বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > গাজওয়া-ই-হিন্দ ফতোয়া! ইসলামিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দারুল উলুম দেওবন্দের বিরুদ্ধে এইআইআর করার নির্দেশ

গাজওয়া-ই-হিন্দ ফতোয়া! ইসলামিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দারুল উলুম দেওবন্দের বিরুদ্ধে এইআইআর করার নির্দেশ

শিশুর অধিকার রক্ষায় নিয়োজিত কমিশন এবার বড় নির্দেশ দিল। প্রতীকী ছবি 

গাজোয়া-ই হিন্দের ধারনা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। সামগ্রিকভাবে তাদের ফতোয়াকে ঘিরে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে NCPCR। 

শীর্ষস্থানীয় শিশু অধিকার সংস্থা এনসিপিসিআর উত্তরপ্রদেশ সরকারকে এবার বড় নির্দেশ দিয়েছে। একটি বিখ্যাত ইসলামিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলুম দেওবন্দের ওয়েবসাইটে কথিত আপত্তিকর বিষয়বস্তু সম্পর্কে জানার পরে এফআইআর দায়ের করতে এবং আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। উত্তরপ্রদেশ সরকারকে এই নির্দেশ দিয়েছে জাতীয় শিশু সুরক্ষা ও অধিকার রক্ষা কমিশন। হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদন অনুসারে জানা গিয়েছে। খবর পিটিআই সূত্রে। 

সাহারানপুর জেলার সিনিয়র পুলিশ সুপারকে (এসএসপি) দেওয়া একটি চিঠিতে, জাতীয় শিশু অধিকার সুরক্ষা কমিশনের (এনসিপিসিআর) চেয়ারপার্সন প্রিয়াঙ্ক কানুনগো দেওবন্দের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত একটি ফতোয়া সম্পর্কে কমিশনের উদ্বেগের কথা তুলে ধরেছেন।

আলোচ্য ফতোয়ায় 'গাজওয়া-ই-হিন্দ' ধারণাটি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে এবং 'ভারতে আক্রমণের প্রেক্ষাপটে শহিদদের' গৌরবান্বিত করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

জুভেনাইল জাস্টিস অ্যাক্ট, ২০১৫-এর ৭৫ ধারা লঙ্ঘনের অভিযোগের উপর জোর দিয়ে চিঠিতে কানুনগো বলেন, এই ফতোয়া শিশুদের নিজের দেশের বিরুদ্ধে ঘৃণা প্রকাশ করার উৎসাহ দেবে এবং শেষ পর্যন্ত তাদের অপ্রয়োজনীয় মানসিক বা শারীরিক কষ্ট দেবে।

এনসিপিসিআর সিপিসিআর আইন, ২০০৫-এর ১৩ (১) ধারা প্রয়োগ করে জাতির বিরুদ্ধে ঘৃণা উস্কে দেওয়ার জন্য এই জাতীয় বিষয়বস্তুর সম্ভাবনার উপর জোর দিয়েছিল।

কানহাইয়া কুমার বনাম এনসিটি অফ দিল্লি মামলা সহ আইনি নজিরের কথা উল্লেখ করে কমিশন রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অপরাধ হিসাবে বিবেচিত হতে পারে এমন অভিব্যক্তির গুরুত্বের উপর জোর দিয়েছে।

চিঠিতে ২০২২ সালের জানুয়ারি ও ২০২৩ সালের জুলাই মাসে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে একই ধরনের উদ্বেগ নিরসনে কমিশনের পূর্ববর্তী প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

এই প্রচেষ্টা সত্ত্বেও এখনও পর্যন্ত কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি, এনসিপিসিআর বলেছে যে এই জাতীয় বিষয়বস্তু প্রচারের ফলে যে কোনও প্রতিকূল পরিণতির জন্য জেলা প্রশাসনকে দায়ী করা যেতে পারে।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে, এনসিপিসিআর ভারতীয় দণ্ডবিধি এবং জুভেনাইল জাস্টিস অ্যাক্ট, ২০১৫-এর অধীনে দারুল উলুম দেওবন্দের বিরুদ্ধে আইনি প্রক্রিয়া শুরু করার নির্দেশ দিয়েছে।

কমিশন তিন দিনের মধ্যে অ্যাকশন টেকেন রিপোর্ট জমা দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছে।

ঘরে বাইরে খবর

Latest News

ফের আত্মহত্যার কালো ছায়া বিনোদন জগতে, বাড়ি থেকে দেহ উদ্ধার জনপ্রিয় পরিচালকের আজ কলকাতায় কী কী গাড়ি চলবে না? কোন কোন রাস্তায় ঘোরানো হবে গাড়ি? দেখে নিন আগেই ধনু-মকর-কুম্ভ-মীনের রবিবার কেমন কাটবে? জানুন রাশিফল 9 ওভার শেষে Seattle Orcas-র স্কোর 75/2 সিংহ-কন্যা-তুলা-বৃশ্চিকের কেমন কাটবে রবিবার? জানুন রাশিফল মেষ-বৃষ-মিথুন-কর্কট রাশির কেমন কাটবে রবিবার? জানুন রাশিফল ২১ জুলাইয়ে ৭ জেলায় সতর্কতা, ভারী বৃষ্টি চলবে তারপরেও, নিম্নচাপের প্রভাব কতদিন? 2025 IPL-এ কত জনকে রিটেন করা যাবে? স্যালারি ক্যাপ কি হবে?ঠিক হতে পারে মাসের শেষে ‘আমি রাজাকার’, সবথেকে ‘ঘৃণ্য’ শব্দই কীভাবে বাংলাদেশের পড়ুয়াদের স্লোগান হয়ে উঠল? শুভাশিসের সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে মনামী? ৪০-এ এসে আইবুড়ো নাম ঘোচানোর তোড়জোর শুরু

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.