ছবিটি প্রতীকী।
ছবিটি প্রতীকী।

হাজিপুরে খুন কংগ্রেস নেতা, উত্তেজনায় পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর

শনিবার সকালে হাজিপুরের ব্যস্ত সিনেমা রোডের উপর গুলি করে হত্যা করা হয় যুব কংগ্রেস নেতা রাকেশ যাদবকে। তার জেরে ঘাতকদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করার দাবিতে রাস্তায় নেমে তাণ্ডব চালালেন কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকরা।

অজ্ঞাতপরিচয় আততায়ীদের গুলিতে বিহারের হাজিপুর শহরে খুন হলেন যুব কংগ্রেসের প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক রাকেশ যাদব। নেতার মৃত্যু কেন্দ্র করে চড়ল উত্তেজনার পারদ।

শনিবার সকালে হাজিপুরের ব্যস্ত সিনেমা রোডের উপর গুলি করে হত্যা করা হয় যুব কংগ্রেস নেতা রাকেশ যাদবকে। আর তার পরেই তাঁর ঘাতকদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করার দাবিতে রাস্তায় নেমে তাণ্ডব চালালেন কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকরা। গাড়ির টায়ার পুড়িয়ে রাস্তা অবরোধ করার পাশাপাশি স্থানীয় দোকান-বাজার জোর করে তাঁরা বন্ধ করে দেন। পুলিশের টহলদারি গাড়িতে ভাঙচুরের সঙ্গে সঙ্গে এসপি-এর গাড়ি লক্ষ্য করে ঢিল ছোড়া হয়।

হাজিপুরের এসডিও (সদর) রাঘব দয়াল জানিয়েছেন, এ দিন সকালে মিনাপুরের বসতবাড়ি থেকে জিম যাওয়ার পথে আক্রান্ত হন রাকেশ। সিনেমা রোডে পৌঁছতেই মোটরবাইক চেপে দুই দুষ্কৃতী সামনে থেকে তাঁর কপাল নিশানা করে গুলিয়ে চালিয়ে তলোয়ার ঘুরিয়ে ও শূন্যে গুলি চালাতে চালাতে পালায়। ঘটনাস্থলেই রাকেশ যাদবের মৃত্যু হয়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে তিনটি ব্যবহৃত কার্তুজ উদ্ধার করে পুলিশ। তবে এখনও পর্যন্ত ঘটনায় কেউ গ্রেফতার হয়নি।

এদিকে, নেতার মৃত্যুর খবর দ্রুত ছড়িয়ে পড়তেই শহরজুড়ে তুমুল উত্তেজনা দেখা দেয়। স্থানীয় বাসিন্দারা পুলিশকে জানিয়েছেন, গত লোকসভা নির্বাচনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন রাকেশ যাদব। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে হাজিপুর কেন্দ্র থেকে তাঁর প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার কথা ছিল।

বৈশালি জেলার এসপি জগুনাথারাড্ডি জলরাড্ডি জানিয়েছেন, নেতা খুনের ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। সমস্ত দিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে। হত্যাকারীদের সন্ধানে শুরু হয়েছে তল্লাশি অভিযান।

বন্ধ করুন