বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ভোটের মুখে উত্তরপ্রদেশ বিজেপিতে বড় ভাঙন! যোগীর মন্ত্রী যোগ দিলেন সপা শিবিরে
স্বামী প্রসাদ মৌর্যর সঙ্গে অখিলেশ যাদব। ছবি সৌজন্য অখিলেশ যাদবের টুইটার প্রোফাইল।
স্বামী প্রসাদ মৌর্যর সঙ্গে অখিলেশ যাদব। ছবি সৌজন্য অখিলেশ যাদবের টুইটার প্রোফাইল।

ভোটের মুখে উত্তরপ্রদেশ বিজেপিতে বড় ভাঙন! যোগীর মন্ত্রী যোগ দিলেন সপা শিবিরে

  • দলিত ও কৃষকদের প্রতি সরকারের অবহেলার বিরোধিতা করেই স্বামী প্রসাদ মৌর্য দল পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, বলে জানিয়েছেন।

ভোটের আগে দলবদলের ছবি এবার উত্তরপ্রদেশে। ইতিমধ্যেই ২০২২ উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনের নির্ঘণ্ট ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। তারপর থেকে সমস্ত দল নিজের মতো করে ঘুঁটি সাজাচ্ছে। এদিকে, তার মাঝে বিজেপির যোগী মন্ত্রিসভা ছেড়ে অখিলেশের সমাজবাদী পার্টিতে যোগ দিলেন স্বামী প্রসাদ মৌর্য। ভোটের কাউন্টডাউনেপ মাঝে যোগীগড়ে এই দলবদল সেখানের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে ব্যাপক প্রভাব ফেলবে বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিকে, 'পদ্ম'শিবির ছেড়ে 'সাইকেল' ক্যাম্পের দিকে যাওয়ার কারণ হিসাবে স্বামী প্রসাদ মৌর্য একাধিক কারণ তুলে ধরেছেন। রাজ্যপালকে লেখা এক চিঠিতে তিনি জানিয়েছেন, দলিত ও কৃষকদের প্রতি সরকারের অবহেলার বিরোধিতা করেই তিনি দল পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এছাড়াও রাজ্য়ো ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প অনুন্নতি এবং বেড়ে চলা বেকারত্বের দিকে তাকিয়ে তিনি বিজেপি সরকারের হাত ছেড়েছেন বলে জানিয়েছেন। এদিকে, ভোট আসতে যখন আর মাঝে মাত্র কয়েকদিন বাকি, তখন দলের এই ভাঙনের জেরে ড্যামেজ কন্ট্রোলে নেমেছে বিজেপিও। বিজেপির তরফে রাজ্যের উপমুখ্যমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌর্য এক টুইটে স্বামী প্রসাদ মৌর্যকে আলোচনায় বসার প্রস্তাব দেন। টুইটে কেশব প্রসাদ মৌর্য লেখেন, 'তাড়াহুড়োতে নেওয়া সিদ্ধান্ত বেশিরভাগ সময় ভুল প্রমাণিত হয়।' ফলে স্বামী প্রসাদের সঙ্গে বিজেপি যে আলোচনার রাস্তা খোলা রেখেছে তা বলাই বাহুল্য।

 

এদিকে, উত্তরপ্রদেশের বুকে এমন একজন দাপুটে নেতার দলে যোগদানকে স্বাগত জানিয়েছেন সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব। এক টুইটে অখিলেশ লেখেন, 'সামাজিক ন্যায়ের জন্য চিরকালই সরব হয়েছেন মৌর্য। তিনি জনতার মধ্যে জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। আমি তাঁকে ও বাকি নেতা কর্মীদের সমাজবাদী পার্টিতে স্বাগত জানাই।' উল্লেখ্য, এই দলবদল বিজেপির শিবিরে কতটা প্রভাব ফেলবে, বা সমাজবাদী পার্টির দিকে ভোটের হাওয়া কতটা ঘোরাবে সেদিকে তাকিয়ে রয়েছে রাজনৈতিক মহল। উল্লেখ্য, উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনে একাধিক ওপিনিয়ন পোল বলছে, বিজেপি ফের একবার এখানে মসনদ দখল করতে পারে। তবে ভোট আগের ২০১৭ বিধানসভা নির্বাচন থেকে অনেকটাই কমবে যোগী শিবিরে। সেখানে অখিলেশের সপা শিবিরে গত বিধানসভা নির্বাচনের তুলনায় ভোট বাড়লেও সরকার গড়ার দিকে সেভাবে তাঁরা এগিয়ে যেতে পারবেন না বলে মত ওপিনিয়ন পোলের। তবে ১০ মার্চ জানা যাবে এই সমস্ত সমীক্ষা কতটা ঠিক বা ভুল। কারণ সেদিনই প্রকাশ্যে আসবে এই হাইভোল্টেজ নির্বাচনের ফলাফল।

 

বন্ধ করুন