বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Joshimath review Meeting: ঘর ছাড়া বহু, ফাটল চওড়া হচ্ছে বাড়িতে! যোশীমঠের সংকট পরিস্থিতি নিয়ে জরুরি বৈঠকে অমিত শাহ

Joshimath review Meeting: ঘর ছাড়া বহু, ফাটল চওড়া হচ্ছে বাড়িতে! যোশীমঠের সংকট পরিস্থিতি নিয়ে জরুরি বৈঠকে অমিত শাহ

যোশীমঠের পরিস্থিতি ঘিরে উদ্বেগ. (PTI) (HT_PRINT)

যেভাবে সেখানে মানুষ কষ্টকর পরিস্থিতির মধ্যে রাতের পর রাত কাটাচ্ছেন, তা লাঘব করতে প্রশাসন কী কী বন্দোবস্ত করছে, তা জানতে চেয়েছেন অমিত শাহ। এর আগে, যোশীমঠের পরিস্থিতি নিয়ে ন্যাশনাল ক্রাইসিস ম্যানেজমন্টের তরফে একটি বিশেষ বৈঠক সম্পন্ন হয়।

ক্রমেই সংকটের মেঘ জোরালো হচ্ছে উত্তরাখণ্ডের যোশীমঠের উপর। যোশীমঠ ছাড়া রুদ্রপ্রয়াগ, কর্ণপ্রয়াগে বহু বাড়িতে দেখা যাচ্ছে চওড়া ফাটল। বাড়ি ছাড়াও হোটেলগুলিতে দেখা গিয়েছে ফাটল। এলাকার পরিস্থিতি নিয়ে পর্যবেক্ষণমূলক বৈঠকে বসেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আরকে সিং, ভূপেন্দ্র যাদব, নীতীন গড়করি, গজেন্দ্র শেখাওয়াত।

চার কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে নিয়ে এই বৈঠকে যোশীমঠের জলবিদ্যুৎ প্রকল্প থেকে রাস্তা উন্নয়ন সম্পর্কিত নানান দিকের খোঁজ অমিত শাহ নিয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে। তিনি জানতে যান, যোশীমঠের বর্তমান পরিস্থিতি, আর কঠিন পরিস্থিতিকে মোকাবিলায় কী কী ব্য়বস্থা নেওয়া হয়েছে, তার খতিয়ানও তিনি জানতে চান। যেভাবে সেখানে মানুষ কষ্টকর পরিস্থিতির মধ্যে রাতের পর রাত কাটাচ্ছেন, তা লাঘব করতে প্রশাসন কী কী বন্দোবস্ত করছে, তা জানতে চেয়েছেন অমিত শাহ। এর আগে, যোশীমঠের পরিস্থিতি নিয়ে ন্যাশনাল ক্রাইসিস ম্যানেজমন্টের তরফে একটি বিশেষ বৈঠক সম্পন্ন হয়। সেখানেও বারবারহ জোর দেওয়া হয় এলাকাবাসীদের নিরাপদে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে আসা নিয়ে। বৈঠক থেকে বার্তায় স্পষ্ট করা হয়েছে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এলাকা খালি করতে হবে। যতটা জলদি সম্ভব ততটাই এই স্থানান্তরকরণের কাজ সম্পন্ন করার বার্তা দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই উত্তরাখণ্ড সরকার সাময়িক ত্রাণ হিসাছু এই ত্রাণের ঘোষণা করা হয়েছে। 

এছাড়াও কেন্দ্রীয় ক্যাবিনেট সেক্রেটারি রাজীব গৌবা জানিয়েছেন, যে বাড়িগুলিকে বিপজ্জনক ঘোষণা করা হয়েছে, সেই বাড়িগুলি নিরাপদে ধ্বংসের দিকেও যেন নজর দেওয়া হয়। উল্লেখ্য, উত্তরাখণ্ড সরকার আজ জানিয়েছে, আপাতত দুটি বিপজ্জনক হোটেল ছাড়া কোনও ইমারত যোশীমঠে এখন ভাঙা হবে না। উল্লেখ্য, ওই দুই হোটেল একে অপরের দিকে হেলে গিয়েছিল। তার থেকেই বিপদের আশঙ্কা করা হয়। তারপরই নেওয়া হয় এই সিদ্ধান্ত। এদিকে, বাড়িগুলির আনুমানিক মূল্য কত হতে পারে তা নির্ধারণ করতে একটি কমিটি গঠনের কথা বলেছেন উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী পুষ্কর সিং ধামি। যে মূল্যের অঙ্ক ঘিরে প্রশাসন ক্ষতিপূরণের অঙ্ক নির্ধারণ করতে পারবে বলে মনে করা হচ্ছে।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

বন্ধ করুন