বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > প্রতি ঘরে জল, কেন্দ্রের জল জীবন মিশন তরতরিয়ে এগোচ্ছে, এবার বরাদ্দ ৫০ হাজার কোটি
দেশের বিভিন্ন জায়গাতেই পাইপলাইন বসানোর কাজ চলছে. (ANI Photo) (প্রতীকী ছবি)
দেশের বিভিন্ন জায়গাতেই পাইপলাইন বসানোর কাজ চলছে. (ANI Photo) (প্রতীকী ছবি)

প্রতি ঘরে জল, কেন্দ্রের জল জীবন মিশন তরতরিয়ে এগোচ্ছে, এবার বরাদ্দ ৫০ হাজার কোটি

  • ২০১৪ সালের একটি রিপোর্ট উল্লেখ করা হয়েছিল দেশের প্রায় ১২০ মিলিয়ন মানুষ তাঁদের বাড়ির কাছে পরিশ্রুত পানীয় জল পান না।

২০২৪ সালের মধ্যে দেশের গ্রামীণ এলাকায় প্রতি ঘরে ট্যাপ ওয়াটারের মাধ্যমে পানীয় জল পৌঁছে দিতে চাইছে সরকার। আর সেই জল জীবন মিশনকে সফল করতে কার্যত কোমর বেঁধে নেমেছে সরকার। ২০১৪ সালের একটি রিপোর্ট উল্লেখ করা হয়েছিল দেশের প্রায় ১২০ মিলিয়ন মানুষ তাঁদের বাড়ির কাছে পরিশ্রুত পানীয় জল পান না। গোটা পৃথিবীর অন্য কোথাও এই পরিস্থিতি নেই। ইউএন এর এই রিপোর্ট একেবারে সাড়া ফেলে দিয়েছিল গোটা বিশ্বে।

তবে বর্তমান পরিসংখ্যান বলছে দেশের প্রায় ৮০ মিলিয়ন বা ৪২.৫ শতাংশ গ্রামীন হাউসহোল্ডকে এই প্রকল্পের আওতায় আনা হয়েছে। তবে এর আগেও পানীয় জল গ্রামে গ্রামে পৌঁছে দেওয়ার নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কিন্তু একেবারে ‘হর ঘর জল’ কর্মসূচি এই প্রথম। এদিকে এই প্রকল্পের মাধ্যমে জাপানি এনসেফেলাইটিস হতে পারে এমন এলাকাতে পাইপের মাধ্যমে পানীয় জল সরবরাহের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ২০১৯ সালের তুলনায় বর্তমানে এই জলের সংযোগ অনেকটাই বেড়েছে। জাপানি এনসেফেলাইটিস অধ্যুষিত প্রায় ৩৮ শতাংশ এলাকায় এই জলের সংযোগ দেওয়া হয়েছে।

এই প্রকল্পের সঙ্গে জড়িত এক আধিকারিকের দাবি, বিশেষ কিছু জেলা যেখানে জাতীয় ক্ষেত্রের তুলনায় আর্থ সামাজিক সূচকগুলি নীচে রয়েছে সেখানে এই প্রকল্প রূপায়নের উপর জোর দেওয়া হচ্ছে। এসসি, এসটিদের প্রাধান্য রয়েছে এমন এলাকাতেও এই প্রকল্প করা হচ্ছে। ২০২০-২১ সালে এই প্রকল্পের জন্য ১১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছিল। ২০২১-২২ সালে এই প্রকল্পের জন্য ৫০ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে।

 

বন্ধ করুন