বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Laal Singh Chaddha: ‘তুমি আবার লেখক কবে হলে?’ ২ বছর লাল সিং চড্ডা-র স্ক্রিপ্ট শুনতেই রাজি হননি আমির!
অতুল কুলকার্নি ও আমির খান

Laal Singh Chaddha: ‘তুমি আবার লেখক কবে হলে?’ ২ বছর লাল সিং চড্ডা-র স্ক্রিপ্ট শুনতেই রাজি হননি আমির!

  • দু-সপ্তাহে অস্কারজয়ী ‘ফরেস্ট গাম্প’-এর হিন্দি সংস্করণ লিখে ফেলেছে ঘনিষ্ঠ বন্ধু! জানবার পর ২ বছর বন্ধুকে এড়িয়ে চলেন আমির খান। 

অস্কার জয়ী ছবি ‘ফরেস্ট গাম্প’-এর হিন্দি সংস্করণ ‘লাল সিং চড্ডা’। এতদিনে তো এটা সব্বাই জেনে গিয়েছে। তবে যারা ফরেস্ট গাম্প দেখেননি, তাঁদের জানিয়ে রাখি, এই ছবিটা মূলত এক ব্যক্তির চোখ দিয়ে একটা দেশের সমাজ-রাষ্ট্রব্যবস্থাকে দেখবার কাহিনি। পুরোদস্তুর আমেরিকার সেই গল্পকে ভারতীয় প্রেক্ষাপটে তুলে ধরবার কাজ সহজ ছিল না। তবে সেই কঠিন চ্যালেঞ্জটা লুফে নিয়েছিলেন আমিরের ‘রং দে বসান্তি’ কো-স্টার অতুল কুলকার্নি। তবে জানেন কী আমির খান ২ বছর এই ছবির চিত্রনাট্য শুনতেই রাজি হননি!

‘লাল সিং চড্ডা’র জার্নি শুরু হয়েছিল সেই ২০০৮ সালে। হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কাহিনিকার অতুল কুলকার্নি জানিয়েছেন ‘জানে তু ইয়া জানে না’ ছবির প্রিমিয়ার শেষে আমির খানের বাড়িতে হাজির হয়েছিলেন তাঁরা। সেখানেই পছন্দের ছবির প্রসঙ্গ ওঠায় আমির এবং অতুল দুজনেই টম হাঙ্কসের কালজয়ী ছবি ‘ফরেস্ট গাম্প’-এর নাম নিয়েছিলেন। অতুল জানায়, ‘পরদিন আমার আউটডোর শ্যুট ছিল। সেটি বাতিল হয়, আর আমার চোখ পড়ে ফরেস্ট গাম্পের ডিভিডি-র উপর। আমি সেটি ফের দেখে ফেলি। এরপর আমায় মাথায় একটা ভাবনা খেলে যায়, যদি এই ঘটনা ভারতে ঘটত? এরপর শুরু ভারতীয় প্রেক্ষাপটের কথা ভেবে এই ছবির স্ক্রিনপ্লে লেখবার কাজ’। 

ছবির চিত্রনাট্যের প্রথম খসড়া আগামী ১০ দিনেই তৈরি করে ফেলেছিলেন অতুল। আগামী ৩-৪ দিনের মধ্যে চিত্রনাট্যের দ্বিতীয় খসড়াও তৈরি করে ফেলেন তিনি। তবে এটা শেষ নয়, এটা ছিল আসল চ্যালেঞ্জের শুরু। 

অতুল বলেন, আমিরকে এই ব্যাপারটা জানালে অভিনেতা তাঁকে স্ক্রিপ্টটা পড়বার জন্য সময়ই দেননি। অতুল বলেন,'প্রথম দু বছর, আমির চিত্রনাট্যটা পড়েইনি। এমন নয়, ওইসময় আমাদের দেখা হয়নি, কথা হয়নি বা কোনও যোগাযোগ ছিল না।' আসলে টালবাহানা করছিলেন আমির। অবশেষে র্ধৈয্যের বাঁধ ভাঙে অতুলের। তিনি সরাসরি প্রশ্ন করতে জবাব আসে, ‘দেখো তুমি তো লেখক নও, এবার তুমি আমাকে বলছো তুমি ১৫ দিনে ফরেস্ট গাম্পের হিন্দি সংস্করণ লিখেছো। তুমি আমার ঘনিষ্ঠ বন্ধু, আমি তোমার এটা বলতে মন ভাঙতে চাই না, যে তুমি জঘন্য লিখেছো। তাই শুনছি না চিত্রনাট্যটা’। 

পালটা অতুল জানিয়েছিলেন, ওই চিত্রনাট্য যদি আমির ডাস্টবিনে ফেলে দেন তাহলে কুছ পরোয়া নেই। তবে আগে পড়তে হবে।  মাত্র দু-সপ্তাহে লেখা অভিনেতা অতুলের ওই চিত্রনাট্য এতটাই মনে ধরে আমিরের, যে এই ছবিতে শুধু অভিনয় নয়, প্রযোজনার দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন আমির। 

এরপর শুরু অপেক্ষার পালা! প্যারামাউন্ট পিকচার্সের কাছ থেকে ‘ফরেস্ট গাম্প’-এর স্বস্ত্ব কিনতেই আরও ১০ বছর কেটে যায়। সেটা পাওয়ার পরই এই ছবির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা সারেন আমির। 

সারা বিশ্বে ‘ফরেস্ট গাম্প’-এর গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে। বহু ভারতীয় সিনেপ্রেমীও এই ছবি দেখেছে। তারা কী এই ছবি দেখতে হলমুখী হবেন? অতুলের বিশ্বাস, ‘এটা সম্পূর্ণরূপে একটা  দেশি ছবি। যাঁরা ফরেস্ট গাম্প দেখেছেন তাঁরা জানেন এই ছবির রিমেক অসম্ভব। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কোনও রেফারেন্স এখানে টানা যাবে না, পুরোটাই নতুন করে লেখা। ছবির মূল ভাবনাটা এক, একটা অতিসাধারণ মানুষের জার্নি-এইটুকুই’। 

অদ্বৈত চন্দন পরিচালিত এই ছবিতে আমিরের নায়িকা করিনা কাপুর খান। আগামী ১১ অগস্ট মুক্তি পাবে ‘লাল সিং চড্ডা’। 

 

বন্ধ করুন