বাড়ি > ঘরে বাইরে > পঞ্জাবে বিষাক্ত মদের জেরে মৃত বেড়ে ৯৮, পরিবারের বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অভিযোগ
রবিবার তর্ন তারন জেলা হাসপাতালের বাইরে শোকে ভেঙে পড়েছেন মৃতের আত্মীয়েরা। ছবি: পিটিআই। (PTI)
রবিবার তর্ন তারন জেলা হাসপাতালের বাইরে শোকে ভেঙে পড়েছেন মৃতের আত্মীয়েরা। ছবি: পিটিআই। (PTI)

পঞ্জাবে বিষাক্ত মদের জেরে মৃত বেড়ে ৯৮, পরিবারের বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অভিযোগ

  • পুলিশের একাংশের দাবি, বার বার প্রচার করা সত্ত্বেও বিষাক্ত মদ পান করে মৃত্যু হলে বহু পরিবার পুলিশকে জানায়নি।

পঞ্জাবে বিষাক্ত  মদে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৯৮ জনে দাঁড়ল। রবিবার তর্ন তারনে ১২ জনের মৃত্যুর খবর আসার পরে মোট সংখ্যা বেড়েছে। 

ডেপুটি পুলিশ কমিশনার কুলওয়ান্ত সিং ফোনে জানিয়েছেন, ‘তর্ন তারনে আপাতত মৃতের সংখ্যা ৭৫।’ তবে তিনি জানিয়েছেন, গত দুই দিনে মৃতদেহের সৎকার হয়ে যাওয়ার পরে এই তথ্য জোগাড় করা হয়েছে। তাঁর দাবি, বেশ কিছু পরিবার দেহের ময়না তদন্ত করার বিষয়েও উদ্যোগ নেয়নি। এমনকি পুলিশের একাংশের দাবি, বার বার প্রচার করা সত্ত্বেও বিষাক্ত মদ পান করে মৃত্যু হলে বহু পরিবার পুলিশকে জানায়নি। 

গত রবিবার গ্রামাঞ্চলে কমপক্ষে ৩০টি গোপন ঘাঁটিতে হানা দিয়ে বেআইনি মদ ব্যবসায় জড়িত সন্দেহে ৬ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। 

এ দিকে বিষাক্ত মদ পান করে মৃত্যুর জেরে পঞ্জাবে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে নেমেছে বিরোধী আম আদমি পার্টি। পাতিয়ালা, বার্নালা, পাঠানকোট ও মোগা সরকার-বিরোধী প্রতিবাদ অবস্থান দেখা গিয়েছে। 

তর্ন তারনে মৃতদের বাড়ি গিয়ে তাঁদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন আপ সাংসদ ভগওবন্ত মান। ঘটনার বিচারবিভাগীয় তদন্ত দাবি করেন সাংসদ। প্রসঙ্গত, এই বিষয়ে ইতিমধ্যে বিচারপতির অধীনে অনুসন্ধানের নির্দেশ দিয়েছে পঞ্জাব সরকার। একই সঙ্গে ঘটনার জেরে শুল্ক দফতরের ৭ জন এবং পুলিশের ৬ আধিকারিককে শনিবার সাসপেন্ড করেছেন মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং।

বিষাক্ত মদে মৃত্যুর জেরে এখনও পর্যন্ত কমপক্ষে ২৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পঞ্জাব পুলিশ। তিন জেলায় একশোর বেশি তল্লাশি অভিযান চালিয়ে গ্রাম ও রাস্তার ধারের ধাবা থেকে কয়েকশো লিটার বোইনি মদ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। পঞ্জাবের পুলিশ প্রধান দিনকর গুপ্তা ঘটনার জন্য পুলিশ ও শুল্ক বিভাগের লজ্জাজনক গাফিলতিকে দায়ি করেছেন। 

রাজ্য সরকার মৃতদের পরিবারপ্রতি এককালীন ২ লাখ টাকা অনুদান ঘোষণা করেছে।

বন্ধ করুন