ঘরে ফিরছেন লকডাউনের জেরে আচমকা কর্মহীন হয়ে পড়া শ্রমিকরা। শনিবার কানপুরে পিটিআই-এর ছবি। (PTI)
ঘরে ফিরছেন লকডাউনের জেরে আচমকা কর্মহীন হয়ে পড়া শ্রমিকরা। শনিবার কানপুরে পিটিআই-এর ছবি। (PTI)

ভিনরাজ্যের কর্মীদের থেকে বাড়িভাড়া আদায়ের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি

  • জেলাশাসক বলেন, বিপন্ন মানুষকে মাথার উপরের ছাদ আর নিত্য খাদ্য সরবরাহের আশ্বাস দেওয়া জরুরি।

লকডাউনে আচমকা বে-রোজগেরে হয়ে পড়া ভিনরাজ্যের শ্রমিকদের শহরছাড়া না করতে বাড়িওয়ালাদের ভাড়াটের থেকে জোর করে বকেয়া আদায় নিষিদ্ধ করতে নির্দেশ জারি করলেন উত্তর প্রদেশের গৌতম বুদ্ধ নগরের জেলাশাসক বি এন সিং।

লকডাউনের জেরে আচমকা রোজগারহীন হয়ে পড়া ভিনরাজ্যের শ্রমিকরা তড়িঘড়ি নিজের রাজ্যে ফিরতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন। এই সংবাদ প্রকাশ হতেই পদক্ষেপ করেন জেলাশাসক।

তিনি জানিয়েছেন, অসংখ্য শ্রমিক বাড়ি ফিরতে পথে নামলে Covid-19 সংক্রমণের আশঙ্কা কয়েক গুণ বাড়তে পারে। তা ছাড়া বিপন্ন মানুষকে মাথার উপরের ছাদ আর নিত্য খাদ্য সরবরাহের আশ্বাস দেওয়াও জরুরি।

নয়া নির্দেশিকা অনুসারে, পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে বাড়িওয়ালারা তাঁদের ভাড়া একমাস বা তারও পরে আদায় করতে পারবেন। নির্দেশিকায় ভিনরাজ্যের শ্রমিক হিসেবে দৈনিক মজুরের পাশাপাশি আপৎকালীন পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থার কর্মীরাও রয়েছেন।

জেলাশাসক জানিয়েছেন, ‘আমরা আশা করছি, এই নির্দেশ জারি হওয়ার ফলে ভিনরাজ্যের শ্রমিকরা রাজ্য ও বাড়ি ছেড়ে যাওয়ার চেষ্টা থেকে বিরত থাকবেন। কোনও বাড়িওয়ালা নির্দেশ অমান্য় করলে তাঁর বিরুদ্ধে বিপর্যয় মোকাবিলা আইনে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ওই আইন অনুযায়ী দোষী প্রমাণিত হলে একবছর পর্যন্ত কারাদণ্ড ও জরিমানা থেকে শুরু করে কোনও দুর্ঘটনা ঘটলে কারাদণ্ডের মেয়াদ দুই বছর অবধিও গড়াতে পারে।

ভিনরাজ্যের কর্মহীন শ্রমিকরা যাতে নিয়মিত খাবার পান এবং বাড়িওয়ালার দ্বারা লাঞ্েছিত না হন, তা নিশ্চিত করতে এসডিএম-দের নেতৃত্বে একাধিক কমিটিও গড়েছে উত্তর প্রদেশ সরকার।

বন্ধ করুন