বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > মদের বিক্রি বাড়াতে বৈঠক ভেস্তে গেল, কংগ্রেসের চাপে পিছু হটল বিজেপির সরকার
বৈঠকটি ছিল রাজ্যে মদের সংগ্রহের পরিমাণ বাড়ানো নিয়ে।
বৈঠকটি ছিল রাজ্যে মদের সংগ্রহের পরিমাণ বাড়ানো নিয়ে।

মদের বিক্রি বাড়াতে বৈঠক ভেস্তে গেল, কংগ্রেসের চাপে পিছু হটল বিজেপির সরকার

  • কংগ্রেস আওয়াজ তোলে রাজ্য সরকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ‘‌মদ মুক্ত’‌ রাজ্য গড়ে তুলবে।

বিরোধী দল কংগ্রেসের চাপে পিছু হটল বিজেপি সরকার। মধ্যপ্রদেশের বাণিজ্যিক কর দফতর বৈঠক ডেকেও তা বাতিল করে দিল। বৈঠকটি ছিল রাজ্যে মদের সংগ্রহের পরিমাণ বাড়ানো নিয়ে। এই কথা জানতে পেরে মাঠে নেমে পড়ে কংগ্রেস। তাতে প্রবল বিতর্ক তৈরি হয়। কংগ্রেস আওয়াজ তোলে রাজ্য সরকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ‘‌মদ মুক্ত’‌ রাজ্য গড়ে তুলবে। মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান নিজে এই কথা ঘোষণা করেছিলেন। তাহলে এখন কেন ব্যতিক্রম হচ্ছে?‌ উঠেছে প্রশ্ন।

ঠিক কী নিয়ে বিতর্ক?‌ জানা গিয়েছে, সোমবার একটি সার্কুলার জারি করা হয়। যেখানে বাণিজ্যিক কর দফতরের ডেপুটি সচিব বৈঠক ডাকে আবগারি দফতরের কমিশনার এবং ডেপুটি কমিশনারকে। সেখানে উল্লেখ করা হয় রাজ্যে মদ সংগ্রহ বাড়ানো নিয়ে বৈঠক হবে। বিষয়টি প্রকাশ্যে এসে যাওয়াতেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

বিতর্ক এমন জায়গায় পৌঁছয় যে, বাধ্য হয়ে বৈঠক বাতিল করে দেওয়া হয়। তখন আবগারি দফতর একটা সাধারণ বৈঠক ডাকে। আর সেখানে মদ থেকে কত আয় হচ্ছে তা নিয়ে আলোচনা চলে। এই দফতরের কমিশনার রাজীব দুবে বিষয়টি ঢাকতে জানান, অন্যান্য বৈঠক আগে থেকেই স্থির হয়ে ছিল। তাই ওই বৈঠক বাতিল হয়েছে।

যদিও নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক আবগারি দফতরের এক অফিসার বলেন, ‘‌বৈঠকটি ডাকা হয়েছিল মদ থেকে আয় কেন কমে গিয়েছে রাজ্যে। প্রায় ১০ শতাংশ কমে গিয়েছে মদ বিক্রি। আবগারি সংশোধনী আইন জারি করার পর থেকেই আয় কমেছে। এখন দোকানদাররা কত মদ কিনছে তার বিল দিতে হয়। আর বিক্রি করছে বিল ছাড়া। তাতে কালোবাজারি বেড়ে চলেছে।’‌ কংগ্রেস বিধায়ক গোবিন্দ সিং বলেন, ‘‌রাজ্য সরকার এবং বিজেপি নেতারা নাটক করতে শুরু করেছে। মুখে বলছেন মদ মুক্ত রাজ্য করবেন। আর বাস্তব হল মানুষকে মদ সংগ্রহের দিকে ঠেলে দিচ্ছেন।’‌

বন্ধ করুন