বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Pension News: ১৫ অগস্ট থেকে ফিরতে পারে পুরনো পেনশন প্রকল্প, সরকারি কর্মীদের জানাল এই রাজ্য

Pension News: ১৫ অগস্ট থেকে ফিরতে পারে পুরনো পেনশন প্রকল্প, সরকারি কর্মীদের জানাল এই রাজ্য

Pension News: ২০০৪ সালের ১ জানুয়ারি থেকে পুরনো পেনশন প্রকল্প বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে রয়টার্স)

Pension News: ২০০৪ সালের ১ জানুয়ারি থেকে পুরনো পেনশন প্রকল্প বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। চালু হয় ন্যাশনাল পেনশন সিস্টেম (এনপিএস)। তবে একাংশের দাবি, পুরনো পেনশন প্রকল্পে একগুচ্ছ সুবিধা আছে। তারইমধ্যে এই রাজ্য নয়া ঘোষণা করল।

আগামী ১৫ অগস্ট থেকে পুরনো পেনশন প্রকল্প চালু করতে পারে ঝাড়খণ্ড সরকার। অর্থাৎ স্বাধীনতা দিবস থেকে রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা পুরনো পেনশন প্রকল্পের আওতায় আসতে পারেন। এমনটাই জানালেন ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন।

২০০৪ সালের ১ জানুয়ারি থেকে পুরনো পেনশন প্রকল্প বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। চালু হয় ন্যাশনাল পেনশন সিস্টেম (এনপিএস)। রবিবার রাঁচিতে ন্যাশনাল মুভমেন্ট ফর ওল্ড পেনশন স্কিমের রাজ্য শাখার সম্মেলনে হেমন্ত বলেন, 'সকলের সামাজিক সুরক্ষার বিষয়ে অত্যন্ত ঝাড়খণ্ড সরকার সমস্ত বিভাগের সামাজিক নিরাপত্তার প্রতি সংবেদনশীল। ১৫ অগস্টের মধ্যে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ক্ষেত্রে পুরনো পেনশন প্রকল্প ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে।'

আরও পড়ুন: 7th Pay Commission: আগামী সপ্তাহেই সরকারি কর্মীদের DA বৃদ্ধি? মহার্ঘ ভাতা কি যাবে ৪০ শতাংশের কাছে?

ন্যাশনাল পেনশন স্কিম (এনপিএস) কী?

২০০৪ সালে ন্যাশনাল পেনশন স্কিম (এনপিএস) চালু করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। যাঁরা ২০০৪ সালের ১ জানুয়ারি বা তারপর চাকরি শুরু করেছেন, তাঁরা নয়া পেনশন কাঠামোর আওতায় পড়েন। তবে কোনও রাজ্যে ন্যাশনাল পেনশন স্কিম চালু করা হবে কিনা, সেই সিদ্ধান্ত নিতে পারে সংশ্লিষ্টি রাজ্য সরকার।

এনপিএসের আওতায় প্রত্যেক সরকারি কর্মচারীকে একটি 'পার্মানেন্ট রিটায়ারমেন্ট অ্যাকাউন্ট নম্বর' দেওয়া হয়। বাধ্যতামূলকভাবে বেতনের ১০ শতাংশ অর্থ দিতে হয় তাঁদের। সেইসঙ্গে সরকারও অর্থ প্রদান করে। আগে যা ছিল ১০ শতাংশ। ২০১৯ সালে বাড়িয়ে ১৪ শতাংশ করা হয়েছে। অবসরের পর সেই জমানো অর্থের ৬০ শতাংশ একলপ্তে তুলতে পারবেন কর্মচারীরা। সরকারি কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রিত এবং নথিভুক্ত বিমা সংস্থা থেকে অ্যানুইটি কেনার জন্য তাঁকে কমপক্ষে ৪০ শতাংশ অর্থ বিনিয়োগ করতে হয়। সেই অ্যানুইটির উপর যে সুদ পাওয়া যায়, তাই মাসিক পেনশন হিসেবে পাবেন অবসরপ্রাপ্ত কর্মীরা। অর্থাত্‍ নয়া পেনশন প্রকল্পের ক্ষেত্রে বাজারের অবস্থা গুরুত্বপূর্ণ হয়।

পুরনো এবং নয়া পেনশন প্রকল্পের মধ্যে কী পার্থক্য আছে?

কত টাকা জমানো হয়েছে, কত বছরে চাকরিতে যোগ দিয়েছেন, কী ধরনের বিনিয়োগ করা হয়েছে, বিনিয়োগ থেকে কত আয় হয়েছে - এই সমস্ত বিষয়গুলির উপর নয়া পেনশন প্রকল্প নির্ভর করে। সেখানে পুরনো ব্যবস্থায় শেষ পাওয়া বেতনের ৫০ শতাংশ পেনশন পাওয়া যায়। যা নির্ধারিত ছিল। সেইসঙ্গে অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা আছে।

আরও পড়ুন: ‘ঝুঁকিহীন’ পেনশন প্রকল্পে আনা হবে সরকারি কর্মচারীদের, ঘোষণা আরও এক রাজ্যের

সেই পরিস্থিতিতে একাংশের বক্তব্য, পুরনো পেনশন প্রকল্পে কোনও ঝুঁকি নেই। নয়া পেনশন প্রকল্পে ঝুঁকি আছে। ন্যাশনাল মুভমেন্ট ফর ওল্ড পেনশন স্কিমের রাজ্য শাখার দাবি, পুরনো পেনশন প্রকল্পে একগুচ্ছ সুবিধা আছে। যদিও অপর অংশের বক্তব্য, ন্যাশনাল পেনশন স্কিম যে বাজার-নির্ভর, তা ঠিক। কিন্তু দীর্ঘকালীন ক্ষেত্রে তাতে বেশি লাভবান হবেন কর্মীরা।

বন্ধ করুন