বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > স্টেডিয়ামে ইউক্রেনের দল, অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঘুমে ঢলে পড়লেন পুতিন
অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঘুমে ঢলে পড়লেন পুতিন (ছবি সৌজন্যে টুইটার)

স্টেডিয়ামে ইউক্রেনের দল, অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঘুমে ঢলে পড়লেন পুতিন

  • অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান চলাকালীন যখন স্টেডিয়ামে ইউক্রেনের দল প্রবেশ করে, তখন ভ্লাদিমি পুতিন ঘুমিয়ে পড়েন।

বেজিংয়ের শীতকালীন অলিম্পিকে আমন্ত্রিত হয়েছেন বহুদেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা। তাঁদের মধ্যে অন্যতম হলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এককালে কেজিবিতে কাজ করা এই প্রাক্তন গুপ্তচরকে বিশ্ব জানে এক প্রাণবন্ত মানুষ হিসেবে। তাঁকে বিভিন্ন সময়ে দেখা গিয়েছে জুডোর ম্যাট থেকে ঘোড়ার পিঠে। আর এই ভ্লাদিমির পুতিনই কিনা অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঘুমিয়ে পড়লেন! পশ্চিমা মিডিয়ার খবর অনুযায়ী, অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান চলাকালীন যখন স্টেডিয়ামে ইউক্রেনের দল প্রবেশ করে, তখন ভ্লাদিমি পুতিন ঘুমিয়ে পড়েন বা ঘুমোনোর ভান করেন। উল্লেখ্য, বিগত বহু মাস ধরেই ইউক্রেনের সঙ্গে রাশিয়ার সংঘাত চলছে। এই পরিস্থিতিতে গোটা ইউরোপই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। আমেরিকার সঙ্গে রাশিয়ার সম্পর্কের অবনতি ঘটেছে।

যখন ইউক্রেনের দলটি ‘বার্ড নেস্ট’ খ্যাত বেজিংয়ের ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে ঢুকছিল তখন, ক্যামেরায় ধরা পড়ে যে রাশিয়ান রাষ্ট্রনেতা তার চেয়ারে ঢলে পড়েছেন এবং চোখ বুঁজে আছে। যেন তিনি এইমাত্র ঘুমিয়ে পড়েছেন। এই ঘটনা কাকতালীয় হতে পারে। যদিও এর নেপথ্যে রাজনৈতিক ইঙ্গিতও দেখছেন অনেকে। উল্লেখ্য, বর্তমানে ইউক্রেন সীমান্তে রাশিয়ার লক্ষাধিক সেনা মোতায়েন রয়েছে। আমেপিকার শঙ্কা, যেকোনও সময় রাশিয়া ইউক্রেন দখলের জন্য ঝাঁপাতে পারে।

ইতিমধ্যেই ইউক্রেন ইস্যুতে পশ্চিমা দেশ ও মস্কোর মধ্যে বহু দফায় আলোচনা হয়েছে। কিন্তু তাতে লাভ হয়নি। ওই এলাকা থেকে এখনও অনড় রাশিয়ান সৈন্যরা। রাশিয়ার দাবি, আমেরিকাকে নিশ্চিত করতে হবে যে ইউক্রেন কোনওদিন ন্যাটোতে যোগ দেবে না। পাশাপাশি পূর্বতন কোনও সোভিয়েট দেশে ন্যাটো তাদের অস্ত্র বা ক্ষেপণাস্ত্র বসাতে পারবে না।

উল্লেখ্য, এই অলিম্পিকে যেন খেলাধুলোর থেকে বেশি নজর রাজনীতির উপর। গালওয়ান উপত্যকার সংঘর্ষে অংশ নেওয়া চিনা সেনা এই অলিম্পিকের মশালবাহক হয়েছিলেন। এর জেরে ভারত কূটনৈতিক ভাবে এই অলিম্পিক বয়কট করছে। আবার আমেরিকা, ফ্রান্স সহ একাধিক দেশও এই অলিম্পিকে নিজেদের কূটনীতিকদের পাঠাচ্ছে না উইঘুর মুসলিমদের উপর অত্যাচারের প্রতিবাদে।

বন্ধ করুন