বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > অসম- মিজোরাম সীমান্তে গ্রেনেড বিস্ফোরণ, নিশানায় নির্মাণ শ্রমিকরা !
অসম মিজোরাম সীমান্তে গ্রেনেড বিস্ফোরণ (প্রতীকী ছবি)
অসম মিজোরাম সীমান্তে গ্রেনেড বিস্ফোরণ (প্রতীকী ছবি)

অসম- মিজোরাম সীমান্তে গ্রেনেড বিস্ফোরণ, নিশানায় নির্মাণ শ্রমিকরা !

  • অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা বলেন. দুটি রাজ্যের মধ্যে সাংবিধানিক সীমা নিয়ে কিছু টেনশন রয়েছে। তবে আমাদের আলোচনার দরজা খোলা রয়েছে।কিন্তু আমাদের জায়গা দখল করবেন না। সাংবিধানিক সীমারেখা অসম পুলিশ রাতদিন পাহারা দিচ্ছে।

অসম -মিজোরাম সীমান্তে ভয়াবহ গ্রেনেড বিস্ফোরণ। স্থানীয় সূত্রে খবর, অসমের কাছার জেলায় ধোলাই বিধানসভা এলাকায় রাস্তা সংস্কারের কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের নিশানা করেই গ্রেনেড ছোঁড়া হয়েছিল। কাছারের এসপি বৈভব চন্দ্রকান্ত নিম্বলকরের দাবি, ‘একটা বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গিয়েছে। শ্রমিকরা দাবি করছেন, তাদের উপরই গ্রেনেড হামলা হয়েছিল।’ পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, ‘কাজ কেমন হচ্ছে সেটা পরিদর্শনের জন্য আমার বেরিয়েছিলাম। আচমকাই বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়। আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে যাই। শ্রমিকরা আমাদের জানিয়েছেন মিজোরামের দিক থেকে কিছু দুষ্কৃতী তাদের উপর গ্রেনেড হামলা করেছে। কিন্তু ভাগ্যবশত কেউ জখম হননি। গোটা ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।’

এদিকে বিশেষভাবে উল্লেখ্য়, শুক্রবারই সীমান্ত সমস্যা মেটানোর জন্য মিজোরাম ও অসমের মধ্যে দিল্লিতে মুখ্যসচিব পর্যায়ে বৈঠক হয়েছে। ঠিক তার পরের দিনই এই হামলা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। তবে মিটিংয়ের পরেও কোনও রফাসূত্রে বের হয়নি। তবে এর আগেও অসম- মিজোরাম সীমান্তে বাসিন্দাদের আতঙ্কিত করে রাখার জন্য বিস্ফোরক ব্যবহার করা হয়েছে। গত বছর ধোলাইতে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে নিশানা করে বোমা ছোঁড়া হয়েছিল বলে অভিযোগ। 

শনিবার অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা বলেন. ‘দুটি রাজ্যের মধ্যে সাংবিধানিক সীমা নিয়ে কিছু টেনশন রয়েছে। তবে আমাদের আলোচনার দরজা খোলা রয়েছে।কিন্তু আমাদের জায়গা দখল করবেন না। সাংবিধানিক সীমারেখা অসম পুলিশ রাতদিন পাহারা দিচ্ছে।’ স্থানীয় সূত্রে খবর, রাস্তার কাজের পরিদর্শনের সময়ই অস্ত্র সহ ইউনিফর্ম পরা কয়েকজন টিমটিকে বাধা দেয়। আধিকারিকদের দাবি, মিজোরামের দিকের কিছু দুষ্কৃতী অসমের প্রায় ৬.৫ কিলোমিটার এলাকা দখল করে রেখেছে। 

বন্ধ করুন