্যে ‘স্বামী’ সম্বোধন করতে দেখা গিয়েছে নুসরতকে। প্রতিদিনই নতুন রঙ লাগে যশ-নুসরতের প্রেমে। ঈশান ও রেয়াংশকে (যশ ও তাঁর প্রথম স্ত্রী শ্বেতার সন্তান) নিয়ে এখন সুখের সংসার যশ-নুসরতের।

 

 

বন্ধ করুন