আরোগ্য সেতু অ্যাপ  (AP)
আরোগ্য সেতু অ্যাপ  (AP)

আরোগ্য সেতু অ্যাপ থেকে নিজের ডেটা ডিলিট করতে পারেন ৩০ দিনের মধ্যে, জানাল কেন্দ্র

অবশেষে সিকিউরিটি প্রটোকল দিল কেন্দ্রীয় সরকার। 

করোনা কন্ট্যাক্ট ট্রেসিংয়ের জন্যে এখন কার্যত বাধ্যতামূলক আরোগ্য সেতু অ্যাপের ব্যবহার। কিন্তু নিরাপত্তা ও গোপনীয়তা বজায় রাখার দিক থেকে কতটা ভরসা রাখা যায় আরোগ্য সেতুর ওপর, এই নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। বিরোধীরা অভিযোগ করেছে, আরোগ্য সেতু নিছকই আড়ি পাতার যন্ত্র। করোনা পজিটিভ ব্যক্তির লোকেশন এই অ্যাপ বলে দেয়, দাবি করেন ফরাসি হ্যাকার। দেশে-বিদেশে সমালোচনার মধ্যে অবশেষে কেন্দ্র জানাল যাদের ডেটা এই অ্যাপে স্টোর আছে, তারা চাইলে সেটা ডিলিট করে দেওয়ার অনুরোধ জানাতে পারেন। 

সরকারের তরফ থেকে প্রোটোকল জানানো হয়েছে ডেটা স্টোরেজ, প্রসেসিং, কালেকশনের জন্য। ‘Aarogya Setu Emergency Data Access and Knowledge Sharing Protocol, 2020’ আগামী ছয় মাসের জন্য বলবত্ থাকবে। অ্যাপে যে ডেটা সংগ্রহ করা হবে, সেটি এখন ১৮০ দিন স্টোর করা হবে। আগে এটা ৬০ দিনের জন্য জমা রাখা হত। 

সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রক ও রাজ্যদের মধ্যে তথ্য শেয়ার করার প্রয়োজন আছে বলে লেখা আছে প্রটোকলে। সমস্ত ডেটার দায়িত্বে থাকবে ন্যাশনাল ইনফর্মেটিক্স সেন্টার। কেন্দ্র জানিয়েছে শুধু যারা আক্রান্ত, যাদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ও যারা আক্রান্তদের সংস্পর্শে এসেছেন, তাদের তথ্যই জমা রাখা হবে। এর মধ্যে আছে ডেমোগ্রাফি, যোগযোগ, সেল্ফ অ্যাসেসমেন্ট ও লোকেশন ডেটা। 

এই তথ্য সরকার প্রয়োজনে নিজের সার্ভারে আপলোড করতে পারে করোনা রোধে নীতি প্রণয়নের ক্ষেত্রে। এমনি ক্ষেত্রে কারা আক্রান্ত তথ্য সেটি শেয়ার করা হবে না। তবে খুব বিশেষ ক্ষেত্রে সেই তথ্য শেয়ার করা হতে পারে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য সম্পর্কিত পদক্ষেপের জন্য। 

আপাতত ছয় মাসের জন্য এই সকল নিয়মাবলী চালু থাকবে। তারপর এই অ্যাপের প্রয়োজনীয়তা আছে কিনা, সেটা খতিয়ে দেখবে সরকার। অধিকাংশ ক্ষেত্রে কন্ট্যাক্ট, লোকেশন ও সেল্ফ অ্যাসেসমেন্ট ডেটা ১৮০ দিন পরে ডিলিট হয়ে যাবে। কিন্তু ডেমোগ্রাফিক ডেটা থেকে যাবে যতদিন প্রোটোকলটি থাকবে। কেউ নিজের তথ্য ডিলিট করতে বললে ৩০ দিনের মধ্যে সেটি ডিলিট হয়ে যাবে। 

বিভিন্ন সরকারি এজেন্সি ও রাজ্য সরকারের সঙ্গে এই ডেটা শেয়ার করার নিয়ম আছে। কিন্তু এমনভাবে সেটা শেয়ার করতে হবে যাতে কোনও ব্যক্তির তথ্য আলাদা করে না জানা যায়। অর্থাত্ সমষ্টিগত তথ্য শেয়ার করা যাবে কিন্তু কোনও ব্যক্তির তথ্য আলাদা করে শেয়ার করা হবে না। কারা এই তথ্য পেলেন, সেই লগ রাখবে এনআইসি। 

এই প্রটোকল ভঙ্গ করলে দুই থেকে পাঁচ বছর জেল হতে পারে। রিসার্চ ইনস্টিটিউটগুলিও এই ডেটা ব্যবহার করতে পারবে। 

 

বন্ধ করুন